kalerkantho

মঙ্গলবার । ৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৪ নভেম্বর ২০২০। ৮ রবিউস সানি ১৪৪২

সংক্ষিপ্ত

বাসন্তী রেমা পাচ্ছেন ঘর

মধুপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি   

২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



টাঙ্গাইলের মধুপুরে গারো নারী বাসন্তী রেমার কলাবাগান কেটে ফেলা পরিস্থিতিকে কেন্দ্র করে প্রশাসন, বন বিভাগ ও গারো সম্প্রদায়ের নেতাদের মধ্যে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে বন বিভাগের দোখলা বাংলোতে এ বৈঠক হয়। বৈঠকে গারো নেতাদের বিভিন্ন দাবির পরিপ্রেক্ষিতে আলোচনা করে ক্ষতিগ্রস্ত বাসন্তী রেমাকে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে একটি ঘর, মধুপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ছরোয়ার আলম খান আবুর পক্ষ থেকে ১৫ হাজার টাকা ও শোলাকুড়ি ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আকতার হোসেনের পক্ষ থেকে পাঁচ হাজার টাকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। এ ছাড়া বাসন্তী রেমার দখলে থাকা জমি তিনি ভোগদখল করবেন। কমিউনিটি ফরেস্ট ওয়ার্কারের বাইরেও সুযোগ-সুবিধা পাবেন তিনি। বিনা নোটিশে বন এলাকায় কারো কলা, আনারস ও কৃষি ফসল কাটা হবে না। তাদের অন্যান্য দাবি প্রশাসনের উচ্চমহলে জানানো হবে। টাঙ্গাইল বিভাগীয় বন কর্মকর্তা ড. জহিরুল ইসলামের সভাপতিত্বে বৈঠকে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক জামিরুল ইসলাম, মধুপুর উপজেলা চেয়ারম্যান ছরোয়ার আলম খান আবু, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান যষ্ঠিনা নকরেক, ইউএনও আরিফা জহুরা, সহকারী কমিশনার (ভূমি) এম এ করিম, সহকারী বন সংরক্ষক জামাল হোসেন তালুকদার, সার্কেল অফিসার কামরান হোসেন প্রমুখ।

মন্তব্য