kalerkantho

শুক্রবার  । ১৮ অক্টোবর ২০১৯। ২ কাতির্ক ১৪২৬। ১৮ সফর ১৪৪১              

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় দিবসে নানা আয়োজন

জাবি প্রতিনিধি   

১৩ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম বলেছেন, ‘বাঙালির একটি উন্নয়ন প্রকল্প তা-ও একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য, স্বাধীনতার পর আমরা কখনোই এমনটি ভাবতে পারিনি, তবে এখন ভাবছি।’ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়কে মডেল বিশ্ববিদ্যালয়ে রূপান্তর করার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বরাদ্দকৃত অর্থের কথা বলতে গিয়ে গতকাল শনিবার তিনি এ কথা বলেন। দিনব্যাপী বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে গতকাল জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও বিশ্ববিদ্যালয় দিবস পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজনেস স্টাডিজ অনুষদ চত্বরে জাতীয় পতাকা ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পতাকা উত্তোলন করেন জাবি উপচার্য।

অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম বলেন, ‘আমরা সবাই মিলে এই বিশ্ববিদ্যালয়কে আরো এগিয়ে নিতে যেতে চাই। আর সে লক্ষ্যে আমরা কাজ শুরু করে দিয়েছি। অসমাপ্ত যত কাজ রয়েছে সেগুলো এবং প্রয়োজনীয় যেসব স্থাপনা দরকার সেগুলো শেষ করাই এখন আমাদের মূল লক্ষ্য। আসুন সবাই মিলে এই বিশ্ববিদ্যালয়কে অসাধারণ একটি জায়গায় নিয়ে যাই।’

ড. ফারজানা ইসলাম বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ে এত কষ্ট করে যেসব ছেলে-মেয়ে পড়তে আসে তারা সবাই সুস্থ থাকবে, নেশামুক্ত থাকবে সেই দিকটিতেও আমাদের সবাইকে খেয়াল রাখতে হবে।’

জাবি উপাচার্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ছেলে-মেয়েদের জন্য এক হাজার আসনবিশিষ্ট পৃথক ছয়টি হল, গবেষকদের জন্য একটি অতিথিশালা, একটি ছয়তলা পাঠাগার, চার হাজার আসনবিশিষ্ট একটি পরীক্ষাকেন্দ্র, একটি লেকচার থিয়েটার, সব সুবিধাসম্পন্ন একটি স্পোর্টস কমপ্লেক্স, ১০ তলা প্রশাসনিক ভবন ও শিক্ষক কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য আবাসিক ভবন নির্মাণ এবং অডিটরিয়াম ও মুক্তমঞ্চ পুনর্নির্মাণের কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. আমির হোসেন (প্রশাসন), কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক শেখ মো. মনজুরুল হক, বিভিন্ন অনুষদের ডিন, সিন্ডিকেট ও সিনেট সদস্য, রেজিস্ট্রার, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ও বর্তমান শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারী।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা