kalerkantho

সোমবার । ২০ জানুয়ারি ২০২০। ৬ মাঘ ১৪২৬। ২৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

কর্মকর্তাদের ঘন ঘন বিদেশ সফরে বিরক্ত প্রধানমন্ত্রী

একনেকে ৯২৪১ কোটি টাকার ৭ প্রকল্প অনুমোদন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১১ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



কর্মকর্তাদের ঘন ঘন বিদেশ সফরে বিরক্ত প্রধানমন্ত্রী

সরকারি কর্মকর্তাদের বিদেশ সফর নিয়ে নিজের বিরক্তি প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় প্রধানমন্ত্রী সরকারি কর্মকর্তাদের ঘন ঘন বিদেশ সফর কমিয়ে আনার নির্দেশও দেন।

প্রধানমন্ত্রী তাঁর একান্ত নিজের আগ্রহে নেওয়া ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্পের উদাহরণ টেনে সভায় বলেছেন, বিদেশ ভ্রমণ খাতটি কেটে দেওয়ার কারণে সেই প্রকল্পটি একনেক সভায় আনা হয়নি। পরে যখন ওই প্রকল্পে বিদেশ ভ্রমণের খাতটি সংযোজন করা হয়, তখন প্রকল্পটি দ্রুত একনেক সভায় অনুমোদনের জন্য আনা হয়। ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করতে গিয়ে কেন কর্মকর্তাদের বিদেশ সফরের প্রয়োজন হবে তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন প্রধানমন্ত্রী।

রাজধানীর শেরেবাংলানগরে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের (এনইসি) সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত একনেক সভায় সরকারি কর্মকর্তাদের বিদেশ সফরের বিষয়টি উঠে আসে ‘পাকিস্তানের ইসলামাবাদে বাংলাদেশ চ্যান্সারি কমপ্লেক্স’ প্রকল্পের বর্ধিত মেয়াদ অনুমোদনের সময়। এই প্রকল্পটি ২০০৭ সালে ৩০ কোটি টাকা ব্যয়ে অনুমোদন পেলেও এখন পর্যন্ত ভবন নির্মাণের কাজ শেষ হয়নি। ভবন নির্মাণের কাজ শেষ না হলেও তিন দফায় সরকারি কর্মকর্তারা পাকিস্তান ভ্রমণ করেছেন। সেই ভ্রমণে শুধু সরকারি টাকা অপচয় হয়েছে; কিন্তু কাজ হয়নি।

সভায় পাকিস্তানের ইসলামাবাদে বাংলাদেশ চ্যান্সারি কমপ্লেক্স প্রকল্পটি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। দুইবার মেয়াদ বাড়িয়েও নানা জটিলতায় পাকিস্তানের ইসলামাবাদে বাংলাদেশ চ্যান্সারি ভবনের কাজ শেষ হয়নি। গতকাল তৃতীয় মেয়াদে প্রকল্পটির সময় আরো দুই বছর বাড়িয়ে ২০২১ সাল পর্যন্ত করা হয়েছে। আর ৩০ কোটি টাকার প্রকল্প ব্যয় বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮০ কোটি টাকা।

এই প্রকল্পে তিনবার সময় বাড়ানো নিয়ে প্রধানমন্ত্রী বিরক্ত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। একনেক সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে পরিকল্পনামন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, ‘সরকারি কর্মকর্তাদের ঘন ঘন বিদেশ সফরে প্রধানমন্ত্রী বিরক্ত।’

গতকালের সভায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর সম্প্রসারণ (প্রথম পর্যায়) প্রকল্পটির ব্যয় সংশোধিত আকারে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এই প্রকল্পটিও নির্ধারিত সময়ের মধ্যে শেষ করতে না পারায় প্রকল্পের খরচ বেড়েছে সাত হাজার ৭৮৯ কোটি টাকা। ২০১৬ সালে প্রকল্পটি অনুমোদনের সময় এর খরচ ধরা হয়েছিল ১৩ হাজার ৬১০ কোটি টাকা। সেটি এখন বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২১ হাজার ৩৯৯ কোটি টাকা। আর মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে ২০২২ সাল পর্যন্ত।

সংবাদ সম্মেলনে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, একনেক সভায় ৯ হাজার ২৪১ কোটি টাকা ব্যয়ে মোট সাতটি প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে খরচ হবে চার হাজার ৩১৫ কোটি টাকা। বাকি চার হাজার ৯২৬ কোটি টাকা উন্নয়ন সহযোগী সংস্থা জাইকা থেকে পাওয়া যাবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা