kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৩ আষাঢ় ১৪২৭। ৭ জুলাই ২০২০। ১৫ জিলকদ  ১৪৪১

মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক ওয়ালিউর রহমান রেজা আর নেই

গাইবান্ধায় শোকের ছায়া

গাইবান্ধা প্রতিনিধি   

১০ মে, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহযোগী ও সাবেক সংসদ সদস্য ওয়ালিউর রহমান রেজা (৮০) আর নেই। গতকাল শনিবার ঢাকার মোহাম্মদপুরে নিজ বাসভবনে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন রেজা (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তিনি স্ত্রী, দুই ছেলে-মেয়ে, ভাই-বোন, নাতি-নাতনিসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

ওয়ালিউর রহমান রেজার মৃত্যুতে গাইবান্ধায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। মরদেহ গাইবান্ধা শহরের মধ্যপাড়ার বাড়িতে আনলে তাঁর অসংখ্য অনুরাগী ভিড় করেন। বিকেলে গাইবান্ধা ইসলামিয়া হাই স্কুল মাঠে জানাজা অনুষ্ঠানে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে তাঁকে গার্ড অব অনার দেওয়া হয়। পরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে তাঁকে গাইবান্ধা পৌর কবরস্থানে বাবার কবরে সমাহিত করা হয়।

ওয়ালিউর রহমান রেজার মৃত্যুতে জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার মো. ফজলে রাব্বি মিয়া, হুইপ মাহাবুব আরা বেগম গিনি, উম্মে কুলসুম স্মৃতি এমপি, মনোয়ার হোসেন চৌধুরী এমপি, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সৈয়দ শামস-উল আলম হিরু, সাধারণ সম্পাদক আবু বকর সিদ্দিক, গাইবান্ধা পৌরসভার মেয়র শাহ মাসুদ জাহাঙ্গীর কবীর মিলন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাহমুদ হাসান রিপন, সিপিবির প্রেসিডিয়াম সদস্য মিহির ঘোষসহ জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, গাইবান্ধা প্রেস ক্লাব, রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতা ও বিশিষ্ট ব্যক্তিরা গভীর শোক এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

প্রয়াত শিক্ষাবিদ আজিজুর রহমান ও মাহাতাবুন নাহারের বড় ছেলে ওয়ালিউর রহমান রেজার জন্ম ১৯৪০ সালে রংপুরে মাতুলালয়ে। ১৯৭০ ও ১৯৭৩ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন রেজা। রাজনীতির পাশাপাশি তৎকালীন গাইবান্ধা মহকুমার দৈনিক ইত্তেফাকের প্রতিনিধি হিসেবে সাংবাদিকতায় ও গাইবান্ধা প্রেস ক্লাব প্রতিষ্ঠায় এবং মুক্তিযুদ্ধের সময় ১১ ও ৬ নম্বর সেক্টরে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। মুজিবনগর সরকারের উপদেষ্টা হিসেবে ৬ নম্বর সেক্টরে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৭২ সালে গণপরিষদের সদস্য হিসেবে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে বাংলাদেশের সংবিধান অনুমোদনে স্বাক্ষর করেন রেজা। কয়েক বছর ধরে রাজনীতি ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস নিয়ে লেখালেখি করছিলেন তিনি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা