kalerkantho

শনিবার । ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৮ নভেম্বর ২০২০। ১২ রবিউস সানি ১৪৪২

যোগাভ্যাস

ব্রিদ ট্রেনিং

২৮ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ব্রিদ ট্রেনিং

সঠিকভাবে শ্বাস-প্রশ্বাস নিয়ন্ত্রণ করতে পারলে নানা শারীরিক সমস্যা এড়ানো সম্ভব। ব্রিদ ট্রেনিংয়ের সাহায্যে নিজের শ্বাস-প্রশ্বাসকে চিনে নিতে হবে কোনো ধরনের হস্তক্ষেপ ছাড়াই

 

পদ্ধতি

► মাটিতে পা রেখে সোজা হয়ে চেয়ারে বসুন। চেয়ারে হেলান দেবেন না। শরীর টান টান থাকবে, কিন্তু জোর করে নয়, আরামদায়কভাবে মাথা-ঘাড় সোজা করে বসতে হবে। দুই হাত রাখুন ঊরুর ওপর। চোখ বন্ধ করে মন শান্ত রেখে বসুন।

► এই অবস্থানে কয়েক সেকেন্ড চোখ বন্ধ করে শরীর ও মন শিথিল করে বসুন।

► এবার স্বাভাবিক শ্বাস-প্রশ্বাস নেওয়া শুরু করুন। মনে মনে স্বাভাবিক শ্বাস গ্রহণ ও বর্জনের দিকে খেয়াল রাখুন। জোর করে শ্বাস গ্রহণ বা ত্যাগ করবেন না। শুধু খেয়াল রাখবেন, কিভাবে শ্বাস ছাড়ছেন ও বাতাস টেনে নিচ্ছেন।

► কিভাবে শ্বাস নিচ্ছেন ও বাতাস ছাড়ছেন শান্ত মনে পর্যবেক্ষণ করার পর বাতাস টেনে নেওয়া ও ছেড়ে দেওয়া ধীরে ধীরে গুনতে হবে। প্রতিটা শ্বাস নেওয়ার সময় মনে মনে এক, দুই, তিন করে পনেরো পর্যন্ত গুনতে হবে। একইভাবে শ্বাস ছাড়ার সময়ও এক থেকে পনের পর্যন্ত গুনুন।

► অভ্যাস শেষ হলে সোজা হয়ে বসে চোখ বন্ধ করে কিছুক্ষণ বিশ্রাম নিন। অনুভব করুন কেমন বোধ করছেন। মন শান্ত রেখে স্বাভাবিক শ্বাস-প্রশ্বাস নিতে থাকুন। ধীরে ধীরে চোখ খুলুন।

উপকারিতা

শরীর ও মন সুস্থ রাখতে নিয়মিত আসন করা প্রয়োজন। শরীরের সঙ্গে সঙ্গে মন ভালো রাখা দরকার। দৈনন্দিন কাজের চাপে ও সাংসারিক সমস্যায় মন অশান্ত হয়ে থাকে। মনের সঙ্গে শ্বাস-প্রশ্বাসের এক গভীর যোগ আছে যা আমরা সহজে চিহ্নিত করতে পারি না, বা বোঝার চেষ্টা করি না। অনিদ্রার মতো ক্রনিক সমস্যা দূর হয়। ঘুমাতে যাওয়ার আগে নিয়ম করে ব্রিদ ট্রেনিং অভ্যাস করে নিশ্চিন্তে ঘুমান।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা