kalerkantho

বুধবার । ১৩ নভেম্বর ২০১৯। ২৮ কার্তিক ১৪২৬। ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

হবিগঞ্জে শিক্ষকের বেত্রাঘাত

শেষ পর্যন্ত ফেলে দিতে হলো শিশু হাবিবার চোখটি

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি   

১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



হবিগঞ্জে শিক্ষকের বেত্রাঘাতে শিশু হাবিবার ক্ষতিগ্রস্ত বাঁ চোখটি শেষ পর্যন্ত অস্ত্রোপচার করে ফেলে দিতে হয়েছে। গতকাল সোমবার ঢাকায় জাতীয় চক্ষুবিজ্ঞান ইনস্টিটিউট হাসপাতালে দুপুরে এই অস্ত্রোপচার করা হয়। মেয়ের চোখ হারানোর ঘটনায় শিশুটির বাবা দুবাইপ্রবাসী শাহিন মিয়া মোবাইল ফোনে কান্নাকাটি করে বলছেন, তিনি নতুন করে মেয়ের চোখ প্রতিস্থাপন করতে চান। যত টাকা লাগে খরচ করতে রাজি আছেন। এ ঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষক নিরঞ্জন দাস বলেছেন, চোখ পাওয়া গেলে তিনি এর যাবতীয় খরচ বহন করবেন।

চোখ হারানো হাবিবা (৮) সদর উপজেলার যাদবপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী। সে যাদবপুর গ্রামের দুবাইপ্রবাসী শাহিন মিয়ার মেয়ে।

অভিযুক্ত সহকারী শিক্ষক নিরঞ্জন দাস গত রবিবার দুপুরে দ্বিতীয় শ্রেণির পাঠদান চলাকালে দরজার সামনে তৃতীয় শ্রেণির কিছু শিক্ষার্থী হৈচৈ করছিল। একপর্যায়ে তিনি হাতের বেত ছুড়ে মারলে তা হাবিবার চোখে লাগে। এতে হাবিবার চোখে রক্তক্ষরণ হয়। এ সময় বিদ্যালয়ের অন্যান্য শিক্ষক ও স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে হবিগঞ্জ আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে তাকে ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা