kalerkantho

শনিবার । ২১ চৈত্র ১৪২৬। ৪ এপ্রিল ২০২০। ৯ শাবান ১৪৪১

চট্টগ্রামে পরিকল্পনামন্ত্রী

অ্যাপের মাধ্যমেই জানা যাবে জনসংখ্যার তথ্য

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

২৪ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, পরিসংখ্যান ব্যুরোর উদ্যোগে শিগগিরই একটি অ্যাপ চালু করা হবে। ওই অ্যাপের মাধ্যমে যে কেউ প্রতিদিন, প্রতি মিনিটে দেশের লোকসংখ্যা জানতে পারবে। এ লক্ষ্যে কাজ করা হচ্ছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম শহরের সার্কিট হাউসে ‘জনশুমারি ও গৃহগণনা ২০২১’ উপলক্ষে মতবিনিময়সভায় তিনি এসব তথ্য জানান। দেশব্যাপী জনশুমারির মূল গণনা আগামী বছরের ২ জানুয়ারি থেকে শুরু হয়ে ৮ জানুয়ারি পর্যন্ত চলবে।

এম এ মান্নান বলেন, ‘কেউ ভুলের ঊর্ধ্বে নয়। জনশুমারি ও গৃহগণনা করতে গিয়েও কিছু ভুল হয়। কিন্তু আমরা এবার খুব ভালোভাবে জনশুমারি ও গৃহগণনা করতে চাই। যাঁরা এ কাজে সম্পৃক্ত হবেন তাঁদের আগের চেয়ে চারগুণ বেশি সম্মানী ভাতা দেওয়া হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ বিষয়ে খুব আন্তরিক।’

তিনি আরো বলেন, ‘চলতি মুজিববর্ষের মধ্যেই আমরা জনশুমারির একটি সংখ্যা নিয়ে আসতে পারব। সুইডেন, নরওয়ে ও ফিনল্যান্ডে  প্রতিবছর জনশুমারি করা হয়। সেই ব্যবস্থা আমরাও নিয়ে আসব। অনেকে ক্যালেন্ডার ইয়ার অনুসরণ করতে বলেছেন। আমিও ক্যালেন্ডার ইয়ারের পক্ষে।’

বিশ্বব্যাংক, জাতিসংঘ, আইএমএফসহ আন্তর্জাতিক অনেক সংস্থা বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর উদ্ধৃতি দেয় জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমাদের পরিসংখ্যান ব্যুরো এখন বিশ্বমানের। আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলো স্বীকার করেছে, আমাদের ব্যুরোর তথ্য অনেক এগিয়েছে। এমনকি আইএমএফ তাদের সংখ্যার সঙ্গে আমাদের সংখ্যা মিলিয়ে দেখে অনেকটাই মিল পেয়েছে।’

অনুষ্ঠানে পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা সচিব সৌরেন্দ্র নাথ চক্রবর্তী বলেন, ‘ছয় মাসের বেশি সময় ধরে যাঁরা দেশের বাইরে অবস্থান করছেন তাঁদের এ শুমারির আওতায় প্রবাসী হিসেবে আনা হবে। এ ছাড়া এবার প্রথমবারের মতো জনগণনার পাশাপাশি গৃহগণনা করা হবে। তাই দেশের জনগণের সংখ্যাসহ গৃহের সংখ্যা জানা যাবে।’

প্রসঙ্গত, এবার ‘জনশুমারি ও গৃহগণনা ২০২১’ শীর্ষক প্রকল্পে প্রাক্কলিত ব্যয় নির্ধারিত হয়েছে এক হাজার ৭৬১ কোটি ৭৯ লাখ টাকা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা