kalerkantho

বুধবার। ৬ মাঘ ১৪২৭। ২০ জানুয়ারি ২০২১। ৬ জমাদিউস সানি ১৪৪২

আশুরার বিলে অনশন

‘দূর থেকে’ কথা বললেন এমপি সুরাহা হলো না

দিনাজপুর প্রতিনিধি   

২ ডিসেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলার আশুরার বিলে বাঁধ নির্মাণের প্রতিবাদে এক মাস ধরে অনশন করছেন স্থানীয় কয়েক হাজার মানুষ। গতকাল মঙ্গলবার সেখানে গিয়ে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে সাক্ষাতের কথা ছিল স্থানীয় সংসদ সদস্য শিবলী সাদিকের। কিন্তু একটা দূর পর্যন্ত গিয়ে তিনি থেমে যান। পরে মোবাইল ফোনে আন্দোলনকারীদের উদ্দেশে বক্তব্য দেন। কিন্তু সংসদ সদস্যের সাক্ষাৎ না পাওয়ায় এবং দাবি আদায় না হওয়ায় অনশন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে আন্দোলনকারীরা।

আন্দোলনকারীরা বলছে, প্রায় ৬০ বছর ধরে তারা আশুরার বিলে চাষাবাদ করছে। বিলে সরকারের জমিও আছে। গত বছরের সেপ্টেম্বরে বিলপারে বাঁধ নির্মাণ করে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশন (বিএডিসি)। ফলে জমিগুলোতে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হওয়ায় আবাদ করতে পারেনি স্থানীয় লোকজন। তাই এই বাঁধ নির্মাণের বিরোধিতা করে আসছে তারা।

সংসদ সদস্য শিবলী সাদিক গত সোমবার জানান, তিনি আশুরার বিলে গিয়ে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে কথা বলবেন। এরপর গতকাল দুপুরে বিলের উদ্দেশে রওনা হন তিনি। কিন্তু রাস্তা ভাঙা থাকায় তিনি বিল থেকে দুই কিলোমিটার দূরে হরিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে পৌঁছান। এরপর সেখান থেকে আন্দোলনকারীদের নেতা রেজাউল ইসলামকে মোবাইলে ফোন করে বক্তব্য দেন। ওই বক্তব্য মাইক্রোফোনে আন্দোলনকারীদের শোনানো হয়। সেখানে শিবলী সাদিক বলেন, ‘অসুস্থ হয়েও আপনাদের কাছে এসেছি। রেজাউল আমাকে বলেনি যে পশ্চিম পাশে পানি জমে আছে, পারাপার হতে পারব না। বাঁধের পাশে এসে ডাকলাম, আপনারা এলেন না। আমাকে জানানো হলো আপনি হরিপুর স্কুল মাঠে যান। আমি এখানে এসেও বসে থাকলাম, আপনারা ওখানে বসে থাকলেন। প্রশাসন মনে করছে, আমার নির্দেশনায় আপনারা ওখানে বসে আছেন। আর আপনারা আমাকে দোষ দেন। বলির পাঁঠা হচ্ছি আমি। আমি বিষয়টি নিয়ে মধ্যস্থতা করতে এসেছিলাম। সবার জ্ঞাতার্থে বলে যাচ্ছি, এ বিল সরকারের। আপনারা দেশের জনগণ। সবার ওপরে দায়িত্ব দিয়ে গেলাম। আমি আর অভিযোগের পাত্র হতে চাই না।’ সংসদ সদস্য আরো বলেন, ‘এভাবে নাচিয়ে নিয়ে বেড়াবেন, এটা সম্ভব নয়। যা বলছেন, তা-ই শুনছি। কী দেখাতে চাচ্ছেন আপনারা? আপনাদের প্রত্যেকের বাড়ির খবর জানি আমি। তার পরও ওখানে বসে আছেন। কী প্রমাণ করতে চান আপনারা?’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা