kalerkantho

বুধবার । ২১ আগস্ট ২০১৯। ৬ ভাদ্র ১৪২৬। ১৯ জিলহজ ১৪৪০

নারীর এইডসের লক্ষণ

৩ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নারীর এইডসের লক্ষণ

নারী কিংবা পুরুষের ক্ষেত্রে এইডসে আক্রান্ত হওয়ার লক্ষণ প্রায় একই। এর পরও কিছু উপসর্গ আছে, যেগুলো শুধু নারীদের ক্ষেত্রেই দেখা যায়। এসব ‘ভিন্ন’ উপসর্গ নিয়েই আজকের টিপস। সঙ্গে সাধারণ উপসর্গগুলোও তুলে ধরা হলো—

লিম্ফ নোড স্ফীত হয়ে ওঠে

গলায়, মাথার পেছনে, কুঁচকিতে এবং বগলে থাকে লিম্ফ নোড। দেহের রোগ প্রতিরোধী ক্ষমতার অংশ হিসেবে এসব গ্রন্থিতে জমা থাকে ইমিউন কোষ। এইচআইভি আক্রমণের পর রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা কমতে থাকে। তখন এসব গ্রন্থি স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি স্ফীত হয়ে ওঠে।

সব সময় পেটে সমস্যা

যদি পাকস্থলী সব সময় ভরা আছে মনে হয় কিংবা পেটে সমস্যা থেকেই যায়, তাহলে চিন্তার বিষয়। পেটে ক্রমাগত অসুবিধা হতে থাকলে প্রয়োজনীয় রক্ত পরীক্ষা সেরে ফেলা উচিত।

পিরিয়ডে পরিবর্তন

নারীদের মাসিকের চক্রে হঠাৎ পরিবর্তন ঘটলে সাধারণত গাইনোকোলজির সমস্যা বলেই ধরে নেওয়া হয়। এ ঘটনা কিন্তু এইডসের সংক্রমণেও ঘটে। যদি কোনোভাবেই এ সমস্যা দূর না হয়, তবে এইডসের পরীক্ষা করাই ভালো।

দেহের যেকোনো স্থানে র‌্যাশ

অ্যালার্জিঘটিত কারণে বা এমনিতেই ত্বকে র‌্যাশ ওঠে। কিন্তু এইচআইভির ক্ষেত্রে এটা কিন্তু সাধারণ এক লক্ষণ। তবে এইডসের ক্ষেত্রে তা ভিন্ন ধরনের হয়ে থাকে এবং চুলকানি নাও থাকতে পারে।

অকারণে ওজন হ্রাস

হয়তো আপনি ওজন কমানোর কোনো চেষ্টাই করছেন না। জীবনযাপন স্বাভাবিক, কিন্তু অজানা কারণে ওজন কমছে। এইচআইভির আক্রমণে ক্ষুধা নষ্ট হয় এবং দেহ পুষ্টি উপাদান গ্রহণ করতে পারে না। ফলে ওজন কমতে থাকে।

ঘুম ঘুম ভাব

অবসাদ কিংবা ক্লান্তির কারণে মাঝেমধ্যে ঘুম ঘুম লাগতে পারে। কিন্তু একটানা পুরো দিন ধরে ঝিমানো এইডসের লক্ষণ হতে পারে। আবার রাতে ঘুম না হলে পরদিন এমন অবস্থা থাকবে। কিন্তু যথেষ্ট বিশ্রামের পরও ঝিমুনিভাব দীর্ঘদিন ধরে চলতে থাকলে এইচআইভি সংক্রমণের আশঙ্কা উড়িয়ে দেওয়া যায় না।

জ্বর জ্বর ভাব

এইচআইভি সংক্রমণের প্রাথমিক অবস্থায় সব সময় তাপমাত্রা বেশি বলে মনে হতে পারে। জ্বর জ্বর ভাব থাকলে তাই পরীক্ষা করিয়ে নেওয়া উচিত। দেহের কাছে অপরিচিত মনে হয় এমন কোনো উপাদান পেলেই যুদ্ধ করে রোগ প্রতিরোধী ক্ষমতা। তারই লক্ষণ জ্বর।

টাইমস অব ইন্ডিয়া অবলম্বনে সাকিব সিকান্দার

মন্তব্য