kalerkantho

বুধবার । ২২ জানুয়ারি ২০২০। ৮ মাঘ ১৪২৬। ২৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

খানজাহান আলী বিমানবন্দর দ্রুত নির্মাণের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

পিপিপি আইন সংশোধনের খসড়া অনুমোদন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১২ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



খুলনার খানজাহান আলী বিমানবন্দর দ্রুত নির্মাণ করার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল সোমবার মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠক শেষে অনির্ধারিত আলোচনায় তিনি এ নির্দেশ দেন বলে জানা গেছে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, লাভ-লোকসানের চিন্তা করলে হবে না। জনগণ যাতে দ্রুত সেবা পায় সে জন্যই সরকার কাজ করে। তাই বিমানবন্দরের কাজ দ্রুত শেষ করতে হবে।

মন্ত্রিসভা বৈঠকে অংশ নেওয়া একাধিক সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। বৈঠক সূত্র জানায়, মোংলা বন্দর, পায়রা বন্দর, গোপালগঞ্জ, পিরোজপুর—এসব এলাকার মানুষের দ্রুত চলাচলের জন্য একটি বিমানবন্দর অনস্বীকার্য বলে উল্লেখ করেছেন শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘এতগুলো গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা-প্রতিষ্ঠান ওই এলাকায় হচ্ছে। সেখানকার মানুষের জন্য একটা বিমানবন্দর থাকা জরুরি।’ মন্ত্রিসভার অন্য একটি সূত্র জানায়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খানজাহান আলী বিমানবন্দর নিয়ে অনেক আগ্রহী। এর আগেও এই বিমানবন্দরের কাজের অগ্রগতি নিয়ে তিনি কয়েকবার খোঁজ নিয়েছেন। বাগেরহাটের রামপালে নির্মিতব্য বিমানবন্দরটি স্থাপনে এখনো বড় কোনো অগ্রগতি নেই।

এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, প্রায় দুই যুগ আগে শেখ হাসিনা প্রথমবার সরকার গঠনের সময় ১৯৯৬ সালে ‘শর্ট টেক অব অ্যান্ড ল্যান্ডিং পোর্ট’ হিসেবে ওই অঞ্চলে একটি বিমানবন্দর চালুর কথা ছিল। সে সময়ে জমি অধিগ্রহণ করার পরও কাজ বন্ধ হয়ে যায়। দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় এসে ২০১১ সালে খানজাহান আলীর নামে একটি পূর্ণাঙ্গ বিমানবন্দর স্থাপনের প্রতিশ্রুতি দেন প্রধানমন্ত্রী। এরপর শেখ হাসিনা তৃতীয়বার সরকারে আসার পর ২০১৫ সালে একনেকে বিমানবন্দরটির প্রকল্প পাস হয়, খরচ ধরা হয়েছিল প্রায় ৫৫০ কোটি টাকা। ওই সময়ের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সরকার নিজেই বিমানবন্দরটিতে অর্থায়ন করার কথা। কাজ শেষ হওয়ার তারিখ নির্ধারিত হয়েছিল ২০১৮ সালের জুন মাস। কিন্তু একনেকে পাস হওয়ার দুই বছর পর সরকার সম্পূর্ণ অর্থায়ন থেকে সরে এসে পাবলিক-প্রাইভেট পার্টনারশিপের (পিপিপি) মাধ্যমে প্রকল্প বাস্তবায়নের নীতিগত সিদ্ধান্ত নেয়। কিন্তু সেটিও পরে আর এগোয়নি।

বেসরকারি বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক) চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মফিদুর রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করলে গতকাল রাতে কালের কণ্ঠকে তিনি বলেন, ‘পিপিপির মাধ্যমে খানজাহান আলী বিমানবন্দর নির্মাণ ভারতের একটি কম্পানির সঙ্গে হওয়ার কথা। কিন্তু তারা এখন আর এই প্রকল্পে আগ্রহী নয়।’ তিনি বলেন, ‘প্রকল্পটি আবারও একনেকে পাস করিয়ে সরকার নিজেই সম্পন্ন করবে।’

মন্ত্রিসভা বৈঠকে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল নিয়েও কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘বুলবুল আসার আগে সরকারের ব্যাপক প্রস্তুতি থাকায় ক্ষয়ক্ষতি কম হয়েছে।’ সেই সঙ্গে ঝড় থেকে বাঁচতে সুন্দরবন বড় ভূমিকা রেখেছে বলে প্রধানমন্ত্রী উল্লেখ করেছেন। এ সময় তিনি সারা দেশে বেশি বেশি গাছ লাগানোর ওপর গুরুত্বারোপ করেন এবং একই সঙ্গে ঝড় মোকাবেলায় যারা অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন তাঁদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

পিপিপি সংশোধন খসরা অনুমোদন : পাবলিক-প্রাইভেট পার্টনারশিপ (পিপিপি) আইন, ২০১৫-তে সরকার টু সরকার (জিটুজি) প্রকল্প অন্তর্ভুক্ত ছিল না। এ বিষয়টি অন্তর্ভুক্তসহ বেশ কয়েকটি সংশোধন এনে ‘বাংলাদেশ সরকারি-বেসরকারি অংশীদারিত্ব (সংশোধন) আইন, ২০১৯’-এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

গতকাল সোমবার সচিবালয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদসচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। তিনি জানান, ‘পলিসি ফর ইমপ্লিমেন্টিং পিপিপি প্রজেক্টস থ্রু গভর্নমেন্ট টু গর্ভমেন্ট পার্টনারশিপ, ২০১৭’-এর আওতায় জাপান, সিঙ্গাপুর, দক্ষিণ কোরিয়া ও দুবাইয়ের সঙ্গে সমঝোতা-সহযোগিতা স্মারক স্বাক্ষর করেছে বাংলাদেশ। এখন জিটুজি প্রকল্প গ্রহণের বিষয়টি আইনের আওতায় এলো। এদিকে সংশোধিত বিধান অনুযায়ী, এ আইনের অধীনে থাকা বোর্ড অব গভর্নরসের বছরে ছয়টি সভার পরিবর্তে একটি সভা অনুষ্ঠানের বিধান করা হয়েছে। এদিকে বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ, মুক্তিযোদ্ধা ও জাসদ নেতা মইন উদ্দীন খান বাদলের মৃত্যুতে শোক প্রস্তাব গৃহীত হয়েছে মন্ত্রিসভায়। গত ৭ নভেম্বর ভারতের একটি হাসপাতালে মারা যান চট্টগ্রাম-৮ আসনের তিনবারের এই সংসদ সদস্য।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা