kalerkantho

বুধবার । ১১ কার্তিক ১৪২৮। ২৭ অক্টোবর ২০২১। ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

অর্থ খ্যাতি যশের জন্য বেপরোয়া ডা. ঈশিতা

ঈশিতা ও তাঁর সহযোগী ছয় দিনের রিমান্ডে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অর্থ আত্মসাৎ আর খ্যাতি অর্জনে উচ্চাকাঙ্ক্ষী ছিলেন চিকিৎসক ঈশিতা। এ জন্য তিনি কখনো পরিচয় দিতেন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল হিসেবে; কখনো বলতেন—তিনি পেয়েছেন ‘ইন্টারন্যাশনাল ইন্সপাইরেশনাল উইমেন অ্যাওয়ার্ড’। আবার নিজেকে বছরের সেরা নারী বিজ্ঞানী পরিচয় দিতেও পিছপা হননি। নিজের অর্জনের ঝুলিতে সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে রিসার্চ অ্যাচিভমেন্ট অ্যাওয়ার্ড, ভারতের টেস্ট জেম অ্যাওয়ার্ড, থাইল্যান্ডের আউটস্ট্যান্ডিং সায়েন্টিস্ট অ্যান্ড রিসার্চার অ্যাওয়ার্ডসহ নানা পুরস্কার ও সম্মাননার কথা প্রচার করতেন। এমনকি আন্তর্জাতিক পুলিশ সংস্থা ইন্টারপোলের সঙ্গেও নিজের সংশ্লিষ্টতা আছে—এমন দাবিও করে বসতেন।

র‌্যাবের প্রাথমিক তদন্তে উঠে এসেছে, চিকিৎসক সনদ ছাড়া ঈশিতার সব সনদই ভুয়া। তিনি কোনো পুরস্কার অর্জন করেননি। সব সনদ নিজেই তৈরি করেছেন। এমনকি করোনা সনদও জালিয়াতি করেছেন তিনি। মূলত প্রতারণা করে অর্থ আত্মসাৎ ও খ্যাতি অর্জনের জন্যই এসব করেছেন তিনি। আর বিভিন্ন সংস্থার সনদ ডাউনলোড করে সেখানে ঈশিতার নাম বসানোর কাজটি করতেন তাঁর ঘনিষ্ঠ শহিদুল। তাঁদের বিরুদ্ধে মাদক সংশ্লিষ্টতাও মিলেছে।

এদিকে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের মামলা এবং ভুয়া ডিগ্রি ও দেশি-বিদেশি সংস্থার প্রতিনিধি পরিচয়ে প্রতারণার মামলায় চিকিৎসক ইশরাত রফিক ঈশিতা ও তাঁর সহযোগী শহিদুল ইসলামকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ছয় দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। পুলিশের রিমান্ড আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকার মহানগর হাকিম আশেক ইমাম গতকাল সোমবার মাদক ও প্রতারণার দুই মামলায় তিন দিন করে মোট ছয় দিনের এই রিমান্ড মঞ্জুর করেন।



সাতদিনের সেরা