kalerkantho

বুধবার । ২৩ অক্টোবর ২০১৯। ৭ কাতির্ক ১৪২৬। ২৩ সফর ১৪৪১                 

আজ বসছে সংসদের ‘শেষ’ অধিবেশন

গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি বিল পাস হতে পারে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আজ রবিবার শুরু হতে যাচ্ছে দশম জাতীয় সংসদের ২২তম অধিবেশন। বিশেষ ও জরুরি প্রয়োজন বিষয়টি বাদ দিলে এটিই হতে পারে বর্তমান সংসদের শেষ অধিবেশন। 

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে বিকেল ৫টায় এই অধিবেশন বসবে। এই অধিবেশনে সড়ক পরিবহন, ডিজিটাল নিরাপত্তা ও গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ (আরপিও) সংশোধন বিলসহ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বিল পাসের সম্ভাবনা রয়েছে।

সংসদ সচিবালয় সূত্র জানিয়েছে, সংসদ অধিবেশনকে সামনে রেখে এরই মধ্যে সব প্রস্তুতি শেষ হয়েছে। সংসদ ভবন ও তার আশপাশে মিছিল-সমাবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। ওই এলাকায় নিরাপত্তাব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। সংসদ অধিবেশন শুরুর আগে বিকেল ৪টায় সংসদের কার্য উপদেষ্টা কমিটির বৈঠক ডাকা হয়েছে। কমিটির সদস্য সংসদ নেতা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদের উপস্থিতিতে ওই বৈঠকে সংসদ অধিবেশনের মেয়াদ ও কার্যসূচি চূড়ান্ত করা হবে। এটাই হতে পারে চলতি সংসদের শেষ অধিবেশন।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘এটাই এই সংসদের শেষ অধিবেশন, তা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। নির্বাচনকালীন সরকারের আমলে দুই মাসের মধ্যে সংসদ অধিবেশন বসার বাধ্যবাধকতা না থাকলেও সংসদ কার্যকর থাকছে। প্রয়োজনে যেকোনো সময় রাষ্ট্রপতি সংসদ অধিবেশন ডাকতে পারেন।’

সংসদ সচিবালয় সূত্রে জানা গেছে, সংসদে উত্থাপনের জন্য এ পর্যন্ত ১০টি নতুন বিল জমা পড়েছে। আর ১২টি বিল পাসের অপেক্ষায় রয়েছে। এর মধ্যে মধ্যে বহুল আলোচিত প্রস্তাবিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনও রয়েছে। এই অধিবেশনে পাস হতে পারে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোটগ্রহণের বিধান করে আরপিও সংশোধনী বিল। আর সড়ক পরিবহন আইনটি পাসের কথা আগেই সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। বিল সংসদে জমা হয়েছে।

সংসদে পাসের অপেক্ষায় থাকা অন্য বিলগুলো হচ্ছে কৃষি উন্নয়ন করপোরেশন, শিশু (সংশোধন), বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ, জাতীয় পরিকল্পনা উন্নয়ন একাডেমি, বস্ত্র, হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট, কর্মচারী কল্যাণ বোর্ড (সংশোধন), যৌতুক নিরোধ, জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ, সিলেট মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় ও সার (ব্যবস্থাপনা) সংশোধন বিল।

সংসদে উত্থাপনের জন্য জমা হওয়া অন্য বিলগুলো হলো ওজন ও পরিমাপ মানদণ্ড, প্রাণিসম্পদ গবেষণা ইনস্টিটিউট, মানসিক স্বাস্থ্য, পণ্য উৎপাদনশীল রাষ্ট্রায়ত্ত শিল্প প্রতিষ্ঠান শ্রমিক (চাকরি শর্তবলি), কৃষি বিপণন, মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্ট, জাতীয় দক্ষতা উন্নয়ন, হাউজিং অ্যান্ড রিচার্স ইনস্টিটিউট ও শ্রম আইন (সংশোধন)।

সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, এই অধিবেশন আগামী সংসদ নির্বাচনসহ জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন ইস্যুতে আলোচনা হতে পারে। তবে চলতি সংসদের দুজন সদস্য মারা যাওয়ায় অধিবেশনের প্রথম দিনে শোক প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা শেষে অধিবেশন মুলতবি করা হবে। গত ২৬ জুলাই আওয়ামী লীগ দলীয় সংসদ সদস্য এস এম মোস্তফা রশিদী সুজা ও ১৩ আগস্ট বিরোধীদলীয় প্রধান হুইপ মো. তাজুল ইসলাম চৌধুরী মারা যান।

উল্লেখ্য, দশম সংসদের প্রথম অধিবেশন শুরু হয়েছিল ২০১৪ সালের ২৯ জানুয়ারি। এ হিসেবে আগামী বছর ২৮ জানুয়ারি সংসদের পাঁচ বছরের মেয়াদ পূর্ণ হচ্ছে। মেয়াদ পূর্ণ হওয়ার আগের তিন মাসের মধ্যে পরবর্তী সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

 

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা