kalerkantho

বৃহস্পতিবার ।  ২৬ মে ২০২২ । ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ২৪ শাওয়াল ১৪৪

প্রকল্প তদারকে কমিটি চান ডিসিরা, সরকারের না

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



প্রকল্প তদারকে কমিটি চান ডিসিরা, সরকারের না

স্থানীয় পর্যায়ে উন্নয়ন প্রকল্প তদারকিতে জেলা প্রশাসকদের (ডিসি) পক্ষ থেকে কমিটি গঠনের প্রস্তাব করা হয়েছে। তবে এ ধরনের কমিটি করার বিষয়ে সরকারের সায় নেই। জেলা প্রশাসকরা আশ্রয়ণ প্রকল্পে বহুতল ভবন করার প্রস্তাব দিয়েছেন। সেটিও সরকার আমলে নেয়নি।

বিজ্ঞাপন

তিন দিনব্যাপী ডিসি সম্মেলনের প্রথম দিনের অধিবেশন শেষে সাংবাদিকদের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীরা এ তথ্যের পাশাপাশি আরো জানান, চট্টগ্রামের কালুরঘাট বেতার কেন্দ্রে বিশেষ স্মৃতিস্তম্ভ করা হবে। আর চলমান করোনা পরিস্থিতিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

গতকাল মঙ্গলবার প্রথম দিনের অধিবেশনে শিক্ষা মন্ত্রণালয়, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়, পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়, অর্থ বিভাগ, বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগ, অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ ও অভ্যন্তরীণ সম্পর্ক বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ ডিসিদের সঙ্গে বৈঠক করে। কভিড পরিস্থিতির কারণে সামাজিক ও শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে বৈঠকে অংশ নেন তাঁরা।

অধিবেশন শেষে দুপুর থেকে বিকেল পর্যন্ত মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান, শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, মুখ্য সচিব আহমেদ কায়কাউস, প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. মশিউর রহমান সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন।

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, বৈঠকে জেলা প্রশাসকরা স্থানীয় পর্যায়ে উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নে যেন কমিটি করা হয় সে প্রস্তাব করেছিলেন। তবে আমরা বলেছি, কমিটি করার প্রয়োজন নেই। ডিসিদের এলাকায় কাজ দেখার অধিকার আছে। আমরা আপনাদের (ডিসি) সঙ্গে ঘন ঘন যোগাযোগ করি, চিঠি দিই। সে অনুযায়ী আপনারা কাজ করবেন। আর কিছু প্রয়োজন হলে আমরা তো আছি। আমিও ডিসি ছিলাম। যথেষ্ট দায়িত্ব ও ক্ষমতা ডিসিদের হাতে আছে। এটাকে প্রয়োগ করা প্রয়োজন। সে জন্য ব্রিটিশ ধারণার যে ইনস্পেকশন, সেটার প্রয়োজন নেই। বিদ্যমান আইনেই জেলা প্রশাসকদের উন্নয়ন প্রকল্প দেখভালের দায়িত্ব আছে।

এম এ মান্নান আরো বলেন, জেলা প্রশাসকরা তাঁদের এলাকায় যেসব প্রকল্প আছে সেগুলো দেখতে পারেন। দেখা মানে কিন্তু ইনস্পেকশন নয়, ইনস্পেকশন শব্দটা ভয়ংকর। পরিদর্শন অর্থে বলেছি। তিনি বলেন, “সরকারি প্রকল্পে বিদেশি ঋণ বোঝাতে ‘সহায়তা’ শব্দটি ব্যবহারের ক্ষেত্রে জেলা প্রশাসকদের বৈঠকে সচেতন করা হয়েছে। ‘সহায়তা’ শব্দটা যেন সাবধানে ব্যবহার করা হয় সেদিকে জোর দিয়েছি। এটা শুনলে মনে হয় খয়রাতি। আসলে সহায়তা সেই অর্থে আর নেই। উন্নয়ন বাজেট সম্পর্কে বলতে পারি, আমরা ঋণ হিসেবে বড় একটা অংশ নিই। সহায়তা মাঝে মাঝে আসে, সেটা ১-২ শতাংশও হবে না। বড় বড় সংস্থা নিজেদের প্রয়োজনেই এগিয়ে আসে। ”

বৈঠকে সরকারি প্রকল্পগুলোর জন্য ভূমি অধিগ্রহণে জেলা প্রশাসকদের সহায়তা চাওয়া হয়েছে। পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘প্রকল্প বাস্তবায়নে অনেক দেরি হয়, তার বড় একটা কারণ ভূমি অধিগ্রহণ। কিছু আইনগত ব্যাপারও আছে। এটাকে আরো দ্রুত করার জন্য তাঁদের সহায়তা চেয়েছি। প্রধানমন্ত্রীর আগের একটি আদেশ অনুযায়ী আইএমইডির কার্যালয় চালুর সরকারি উদ্যোগের বিষয়ে জেলা প্রশাসকদের জানানো হয়েছে। ’

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ হচ্ছে না : শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেন, ‘শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়ার মতো পরিস্থিতি তৈরি হয়নি। সে কারণে এখনই শিক্ষার্থীদের সশরীরে পাঠদান বন্ধ রাখা হচ্ছে না। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ওমিক্রন ছড়িয়ে গেলে বন্ধ রেখে অনলাইন ক্লাস-অ্যাসাইনমেন্ট দেওয়া হবে। ’

দীপু মনি বলেন, ‘শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ওমিক্রন ছড়িয়ে পড়লে বন্ধ করে দেওয়া হবে। সে ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীরা বাসায় বসে অনলাইনে ক্লাস করবে। তার সঙ্গে নিয়মিত অ্যাসাইনমেন্ট দেওয়া হবে। ’

উপহারের ঘর : অধিবেশন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস। তিনি বলেন, ‘আশ্রয়ণ প্রকল্পে ডিসিরা বহুতল ভবন করার প্রস্তাব দিয়েছেন। বহুতল ভবন হলে সেটা স্থায়ী হবে। তবে বহুতল ভবন করতে অনেক টাকা প্রয়োজন। এতে প্রধানমন্ত্রীর যে প্রত্যাশা, মুজিববর্ষে কেউ ভূমিহীন বা গৃহহীন থাকবে না, সেই প্রত্যাশা বাস্তবায়নের জন্য এটা করার সুযোগ নেই। ’

কালুরঘাট বেতার কেন্দ্রে স্মৃতিস্তম্ভ : মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, ‘আমাদের মন্ত্রণালয় সম্পর্কে দুটি প্রশ্ন ছিল—একটা হচ্ছে চিটাগাংয়ে আমরা বিশেষ কোনো স্মৃতিস্তম্ভ করব কি না। আমাদের দুটি পরিকল্পনা আছে এটা বলেছি, একটা কালুরঘাট বেতার কেন্দ্রে, সেখানে যেহেতু প্রথমে বঙ্গবন্ধুর পক্ষ থেকে চারজন স্বাধীনতার ঘোষণা করেছেন সেটার স্মৃতিস্তম্ভ। ’



সাতদিনের সেরা