kalerkantho

শুক্রবার । ২২ নভেম্বর ২০১৯। ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

রণদা প্রসাদ সাহার জন্মজয়ন্তী উদযাপন

মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি   

৯ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রখ্যাত দানবীর রণদা প্রসাদ সাহার ১২৩তম জন্মজয়ন্তী পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে গতকাল শুক্রবার টাঙ্গাইলের মির্জাপুর গ্রামে প্রার্থনাসভা, রণদা প্রসাদ সাহার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ, কবিতা আবৃত্তি, নৃত্য, সংগীত ও রচনা প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। এ ছাড়া বিকেলে গ্রামের রণদা নাটমন্দিরে অনুষ্ঠিত আলোচনাসভায় প্রধান অতিথি ছিলেন একুশে পদকপ্রাপ্ত নাট্যকার ও অভিনেতা মামুনুর রশীদ।

মামুনুর রশীদ বলেন, ‘বর্তমানে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের যে আচরণ সে আচরণ আমাদের মোটেও কাম্য নয়। শিক্ষা শুধুু সার্টিফিকেট বা বর্ণশিক্ষা নয়। শিক্ষার বাণী বুকে ধারণ করতে হবে। নারীদের অধিকার দিতে হবে। আর নারীশিক্ষার কথা বলতে গেলে বেগম রোকেয়ার সঙ্গে দানবীর রণদা প্রসাদ সাহার কথা বলতে হবে। দানবীর রণদা প্রসাদ সাহার প্রতিষ্ঠিত ভারতেশ্বরী হোমস, কুমুদিনী নার্সিং স্কুল, কুমুদিনী কলেজ—এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নারীশিক্ষার অগ্রদূত হিসেবে আজও আপন মহিমায় দাঁড়িয়ে আছে।’

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে আরো আলোচনা করেন কুমুদিনী কল্যাণ সংস্থার পরিচালক শ্রীমতি সাহা, পরিচালক মহাবীর প্রতীক, মির্জাপুর হরিসভার সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা বিমান বিহারী বোস, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের সাবেক কমান্ডার সরকার হিতেষ চন্দ্র পুলক, মির্জাপুর বাজার বণিক সমিতির সভাপতি গোলাম ফারুক সিদ্দিকী, উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি আবু আহমেদ, পৌর বিএনপির সভাপতি হযরত আলী মিঞা, অনুষ্ঠান উদযাপন কমিটির সদস্যসচিব সাংবাদিক নিরঞ্জন পাল প্রমুখ। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক দে সুধীর চন্দ্র। পরে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ী শিশু-কিশোরদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

১৮৯৬ সালে কুমুদিনী সাহা ও দেবেন্দ্র নাথ সাহার ঘর আলো করে জন্ম নেন রণদা প্রসাদ সাহা। তাঁর গ্রামের বাড়ি টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার লৌহজং নদীর তীরঘেঁষা মির্জাপুর গ্রামে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা