kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ নভেম্বর ২০১৯। ২৯ কার্তিক ১৪২৬। ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা

পৃথক স্থানে শিশুসহ চারজনকে ধর্ষণ ও ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৪ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা

প্রতীকী ছবি

যশোরের অভয়নগরে এক তরুণীকে বিয়ের প্রতিশ্রুতিতে ডেকে নিয়ে ধর্ষণের অভিযোগে এক যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। নওগাঁর সাপাহারে মাদরাসার ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে এক তরুণকে পিটুনি দিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করেছে এলাকাবাসী। মানিকগঞ্জের সিংগাইরে বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে দুই যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। নওগাঁর ধামইরহাট ও বাগেরহাটের শরণখোলায় দুই শিশুকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :

অভয়নগর (যশোর) : ধর্ষণে অভিযুক্ত নাজিম মোল্যা (৩৫) অভয়নগর উপজেলার সিদ্ধিপাশা ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি ও সোনাতলা গ্রামের মৃত নওশের মোল্যার ছেলে। শনিবার তাঁর বিরুদ্ধে অভয়নগর থানায় মামলা করা হয়। নির্যাতিত তরুণী জানান, তাঁর বাড়ি বাগেরহাটের রামপাল উপজেলায়। মোবাইল ফোনে তাঁর সঙ্গে নাজিমের পরিচয় ও প্রেম হয়। গত বুধবার তাঁকে বাগেরহাট থেকে বিয়ে করার কথা বলে অভয়নগরের সোনাতলা গ্রামের সাহিদুল সরদারের বাড়িতে নিয়ে ধর্ষণ করেন নাজিম। বৃহস্পতিবার গ্রামবাসী তাঁকে উদ্ধার করে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে। তবে নাজিম তাঁর জাতীয় পরিচয়পত্রসহ মানিব্যাগ ফেলে পালিয়ে যান।

অভয়নগর উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক তালিম হোসেন জানান, ঘটনা জানার পর নাজিম মোল্যাকে তাঁর পদ ও দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। স্থানীয় আমতলা পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই গৌতম মণ্ডল বলেন, শনিবার মেয়েটির ডাক্তারি পরীক্ষা হয়েছে।

সাপাহার (নওগাঁ) : গত শনিবার সন্ধ্যার পর সাপাহার উপজেলার সহদলপাড়া গ্রামের একটি আমবাগানে ঘটনাটি ঘটে। ধর্ষণে অভিযুক্ত মোর্শেদ আলী (২২) সহদলপাড়ার ছলিম উদ্দীনের ছেলে। এ ঘটনায় ওই দিন রাতে সাপাহার থানায় একটি ধর্ষণ মামলা করা হয়। মোরর্শেদ পুলিশি পাহারায় সাপাহার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, মাদরাসার ছাত্রীটি শনিবার বিকেলে শিক্ষকের কাছে প্রাইভেট পড়তে মাদরাসায় যায়। শিক্ষক না আসায় অপেক্ষার পর সন্ধ্যায় সে বাড়ির উদ্দেশে রওনা দেয়। পথে মোর্শেদ জোর করে মেয়েটিকে আমবাগানে নিয়ে ধর্ষণ করেন। মেয়েটির চিৎকারে লোকজন গিয়ে মোরর্শেদকে আটক করে পিটুনি দেয়।

সিংগাইর (মানিকগঞ্জ) : কিশোরীকে শনিবার ধর্ষণ ও এতে সহযোগিতার অভিযোগে ওই রাতে গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন যথাক্রমে সিংগাইর উপজেলার বায়রা ইউনিয়নের জজবাড়ী এলাকার মোশারফ ওরফে লাদেন মোল্লার ছেলে রবিন (২২) ও নয়াপাড়া আদর্শ গ্রামের মৃত সফি দেওয়ানের ছেলে মো. সালাম (৩৭)। ধর্ষণে অভিযুক্ত আরেক আসামি বাইমাইল আমতলা গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে শাহীনুর রহমান (৩৩) পলাতক। এ ঘটনায় কিশোরীর বাবা মামলা করেছেন।

পুলিশ জানায়, শনিবার সকালে বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয় কিশোরীটি। সন্ধ্যায় তারা খবর পায় রবিন ও শাহীনুর কিশোরীকে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে ধর্ষণ করেছেন। রাতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে কিশোরীকে উদ্ধার এবং রবিন ও সালামকে আটক করে।

ধামইরহাট (নওগাঁ) : ধামইরহাট থানায় মামলা সূত্রে জানা গেছে, শনিবার বিকেলে উপজেলার উমার ইউনিয়নে মানসিক প্রতিবন্ধী শিশুকে (১৪) ধর্ষণের চেষ্টা করেন সিরাজুল ইসলাম (৩৬)। সিরাজুল দুর্গাপুর গ্রামের মৃত মনছের মণ্ডলের ছেলে ও স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. নুরুজ্জামান হোসেনের ভাই। এ ঘটনায় শিশুটির ভাই মামলা করেছেন।

ধামইরহাট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসক ডা. আরাফাত হোসেন বলেন, ‘প্রাথমিক পরীক্ষায় মেয়েটিকে ধর্ষণ বা ধর্ষণের চেষ্টার আলামত পাওয়া যায়নি। তার পরও আমরা তাকে জেলা হাসপাতালে রেফার্ড করেছি।’

শরণখোলা (বাগেরহাট) : শরণখোলায় শুক্রবার দুপুরে স্কুলছাত্রীকে (৯) ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে শনিবার রাতে থানায় মামলা করেন ছাত্রীটির ফুফু। আসামি সাব্বির (২৫) উপজেলার মালিয়া রাজাপুর গ্রামের আবুল তালুকদারের ছেলে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা