kalerkantho

শুক্রবার । ১৪ মাঘ ১৪২৮। ২৮ জানুয়ারি ২০২২। ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন

নৌকার বিপক্ষে অবস্থান জানালেন নেতাকর্মীরা

ভাঙ্গুড়া (পাবনা) প্রতিনিধি   

৪ ডিসেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নৌকার বিপক্ষে অবস্থান জানালেন নেতাকর্মীরা

ভাঙ্গুড়ায় এমপির বাসভবনের সামনে নেতাকর্মীরা। ছবি : কালের কণ্ঠ

পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজেলার পারভাঙ্গুড়া ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হেদায়েতুল হকের বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছেন দলের তৃণমূলের নেতাকর্মীরা।

গত বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কয়েক শ নেতাকর্মী স্থানীয় সংসদ সদস্য মকবুল হোসেনের ভাঙ্গুড়া বাজারের বাসভবনে গিয়ে ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম মধুর পক্ষে স্লোগান দিয়ে সমর্থন জানান। মকবুল হোসেন দলীয় নেতাকর্মীদের নৌকার পক্ষে নির্বাচন করতে বিভিন্নভাবে বোঝানোর চেষ্টা করেন। এ নিয়ে তাঁর সঙ্গে ইউনিয়নের প্রবীণ নেতাকর্মীদের প্রায় দুই ঘণ্টা আলোচনা চলে।

বিজ্ঞাপন

তবে নেতাকর্মীরা রাজি হননি। আলোচনায় আওয়ামী লীগ প্রার্থীর বড় ভাই ও উপজেলা চেয়ারম্যান বাকি বিল্লাহ, সাংগঠনিক সম্পাদক আজাদ খান উপস্থিত ছিলেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, পারভাঙ্গুড়া ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে বর্তমান চেয়ারম্যান হেদায়েতুল হক, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও সাবেক তিনবারের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম মধু, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি নূর মোহাম্মদ, সাংগঠনিক সম্পাদক আতাউর রহমান বাদশা ও ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মজনুর রহমান চেষ্টা চালান, কিন্তু আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে সরাসরি জড়িত না থাকলেও ভেড়ামারা উদয়ন একাডেমির প্রধান শিক্ষক হেদায়েতুল হক নৌকা প্রতীক পান। বিষয়টি তৃণমূলের নেতাকর্মীরা মেনে নিতে পারেননি। আর দলীয় মনোনয়নবঞ্চিত তিনজন বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনের ঘোষণা দেন। এতে তৃণমূল পর্যায়ের বেশির ভাগ দলীয় নেতাকর্মীরা জাহাঙ্গীর আলম মধুর পক্ষ নেন।

বিদ্রোহী প্রার্থীদের আগামী ৬ ডিসেম্বরের মধ্যে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের জন্য উপজেলা আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ নেতারা চাপ দিতে থাকেন। এর প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় আওয়ামী লীগের ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ের নেতাকর্মীদের নিয়ে ভেড়ামারা বাজারে জাহাঙ্গীর আলম মধুর সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশ শেষে নেতাকর্মীরা সংসদ সদস্যের বাসায় গিয়ে বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে অবস্থান জানান দেন।

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আবদুস সাত্তার বলেন, ‘হেদায়েত মাস্টার রাজনীতি করেন না। তৃণমূলের নেতাকর্মীরা তাঁকে নেতা হিসেবে মানেন না। তার পরও কেন তিনি নৌকা পাবেন। তাই আমরা টানা তিনবার চেয়ারম্যান নির্বাচিত ত্যাগী আওয়ামী লীগ নেতা মধুর পক্ষে নির্বাচন করছি। ’

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলমগীর কবির লিটন বলেন, ‘জনমত জরিপে জাহাঙ্গীর আলম মধুর চেয়ে অনেক পিছিয়ে নৌকার প্রার্থী হেদায়াতুল। তাই তৃণমূল নেতাকর্মীর দাবির মুখে মধুর নির্বাচন করছি। ’



সাতদিনের সেরা