kalerkantho

বুধবার । ২০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৩ জুন ২০২০। ১০ শাওয়াল ১৪৪১

করোনা পরিস্থিতি

পিপিইর দাবিতে রামেক হাসপাতালে ইন্টার্নদের ধর্মঘট

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী   

২০ মার্চ, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



করোনাভাইরাসের কারণে ব্যক্তিগত প্রতিরক্ষামূলক সরঞ্জামের (পিপিই) দাবিতে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে শিক্ষানবিশ (ইন্টার্ন) চিকিত্সকরা ধর্মঘট করেছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে ধর্মঘট শুরু করেন তাঁরা। এরপর তাঁরা জরুরি বিভাগের সামনে অবস্থান নেন। পরে কর্তৃপক্ষের আশ্বাসের পরিপ্রেক্ষিতে সকাল ১১টার দিকে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

শিক্ষানবিশ চিকিত্সকরা ধর্মঘটে যাওয়ার পর হাসপাতালে রোগীদের মধ্যে করোনা আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। অনেক রোগী ছুটি নিয়ে বাড়ি চলে যেতে শুরু করেন। হাসপাতালে করোনা রোগী পাওয়া গেছে—এমন গুজব ছড়িয়ে পড়ার কারণে অনেক স্বজন তাদের রোগীকে বাড়িতে বা বাইরের ক্লিনিকে নিয়ে যেতে শুরু করে। পরে অবশ্য পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

চিকিৎসানবিশ চিকিত্সকদের দাবি, চিকিৎসা দিতে গিয়ে তাঁরা নিজেরাও করোনা ভীতিতে পড়েছেন। কিন্তু করোনা প্রতিরোধমূলক কোনো সরঞ্জাম এখন পর্যন্ত চিকিত্সকদের দেওয়া হয়নি। হাসপাতালের শিক্ষানবিশ চিকিত্সকদের সংগঠন ইন্টার্ন চিকিত্সক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হাসান সাংবাদিকদের বলেন, ‘চিকিত্সকদের করোনা প্রতিরোধের ব্যবস্থা নিয়ে কর্তৃপক্ষ উদাসীন ছিল। তাই আমরা বাধ্য হয়ে ধর্মঘট শুরু করি। আমাদের দাবি মেনে নেওয়ায় আমরা কাজে ফিরে যাই।’

হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. কামাল হোসেন জানান, ধর্মঘট কিছু সময় চলছিল। তবে তাঁদের আশ্বাসে শিক্ষানবিশ চিকিত্সকরা কাজে যোগদান করেছেন।

জেলার দুর্গাপুর উপজেলার আমগাছী গ্রাম থেকে আসা রোগী শাপলা খাতুনের অভিভাবক দুলাল হোসেন বলেন, ‘অনেক রোগী ছুটি নিয়ে বাড়ি চলে যেতে থাকেন। আমিও আমার রোগী নিয়ে বাড়ি চলে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেই। পরে খোঁজখবর নিয়ে জানতে পারি—হাসপাতালে কোনো করোনা রোগী নেই। এরপর রোগীকে আর বাইরে নিয়ে যাইনি।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা