kalerkantho

মঙ্গলবার । ১ আষাঢ় ১৪২৮। ১৫ জুন ২০২১। ৩ জিলকদ ১৪৪২

‘নির্মমতা কত দূর হলে জাতি হবে নির্লজ্জ’

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি   

৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যশোরের মণিরামপুরে মোটরসাইকেল ছিনতাইকারী সন্দেহে মানসিক রোগে ভোগা কলেজছাত্র বোরহান কবিরকে পিটিয়ে হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভ করেছে তাঁর সহপাঠীসহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। তারা জড়িতদের গ্রেপ্তার করে সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানায়। গতকাল সোমবার দুপুর ১২টা থেকে ২টা পর্যন্ত দুই ঘণ্টাব্যাপী মণিরামপুর পৌরশহরে বিক্ষোভ মিছিল ও মানবনন্ধন করে শিক্ষার্থীরা। মানববন্ধনে তাদের হাতে থাকা ব্যানারের শিরোনাম ছিল ‘নির্মমতা কতদূর হলে জাতি হবে নির্লজ্জ’। এর আগে একই দাবিতে রবিবার বিকেলে মণিরামপুর থানা ঘেরাও করেছিল বোরহানের এলাকাবাসী। বোরহান কবির মণিরামপুর হাসপাতালসংলগ্ন মোহনপুর গ্রামের আহসানুল কবিরের ছেলে। তিনি মণিরামপুর সরকারি কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র ছিলেন। এসএসসিতে গোল্ডেন জিপিএ-৫ এই ছাত্র বেশ কয়েক দিন ধরে মানসিক রোগে ভুগছিলেন। গত শনিবার সকালে সাইকেল চালিয়ে পৌরশহর থেকে উপজেলার খালিয়া গ্রামে যান বোরহান। সেখানে অস্বাভাবিক আচরণ করায় মোটরসাইকেল ছিনতাইকারী ভেবে নাইম হোসেন নামের এক যুবক তাঁকে পিটিয়ে রক্তাক্ত করেন। খবর পেয়ে রাজগঞ্জ ক্যাম্পের পুলিশ বোরহানকে আটক করে মণিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। অবস্থা গুরুতর হওয়ায় রাতে তাঁকে ঢাকায় নেওয়া হয়। রবিবার ভোরে মারা যান বোরহান। এদিকে ঘটনার দিন নাইমকেও আটক করেছিল পুলিশ। পরে বোরহানের বাবা থানায় মারধরের মামলা করলে পুলিশ নাইমকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে রবিবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠায়। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা রাজগঞ্জ পুলিশ ক্যাম্পের এসআই তপনকুমার নন্দী বলেন, মারধরের মামলাটি হত্যা মামলায় পরিণত করতে আদালতে আবেদন দেওয়া হয়েছে। ওই ঘটনায় আরো কেউ জড়িত আছে কি না, তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।