kalerkantho

মঙ্গলবার । ৫ ফাল্গুন ১৪২৬ । ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৩ জমাদিউস সানি ১৪৪১

উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অভিযোগ

দুর্গাপুরে প্রকল্পের ১০০ মে. টন গম আত্মসাৎ

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী   

২৮ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দুর্গাপুরে প্রকল্পের ১০০ মে. টন গম আত্মসাৎ

রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলায় আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয় গড়ে তোলার নামে টিআর প্রকল্পের ১০০ মেট্রিক টন গম আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলামের বিরুদ্ধে। এ ছাড়া নৈশপ্রহরী নিয়োগ নিয়ে তাঁর বিরুদ্ধে কোটি টাকা বাণিজ্যের অভিযোগ উঠেছে। গত ২২ জানুয়ারি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে উপজেলার পাঁচ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও দুর্গাপুর পৌরসভার মেয়র স্বাক্ষরিত একটি অভিযোগ দুর্নীতি দমন কমিশনসহ (দুদক) বিভিন্ন দপ্তরে পাঠানো হয়েছে।

অভিযোগকারীরা হলেন দুর্গাপুর পৌরসভার মেয়র তোফাজ্জল হোসেন, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান বানেছা বেগম, কিসমত গণকৈড় ইউপি চেয়ারম্যান আফসার আলী মোল্লা, জয়নগর ইউপি চেয়ারম্যান সমসের আলী, ঝালুকা ইউপি চেয়ারম্যান মোজাহার আলী মণ্ডল, দেলুয়াবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান রিয়াজুল ইসলাম ও পানানগর ইউপি চেয়ারম্যান আজাহার আলী।

অভিযোগে বলা হয়, উপজেলা পরিষদের পুকুরের রাস্তা দখল করে নজরুল ইসলাম তাঁর বাড়ি যাওয়ার রাস্তা করেছেন প্রকল্পের টাকায়। প্রভাব খাটিয়ে জাল সনদে তাঁর স্ত্রীকে দিয়েছেন দুর্গাপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে গ্রন্থাগারিক পদে চাকরি। উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয় স্থাপনের নামে ৪০ লাখ টাকার ১০০ মেট্রিক টন টিআরের গম বিক্রি করে ইট কিনলেও নিজের বাড়ি নির্মাণের কাজে লাগিয়েছেন তিনি। 

এ ছাড়া ২০১৪ সালে নজরুল ইসলাম চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর উপজেলার ১৬টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরি/নৈশপ্রহরী নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। সে সময় সাবেক সংসদ সদস্য আবদুল ওয়াদুদ দারা ও নজরুল ইসলাম চাকরিপ্রত্যাশীদের কাছ থেকে ১২-১৪ লাখ টাকা নিয়ে তাঁদের পছন্দমতো প্রার্থী নির্বাচন করেন।

অভিযোগে আরো বলা হয়, ২০১৮ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি ও ১৩ মে এবং ২০১৯ সালের ২০ এপ্রিল স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের অনুমতি ছাড়া সরকারি নীতিমালা অমান্য করে নজরুল ইসলাম বিদেশ ভ্রমণ করেন।

জানতে চাইলে নজরুল ইসলাম কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ করা হয়েছে, তার কোনোটির সত্যতা নেই। কিছু মহল আমার সুনাম ক্ষুণ্ন করার জন্য এসব অপপ্রচার চালাচ্ছে। আমি কোনো অনিয়ম করিনি।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা