kalerkantho

বুধবার । ১২ মাঘ ১৪২৮। ২৬ জানুয়ারি ২০২২। ২২ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

দাওয়াই

টেস্টোস্টেরন হরমোনের মাত্রা ঠিক রাখুন

২৫ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



টেস্টোস্টেরন হরমোনের মাত্রা ঠিক রাখুন

টেস্টোস্টেরন হলো পুরুষের সেক্স হরমোন। মানুষসহ সব স্তন্যপায়ী, পাখি, সরীসৃপ প্রাণীর শুক্রাশয়ে এটি উৎপন্ন হয়। এই হরমোনের স্বাভাবিক মাত্রা পুরুষের যৌন বিকাশ এবং অন্যান্য ক্রিয়াকলাপের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। বয়ঃসন্ধির সময় (কিশোর বয়সে), টেস্টোস্টেরন ছেলেদের শরীর এবং মুখের চুল, গভীর কণ্ঠস্বর এবং পেশিশক্তির মতো পুরুষালি বৈশিষ্ট্যগুলো বিকাশে সহায়তা করে।

বিজ্ঞাপন

এই হরমোনের ঘাটতির ফলে পুরুষের সেক্স লাইভে শুধু জটিলতার পাশাপাশি অবসাদ, চুল পড়ে যাওয়াসহ নানা শারীরিক সমস্যা দেখা দিতে পারে।

 

ঘাটতির লক্ষণ

৩০ বছরের পর ধীরে ধীরে বেশির ভাগ পুরুষের টেস্টোস্টেরন হরমোনের ঘাটতি পেতে থাকে। ঘাটতির প্রধান লক্ষণগুলো হলো, অত্যধিক ক্লান্তিভাব, সেক্স লাইফে সমস্যা দেখা দেওয়া (ইরেক্টাইল ডিসফাংশন), ভুলে যাওয়া বা কোনো নির্দিষ্ট জিনিসে একটানা মনোযোগ দিতে না পারা, মুড অনবরত পরিবর্তন বা মুড স্যুইং, মাসলের পরিবর্তন বা মাসল খুব দুর্বল হয়ে যাওয়া, মেদ বৃদ্ধি, মুখে, হাতে, পায়ের লোম বৃদ্ধি, হাড় দুর্বল, অস্টিওপোরেসিস বা হাড়ক্ষয়, অনিদ্রায় ভোগা ইত্যাদি।

করণীয়

♦        নিয়মিত শরীরচর্চা করুন বিশেষ করে ভার উত্তোলন, পেশিগুলো শক্ত করার মতো ব্যায়ামগুলো করুন।

♦        পর্যাপ্ত সুষম খাবার খান; কিছুক্ষণ পর পর খাবার খান।

♦       ঘুমানো অবস্থায় টেস্টোস্টেরন তৈরি হয়। কম ঘুমালে টেস্টোস্টেরনের মাত্রা ১৫ শতাংশ পর্যন্ত কমে যেতে পারে। এ জন্য দৈনিক ৭ থেকে ৮ ঘণ্টা ভালো ঘুম দরকার।

♦        স্ট্রেস বা টেনশনমুক্ত থাকুন। কেননা স্ট্রেস কর্টিসল হরমোনের মাত্রা বাড়িয়ে দেয়, যা কি না টেস্টোস্টেরনের মাত্রাকে কমিয়ে দিতে পারে।

♦        সূর্য তাপের সংস্পর্শ নিন বা গায়ে রোদ লাগান। কেননা ভিটামিন-ডি হাড় মজবুত করে, দেহকে পুরুষালি করে তোলে।  

♦        মেডিটেশন, যোগব্যায়াম, বডি ম্যাসাজ ইত্যাদি করুন।

 

সহায়ক খাবার

বিশেষ কোনো খাবারে টেস্টোস্টেরন পাওয়া যায় না। তবে এর মাত্রা বাড়াতে ভিটামিন-ডি ও জিংকসমৃদ্ধ খাবার বেশ উপযোগী। এ জন্য সহায়ক খাবার হতে পারে ঝিনুক, আদা, পেঁয়াজ, রসুন, পাস্তরিত দুধ, পাতাযুক্ত সবুজ শাকসবজি বিশেষ করে পালংশাক, মোটরশুঁটি, কাজুবাদাম, চিনাবাদাম, অ্যাভোকাডো, ডালিম, গরুর মাংস, মুরগি, ডিম, স্যামন, টুনা এবং ম্যাকেরেলের মতো চর্বিযুক্ত মাছ ও মাছের তেল, অলিভ অয়েল, ফলমূল  ইত্যাদি।

 

যা করবেন না

♦        ধূমপান করবেন না।

♦        মদ্যপান একদম নয়।

♦        প্লাস্টিকের পাত্রে খাবার নয়, কাচের পাত্র ব্যবহার করুন।

♦        প্যাকেটজাত, প্রক্রিয়াজাত খাবার খাবেন না।

♦        মাইক্রোওয়েভে তৈরি রান্না নয়।

♦       উচ্চমাত্রার চর্বিযুক্ত খাবার খাবেন না।

ইউরোলজি হেলথ অবলম্বনে

আতাউর রহমান কাবুল



সাতদিনের সেরা