kalerkantho

রবিবার । ৪ আশ্বিন ১৪২৮। ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১১ সফর ১৪৪৩

অটো ও হোটেলে আটকে রেখে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ

পৃথক স্থানে ধর্ষণের পর গর্ভপাত ঘটানোর অভিযোগ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৩০ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলায় কিশোরীকে সিএনজিচালিত অটোরিকশা ও আবাসিক হোটেলে আটকে রেখে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। পটুয়াখালীর গলাচিপায় ধর্ষণের পর অন্তঃসত্ত্বা কিশোরীকে (১৬) জোর করে গর্ভপাত ঘটানোর অভিযোগ উঠেছে। সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে গ্রেপ্তার হয়েছে শিশু ধর্ষণ মামলার আসামি। 

নবীগঞ্জ থানা পুলিশের হাতে গতকাল বহস্পতিবার ভোরে গ্রেপ্তার মাহমুদ আলী (৩০) পাশের বানিয়াচং উপজেলার কদুপুর গ্রামের সঞ্জব আলীর ছেলে। তাঁকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। পুলিশ ও মামলার বিবরণ সূত্রে জানা যায়, গত ২০ জুলাই (মঙ্গলবার) সন্ধ্যায় নবীগঞ্জ উপজেলার কালিয়ারভাঙ্গা ইউনিয়নের কিশোরীটিকে (১৪) মাহমুদ আলী ও তাঁর সহযোগীরা প্রথমে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় এবং পরে একটি আবাসিক হোটেলে রেখে ধর্ষণ করে।

গলাচিপায় ধর্ষণ ও গর্ভপাতের ঘটনায় অভিযুক্ত মো. নাঈম সরদারের (২০) বিরুদ্ধে গত সোমবার রাতে গলাচিপা থানায় মামলা করে ভুক্তভোগী কিশোরী। নাঈম দশমিনা উপজেলার চানপুরা গ্রামের মাওলানা সিদ্দিকুর রহমানের ছেলে। ভুক্তভোগী কিশোরী গলাচিপার বাসিন্দা।

মামলার বিবরণে জানা যায়, নাঈম কিশোরীটিকে উত্ত্যক্ত করতেন। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। গত ৫ ফেব্রুয়ারি রাতে বিয়ের ব্যাপারে জরুরি কথা আছে বলে নাঈম কিশোরীকে কানু মাস্টারের ঘরে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করেন। পরে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে বিভিন্ন সময়ে তার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করেন নাঈম। এক পর্যায়ে কিশোরী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। কিন্তু বিয়ে করতে টালবাহানা করছিলেন নাঈম। গত ২৪ জুলাই বিয়ের কথা বলে নাঈম কিশোরীকে পটুয়াখালীতে নিয়ে তিন থেকে চারজনের সহযোগিতায় জোর করে গর্ভপাত ঘটান। এ সময় সে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিল। গলাচিপা থানার ওসি বলেন, ‘আসামি নাঈমকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। কিশোরীকে পটুযাখালী সরকারি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ডাক্তারি পরীক্ষা করা হয়েছে।’

শাহজাদপুরে আসামিকে (১৪) থানার পুলিশ গত বুধবার বিকেলে শাহজাদপুর পৌর সদরের টাউন জামে মসজিদের পাশ থেকে গ্রেপ্তার করে। ওই দিনই তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়। সে পলাতক ছিল। তার বাড়ি উপজেলার চরকৈজুরী গ্রামে।

[প্রতিবেদনে তথ্য দিয়েছেন হবিগঞ্জ, গলাচিপা (পটুয়াখালী) ও শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি]