kalerkantho

মঙ্গলবার । ৮ আষাঢ় ১৪২৮। ২২ জুন ২০২১। ১০ জিলকদ ১৪৪২

বৃষ্টির পরও ভোগাবে গরম

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ মে, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বৃষ্টির পরও ভোগাবে গরম

একটু-আধটু ভোগান্তি হলেও গতকালের হঠাৎ বৃষ্টি তীব্র গরম থেকে অনেকটাই মুক্তি দিয়েছে রাজধানীবাসীকে। মহাখালী এলাকা থেকে তোলা। ছবি : কালের কণ্ঠ

কয়েক দিন ধরে চলা প্রচণ্ড গরমের মধ্যে গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বজ পাতসহ মুষলধারে বৃষ্টি হয়েছে। তবে এই ঝড়-বৃষ্টির পরও তাপমাত্রা কমার সম্ভাবনা নেই, বরং আজ বুধবার থেকে তাপমাত্রা ফের বাড়বে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা।

আবহাওয়াবিদ বজলুর রশীদ গতকাল রাতে কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘দেশের বিভিন্ন স্থানে মুষলধারে বৃষ্টি হয়েছে। কোথাও কোথাও ঝড়ও হয়েছে, সঙ্গে প্রচণ্ড বজ পাতও ছিল। এ ধরনের ঝড়-বৃষ্টি হয়তো বুধবার থেকেই কমে যাবে; কিন্তু তাপমাত্রা খুব একটা কমবে না, বরং আগামী কয়েক দিন তাপমাত্রা আরো বাড়বে।’

গতকাল সকাল থেকেই রাজধানীর কোথাও আকাশ মেঘলা, কোথাও ঝিরিঝিরি বৃষ্টি হচ্ছে, আবার কোথাও রোদ-মেঘের খেলা চলছিল। তবে বিকেল ৪টার দিক থেকে শুরু হয় মুষলধারে বৃষ্টি। সঙ্গে প্রচণ্ড বজ পাতে মানুষের মধ্যে আতঙ্ক তৈরি হয়। সন্ধ্যার পর থেকে এই বৃষ্টি কমতে থাকলে ভোগান্তিতে পড়ে ঘরের বাইরে থাকা মানুষজন। তা ছাড়া রাজধানীর অনেক স্থানেই পানি জমে যায়।

আবহাওয়া অফিস থেকে জানা যায়, ঢাকা ছাড়াও দেশের উত্তরাঞ্চলের দিকে ঝড়-বৃষ্টি হয়েছে। এই সময়ে সাময়িক তাপমাত্রা কমলেও তা আবার বাড়বে।

গতকালের তাপপ্রবাহের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রাঙামাটি, কুমিল্লা, চাঁদপুর, মাইজদিকোর্ট, ফেনী, রাজশাহী, পাবনা, সিরাজগঞ্জসহ ঢাকা, খুলনা ও বরিশাল বিভাগের ওপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা অব্যাহত থাকতে পারে। দিন ও রাতের তাপমাত্রা কিছুটা বাড়তে পারে।

গতকাল সকাল ৯টা থেকে আগামী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, লঘুচাপের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ এবং এর আশপাশের এলাকায় অবস্থান করছে। এর প্রভাবে ময়মনসিংহ, সিলেট ও ঢাকা বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং রংপুর, রাজশাহী ও চট্টগ্রাম বিভাগের দু-এক জায়গায় দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রপাতসহ বৃষ্টি হতে পারে। এ ছাড়া দেশের অন্য এলাকার আকাশ আংশিক মেঘলাসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে।

গত সোমবার দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে যশোরে, ৩৯.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর সবচেয়ে বেশি বৃষ্টিপাত হয়েছে টাঙ্গাইলে, ৩০ মিলিমিটার। তবে গতকালের পূর্বাভাসে তাপমাত্রা ও বৃষ্টিপাতের পরিমাণ দুটোই আগের দিনের চেয়ে বেড়েছে।