kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ২৯  মে ২০২০। ৫ শাওয়াল ১৪৪১

তারকার ডায়েরি

প্রত্যেকের বাড়িই এখন যার যার মসজিদ, মন্দির, গির্জা

ঘরবন্দি এ সময়ে কী ভাবছেন তারকারা? খানিকটা আভাস মিলবে সংগীতশিল্পী সামিনা চৌধুরীর এই লেখায়

৭ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রত্যেকের বাড়িই এখন যার যার মসজিদ, মন্দির, গির্জা

আজ আরেকটু তাড়াতাড়ি পেলাম সকালটা। মানে ভোরটা। এখনো আবির ছড়াচ্ছে। খুব ভালো লাগছে। আমরা সবাই আতঙ্কে আছি। হঠাৎ যেন বদলে গেছে সব কিছু। মনে হচ্ছে, আমাদের আরো সংযত হয়ে চলতে হবে। আরো প্রস্তুত থাকতে হবে। হাসপাতালে যেতে হয় এমন কিছু থেকে যেন আমরা দূরে থাকি। ছোটখাটো কিছু বিপদ যেমন হঠাৎ আঙুল কেটে যাওয়া, আগুনে হাতটা একটু পুড়ে যাওয়া, পা মচকানো কিংবা দাঁত ব্যথা—এগুলোর জন্যও অনেক ক্ষেত্রে হাসপাতালে যেতে হতে পারে। কিন্তু এখন হাসপাতালে যাওয়াও বিপজ্জনক। এই ছোটখাটো কাজগুলো আমরা যেন সাবধানে করি এবং অবশ্যই বিশেষ জরুরি না হলে বাড়ির বাইরে না যাই। বাথরুমে যেন সাবধানে হাঁটি, ভেজা বাথরুমে না যাই। প্রতিটি বাড়িই এখন যার যার মসজিদ, মন্দির, গির্জা। বাড়িতে বসেই আমরা দোয়া করব। আমাদের এখন প্রচণ্ড আত্মশুদ্ধির প্রয়োজন। আমরা যেন যার যার ধর্ম অনুযায়ী অন্তর থেকে ক্ষমা চাই। আমার ছেলে ও মেয়েকে বলেছি ঘন ঘন গরম পানি খাও, আদাপানি খাও। ভিটামিন সি খাও। আমি অনেক দিন গান গাই না। গান আর আসে না! সবাই যেন ভালো থাকে, সবার যেন বোধোদয় হয়—এটাই আজকের ভোরের প্রত্যাশা।

[ফেসবুক থেকে]

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা