kalerkantho

সোমবার । ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮। ১৪ জুন ২০২১। ২ জিলকদ ১৪৪২

দ্য ল্যানসেটের প্রতিবেদন

২৩ বছরে দেশের মানুষের গড় আয়ু বেড়েছে ১১.১ বছর

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ ডিসেম্বর, ২০১৪ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গত ২৩ বছরে বাংলাদেশের মানুষের গড় আয়ু বেড়েছে ১১.১ বছর। এর মধ্য দিয়ে বিশ্বের ১৮৮টি দেশের মধ্যে গড় আয়ু বৃদ্ধিতে শ্রেষ্ঠ ১০টি দেশের সারিতে উন্নীত হয়েছে বাংলাদেশ। একই সঙ্গে ২৩ বছর আগে দেশে ডায়রিয়ায় সর্বোচ্চ মৃত্যুর ঘটলেও তা এখন ৯১ শতাংশ কমে গেছে। এখন সবচেয়ে বেশি মৃত্যু ঘটছে মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণে। স্বাস্থ্যবিষয়ক আন্তর্জাতিক জার্নাল দ্য ল্যানসেটে গতকাল বৃহস্পতিবার প্রকাশিত এক গবেষণা প্রতিবেদনে এসব তথ্য তুলে ধরা হয়েছে। জার্নালটি মৃত্যুর কারণের বিশ্ব পরিস্থিতি নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করলেও এর মধ্যে বাংলাদেশ অংশ তুলে ধরে ভারতের দিল্লি থেকে আঞ্চলিক প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে। ইনস্টিটিউট ফর হেলথ ম্যাট্রিক্স অ্যান্ড ইভালুয়েশন (আইএইচএমই) এবং ইউনিভার্নিটি অব ওয়াশিংটন যৌথভাবে ওই গবেষণা কার্যক্রম পরিচালনা করে। এতে আইসিডিডিআর,বির গবেষকরাও অংশ নেন।

আইসিডিডিআর,বির গবেষক ড. আলিয়া নাহিদ কালের কণ্ঠকে বলেন, 'মাত্র ২৩ বছরে বাংলাদেশের মানুষের আয়ুষ্কাল যেভাবে বেড়ে গেছে তা দেশের মানুষের জন্য বড় এক অর্জন। কিন্তু পাশাপাশি এর বিপরীতে যেসব রোগের নতুন করে প্রার্দুভাব দেখা যাচ্ছে সেগুলো রোধ করতে আমাদের আরো কার্যকর ভূমিকায় এগিয়ে আসা দরকার।'

ল্যানসেটের গতকাল প্রকাশিত গবেষণা প্রতিবেদনে ১৯৯০-২০১৩ সালের তুলনামূলক চিত্র তুলে ধরা হয়। এতে দেখানো হয়েছে, গত ২৩ বছরে দেশের মানুষের গড় আয়ুষ্কাল বৃদ্ধি পেয়েছে ১১.১ বছর। এ ছাড়া ১৯৯০ সালে দেশের মানুষের মৃত্যুর প্রধান ১০টি কারণের শীর্ষে ছিল ডায়রিয়া। এরপর ছিল প্রসবকালীন সমস্যা, নিউমোনিয়া, মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ, পানিতে ডোবা, শ্বাসতন্ত্রের সমস্যা ইত্যাদি। কিন্তু ২০১৩ সালে এ চিত্র পরিবর্তিত হয়ে সবার ওপরে উঠে এসেছে মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ। এরপর রয়েছে আকস্মিক হৃদরোগ, শ্বাসতন্ত্রের সমস্যা, নিউমোনিয়া, কারখানা থেকে উপত্তি হওয়া ফুসফুসের সমস্যা, উচ্চ রক্তচাপজনিত হৃদরোগ ইত্যাদি। এ ক্ষেত্রে ডায়রিয়ায় মৃত্যুর অবস্থান অনেক নিচে নেমে গেছে।