kalerkantho

রবিবার । ২০ অক্টোবর ২০১৯। ৪ কাতির্ক ১৪২৬। ২০ সফর ১৪৪১                

ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র শনাক্ত করছে পুলিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৪ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে রাজধানী ঢাকাসহ সারা দেশে ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র শনাক্ত করে এর তালিকা করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে মাঠপর্যায়ের পুলিশ কর্মকর্তাদের। পুলিশ সদর দপ্তর থেকে ৬৪ জেলা পুলিশ সুপার ও আটটি মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনারসহ বিভাগীয় প্রধানদের কাছে এই নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে। ওই নির্দেশনা অনুযায়ী, ঝুঁকির ধরন অনুযায়ী কেন্দ্রগুলোকে তিনটি শ্রেণিতে ভাগ করছে পুলিশ। পুলিশ সদর দপ্তরের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ‘রেড’, ‘ইয়োলো’ ও ‘গ্রিন’—এই তিন ধরন অনুযায়ী বেশি ঝুঁকি, কম ঝুঁকি এবং একেবারে কম ঝুঁকি বা স্বাভাবিক বোঝানো হবে। এই চিহ্ন বা ধরন অনুযায়ী নির্বাচনের সময় নিরাপত্তাব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এ ছাড়া নির্বাচন কমিশনকেও এসব কেন্দ্রের ব্যাপারে তথ্য সরবরাহ করা হবে।

সূত্র জানায়, নির্বাচনের সময় নানা বিষয় বিবেচনায় নিয়ে কখনো ঝুঁকিপূর্ণ বা অধিক গুরুত্বপূর্ণ, কম ঝুঁকিপূর্ণ বা কম গুরুত্বপূর্ণ এবং স্বাভাবিক ক্যাটাগরিতে কেন্দ্রগুলো ভাগ করা হয়। এসব ক্ষেত্রে কেন্দ্রের অবস্থান, যোগাযোগ ব্যবস্থা, প্রভাব বিস্তারের সম্ভাব্যতা ও প্রার্থীদের নিজ নিজ এলাকার কেন্দ্রগুলো বিবেচনায় আনা হয়। কারণ, কোনো প্রার্থীর নিজ এলাকার কেন্দ্রে প্রভাব বিস্তারের মাধ্যমে প্রতিদ্বন্দ্বী সমর্থকদের কোণঠাসা করার আশঙ্কা থাকে। এ কারণে এসব বিষয় বিবেচনায় নিয়ে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়ে থাকে।

ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) সূত্র জানায়, গত সোমবার ডিএমপি হেডকোয়ার্টার্সে এক সভায় রাজধানীর ভেতরে ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র বাছাই করে ‘রেড’, ‘ইয়োলো’ ও ‘গ্রিন’—এই তিন ভাগে ভাগ করতে বলা হয়েছে। ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র বিবেচনায় সেসব এলাকায় পর্যাপ্তসংখ্যক আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হবে। একই সঙ্গে আসনগুলোতে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের বিশেষ করে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের অভ্যন্তরীণ কোন্দলও বিবেচনায় আনতে বলা হয়েছে।

এদিকে নির্বাচনে সব দলের অংশগ্রহণ নিশ্চিত হওয়ায় নতুন করে আর রাজনৈতিক মামলা ও ধরপাকড় নিষেধ করা হয়েছে। তবে যাদের বিরুদ্ধে আগে থেকেই মামলা রয়েছে বা যারা ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি, তাদের গ্রেপ্তারে কোনো বাধা থাকবে না। এ ছাড়া রাস্তায় সরাসরি কেউ বিশৃঙ্খলা করলে তাদের বিরুদ্ধেও আইনগত ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।

সদর দপ্তর সূত্র জানায়, চলতি সপ্তাহ থেকে সারা দেশে কেন্দ্র শনাক্তকরণ শুরু করেছে পুলিশ। আগামী সপ্তাহে নির্বাচনী নিরাপত্তামূলক পরিকল্পনা বা প্রস্তুতির ব্যাপারে নতুন কার্যক্রম শুরু হবে। তিন ধরনের কেন্দ্রের নিরাপত্তা পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে ভিন্ন কৌশল গ্রহণ করা হবে। নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনা অনুযায়ী কেন্দ্রগুলোতে নিরাপত্তাব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানায় সূত্র।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা