kalerkantho

সোমবার। ১৭ জুন ২০১৯। ৩ আষাঢ় ১৪২৬। ১৩ শাওয়াল ১৪৪০

ইশতেহার দিয়েছে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীরা

বহিরাগতদের উচ্ছেদের আশ্বাস

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৮ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাহিরাগতদের তাড়িয়ে অবৈধ দখলদারির অবসান ও সিট সংকট কাটানোর আশ্বাস দিয়ে ডাকসু নির্বাচনের ইশতেহার ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ। এ ছাড়া বাণিজ্যিক সান্ধ্য কোর্স বন্ধ, গণরুম প্রথা বাতিল ও প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদের বাধ্যতামূলক রাজনীতির চর্চা বন্ধ, খাবারের মানোন্নয়ন, সাংস্কৃতিক চর্চা ও খেলাধুলা বৃদ্ধির আশ্বাস দিয়েছে তারা। গতকাল বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে এক সংবাদ সম্মেলনে এই ইশতেহার ঘোষণা করেন প্যানেলের সহসভাপতি প্রার্থী নুরুল হক নূর। এ সময় জিএস প্রার্থী রাশেদ খান, এজিএস প্রার্থী ফারুক হাসানসহ অন্য প্রার্থীরাও উপস্থিত ছিলেন। সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কার আন্দোলনকে ঘিরে এই প্লাটফর্ম গড়ে ওঠে।

ইশতেহার ঘোষণায় নুরুল হক নূর বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত ইতিহাস শিক্ষার্থীদের মাঝে ছড়িয়ে দিতে বিশ্ববিদ্যালয়ে লিবারেশন ওয়ার স্টাডিজ সেন্টার প্রতিষ্ঠায় উদ্যোগ, হলগুলোতে বহিরাগত ও অছাত্রদের বিতাড়িত করে প্রথম বর্ষ থেকেই শিক্ষার্থীদের বৈধ সিট প্রাপ্তির উদ্যোগ, গেস্টরুম ও গণরুমে আবাসন ও জোরপূর্বক রাজনৈতিক কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ সম্পূর্ণরূপে বিলোপ করা হবে। তিনি বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাফেটেরিয়া ও ক্যান্টিনে খাবারের গুণগত মান নিশ্চিত করা ও ন্যায্যমূল্যে স্বাস্থ্যকর ও পুষ্টিগুণসমৃদ্ধ খাবার নিশ্চিত, ক্যান্টিন, ক্যাফেটেরিয়া, ডাইনিং ও দোকানে খাবারের মান যাচাইয়ে খাদ্যমান নিশ্চিত করতে পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব পরিবহন ও রুটের সংখ্যা বৃদ্ধি ও পরিবহন সংক্রান্ত খাতে বার্ষিক বাজেটের ন্যূনতম ২ শতাংশ বরাদ্দ রাখার ব্যবস্থা করা হবে।

প্রস্তাবে আরো রয়েছে—লাইব্রেরির সময়সূচির সঙ্গে তাল মিলিয়ে বাসের সময় নির্ধারণ, বাসে ডিজিটাল ও ওয়াইফাই সেবা, বহিরাগত যান চলাচলে নিয়ন্ত্রণ, ক্যাম্পাসে রিকশাভাড়া নির্ধারণ, বিশেষ পরিবহন সার্ভিস চালু করার উদ্যোগ ও পরিবেশের উন্নয়নের স্বার্থে গ্রিন ক্যাম্পাস কর্মসূচির উদ্যোগ।

মন্তব্য