kalerkantho

সোমবার । ১৪ অক্টোবর ২০১৯। ২৯ আশ্বিন ১৪২৬। ১৪ সফর ১৪৪১       

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্যানেল নির্বাচিত

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে আজ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

১ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



তিন সদস্যের উপাচার্য প্যানেল নির্বাচন করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরাম সিনেট। অন্য প্যানেল না থাকায় আওয়ামী লীগপন্থী শিক্ষকদের উত্থাপিত প্যানেলই নির্বাচিত হয়েছে। প্যানেলটি রাষ্ট্রপতির কাছে উত্থাপনের জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে আজ। এই প্যানেল থেকেই রাষ্ট্রপতি আগামী চার বছরের জন্য উপাচার্য মনোনীত করবেন।

গতকাল বুধবার বিকেল সাড়ে ৩টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে বিশেষ সিনেট অধিবেশনে প্যানেলটি চূড়ান্ত হয়। তবে তিনটি কারণ দেখিয়ে বিএনপি-জামায়াতপন্থী সিনেট সদস্যরা নির্বাচনে অংশ নেননি।

অধিবেশনে ১০৫ জন সিনেট সদস্যের মধ্যে ৯৩ জন উপস্থিত ছিলেন। শুরুতেই আওয়ামী লীগপন্থী শিক্ষকদের নীল দলের পক্ষ থেকে তিনজনের প্যানেল উত্থাপন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলাম। প্রস্তাবটি সমর্থন করেন সিনেটে রেজিস্টার্ড গ্র্যাজুয়েট প্রতিনিধি বাহালুল মজনুন চুন্নু। অন্য কোনো প্যানেল না থাকায় নীল দলের তিন শিক্ষকের নামই চূড়ান্ত করেন সিনেট সদস্যরা। তবে নীল দলের সভায় ভোটাভুটিতে অধ্যাপক সামাদ বাকী দুইজনের থেকে এগিয়ে থাকার পরও বর্তমান উপাচার্যের নাম আগে প্রস্তাব করায় আপত্তি তোলেন নীল দলের সাবেক আহ্বায়ক অধ্যাপক আব্দুল আজিজ। তবে তাঁকে কথা বলার সুযোগ না দিয়েই সভা শেষ করেন উপাচার্য। একাধিক সিনেট সদস্য কালের কণ্ঠকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

নির্বাচিত শিক্ষকরা হলেন—বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক আখতারুজ্জামান, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক মুহাম্মদ সামাদ ও শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক এ এস এম মাকসুদ কামাল।

সাদা দলের অধিবেশন বর্জন

উপাচার্য প্যানেল নির্বাচনের বিশেষ সিনেট অধিবেশন বর্জন করে বিএনপি-জামায়াতপন্থী শিক্ষকদের সংগঠন সাদা দল। দলটির তিনজন সিনেট সদস্য রয়েছেন। দলটির আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. এ বি এম ওবায়দুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা ভিসি প্যানেল নির্বাচন বর্জন করেছি। কারণ, সিনেটে শিক্ষক প্রতিনিধি নির্বাচনে আওয়ামীপন্থী নীল দলের দুটি ও বিএনপিপন্থী সাদা দলের প্যানেল অংশ নেয়। কিন্তু জোরপূর্বক নীল দলের একটি প্যানেলকে বাদ দেওয়া হয় যা তারা করতে পারে না।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা