kalerkantho

তিতাসের মৃত্যু

কালিয়ায় দুটি তদন্তদলের শুনানি, বিক্ষোভ

নড়াইল প্রতিনিধি   

২ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের এক যুগ্ম সচিবের জন্য তিন ঘণ্টা ফেরি বন্ধ রাখায় বিনা চিকিৎসায় নড়াইলের কালিয়ার স্কুলছাত্র তিতাসের বিনা চিকিৎসায় মৃত্যুর ঘটনা তদন্তে দুটি কমিটি গতকাল বৃহস্পতিবার তাদের কাজ শুরু করেছে। সকালে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ ও দুপুরে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের তদন্ত কমিটি তিতাসের পরিবারের সদস্য ও স্বজনদের শুনানি গ্রহণ করে। এদিকে তদন্ত কমিটির উপস্থিতির খবর পেয়ে বিভিন্ন বিদ্যালয়ের ছাত্ররা তাদের সহপাঠীকে বিনা চিকিৎসায় মৃত্যুর জন্য দায়ীদের শাস্তির দাবিতে কালিয়া সরকারি পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সামনে অবস্থান কর্মসূচি ও বিক্ষোভ করেছে। পরে কালিয়ার ইউএনওর কাছে প্রধানমন্ত্রী বরাবর লেখা স্মারকলিপি পেশ করে তারা।

সকাল ১০টার দিকে অতিরিক্ত সচিব সঞ্জয় কুমার বণিকের নেতৃত্বে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের গঠিত তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি কালিয়ার ইউএনওর কার্যালয়ে পৌঁছলে সেখানে স্থানীয় লোকজনের ভিড় জমে যায়। সেখানে তিতাসের মা সোনামনি ঘোষ ও বোন তনিষা ঘোষসহ ওই রাতে কাঁঠালবাড়ি ফেরিঘাটে তিতাসের সঙ্গে অ্যাম্বুল্যান্সে থাকা স্বজনরা উপস্থিত হয়। তদন্ত কমিটি অ্যাম্বুল্যান্সে থাকা চিকিৎসক ও চালক এবং স্থানীয় বিভিন্ন ব্যক্তির সাক্ষ্য গ্রহণ করে। এ সময় সঞ্জয় কুমার বণিক বলেন, ‘আমরা তদন্তকাজ চালিয়ে যাচ্ছি। শুনানি শেষে যাচাই-বাছাই করে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেব।’ এরপর দুপুর ২টায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ গঠিত অতিরিক্ত সচিব মো. রেজাউল আহসানের নেতৃত্বে গঠিত তিন সদস্যের তদন্ত কমিটিও একইভাবে তিতাসের স্বজনদের শুনানি গ্রহণ করে।

নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় এ ঘটনা তদন্তে গত বুধবার কমিটি পুনর্গঠন করে।

গত ২৪ জুলাই তিতাস সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হলে প্রথমে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাঁকে উন্নত চিকিৎসার জন্য চিকিৎসকরা ঢাকায় নেওয়ার পরামর্শ দেন। পরদিন ২৫ জুলাই তাকে ঢাকায় নেওয়ার পথে রাত ৮টায় কাঁঠালবাড়ি ১ নম্বর ফেরিঘাটে পৌঁছালে তারা জানতে পারে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের একজন যুগ্ম সচিবের অপেক্ষায় ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে। তিতাসের স্বজনরা তার আশঙ্কাজনক অবস্থার কথা জানিয়ে সেখানকার আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীসহ বিভিন্ন মহলে ধরনা দিয়েও ফেরি চালুর ব্যবস্থা করাতে ব্যর্থ হয়। পরে রাত ১১টার দিকে ওই যুগ্ম সচিবের গাড়িটি আসার পর ফেরি চলাচল শুরু হয়। কিন্তু ফেরি পার না হতেই তিতাস বিনা চিকিৎসায় মারা যায়।

মন্তব্য