kalerkantho

সোমবার ।  ২৩ মে ২০২২ । ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ২১ শাওয়াল ১৪৪৩  

সিলেট-৩ উপনির্বাচন

জামানত গেল দুই প্রার্থীর

আহমেদ নূর, সিলেট   

৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



জামানত গেল দুই প্রার্থীর

সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচনে প্রার্থী ছিলেন চারজন। তাঁদের মধ্যে দুই প্রার্থী ৩৩টি কেন্দ্রে কোনো ভোটই পাননি। এর মধ্যে এই আসনের সাবেক সংসদ সদস্য শফি আহমদ চৌধুরী ৯টি কেন্দ্রে একটিও ভোট পাননি। আর জুনায়েদ মোহাম্মদ মিয়া ২৪টি কেন্দ্রে শূন্য ভোট পেয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

তাঁদের দুজনেরই জামানত বাজেয়াপ্ত হয়েছে।

গত শনিবার অনুষ্ঠিত এ আসনের নির্বাচনের ফল বিশ্লেষণ করে এমন তথ্য জানা গেছে। নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিব বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জাতীয় পার্টির আতিকুর রহমান আতিকের চেয়ে তিনি ৬৫ হাজার ৩১২ ভোট বেশি পেয়েছেন।

সিলেট-৩ আসনে মোট ভোটকেন্দ্র ১৪৯টি। এই নির্বাচনে ইভিএমে ভোটগ্রহণ হয়। এতে নৌকা প্রতীকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিব পেয়েছেন ৯০ হাজার ৬৪ ভোট। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জাতীয় পার্টির আতিকুর রহমান আতিক লাঙল প্রতীকে পেয়েছেন ২৪ হাজার ৭৫২ ভোট। নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী অপর দুজনের মধ্যে স্বতন্ত্র প্রার্থী শফি আহমদ চৌধুরী পেয়েছেন পাঁচ হাজার ১৩৫ ভোট। আর বাংলাদেশ কংগ্রেসের জুনায়েদ মোহাম্মদ মিয়া পেয়েছেন ৬৪০ ভোট।

ফল বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, সাবেক সংসদ সদস্য ও বিএনপি নেতা শফি আহমদ চৌধুরী ৯টি কেন্দ্রে কোনো ভোট পাননি। এ ছাড়া আটটি কেন্দ্রে তিনি ভোট পেয়েছেন একটি করে। বাকি কেন্দ্রগুলোর মধ্যে ৫৩টিতে তাঁর প্রাপ্ত ভোটের সংখ্যা ১০-এরও নিচে। এর বেশি ভোট পেয়েছেন ৭০টি কেন্দ্রে।

অন্যদিকে বাংলাদেশ কংগ্রেস পার্টির প্রার্থী জুনায়েদ মোহাম্মদ মিয়া ২৪টি কেন্দ্রেই কোনো ভোট পাননি। এ ছাড়া মাত্র একটি করে ভোট পেয়েছেন ২৫ কেন্দ্রে। ১০টির নিচে ভোট পেয়েছেন ৮২টি কেন্দ্রে। এই প্রার্থী মাত্র ১৮টি কেন্দ্রে ১০টির বেশি ভোট পেয়েছেন।

এদিকে প্রয়োজনীয়সংখ্যক ভোট না পাওয়ায় এই দুই প্রার্থীর জামানত বাজেয়াপ্ত হয়েছে। নির্বাচনী আইন অনুযায়ী প্রদত্ত ভোটের ৮ শতাংশ না পেলে প্রার্থীর জামানত বাজেয়াপ্ত করা হয়।

জানা গেছে, সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচনে ভোট পড়েছে মোট এক লাখ ২০ হাজার ৫৯১টি। এর মধ্যে স্বতন্ত্র প্রার্থী ও বিএনপির বহিষ্কৃত কেন্দ্রীয় নেতা শফি আহমদ চৌধুরীর মোটরগাড়ি প্রতীক পেয়েছে পাঁচ হাজার ১৩৫ ভোট, যা প্রদত্ত ভোটের মাত্র ৪.২৫ শতাংশ। একইভাবে আরেক প্রার্থী বাংলাদেশ কংগ্রেসের জুনায়েদ মোহাম্মদ মিয়ার ডাব প্রতীক পেয়েছে মোট ৬৪০ ভোট। এটি মোট প্রদত্ত ভোটের ০.৫৩ শতাংশ।

সিলেটের দক্ষিণ সুরমা, বালাগঞ্জ ও ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা নিয়ে সিলেট-৩ আসন গঠিত। এ আসনে টানা তিনবারের সংসদ সদস্য মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী কয়েস করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত ১১ মার্চ মারা গেলে আসনটি শূন্য হয়। এরপর করোনা পরিস্থিতির কারণে তিন দফা তারিখ পিছিয়ে গত শনিবার উপনির্বাচনের ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়।



সাতদিনের সেরা