kalerkantho

শনিবার । ৫ আষাঢ় ১৪২৮। ১৯ জুন ২০২১। ৭ জিলকদ ১৪৪২

ভালুকায় চার খুন

তনুর খোঁজে পুলিশের অভিযান অব্যাহত

নিজস্ব প্রতিবেদক, ময়মনসিংহ ও ভালুকা প্রতিনিধি   

১৯ ডিসেম্বর, ২০১৪ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভালুকা উপজেলায় গত সোমবার রাতে একই পরিবারের চারজন খুনের ঘটনায় ছয়জনকে গ্রেপ্তারের পর হাফিজুর রহমান তনুর খোঁজে পুলিশের অভিযান চলছে। তনু নিহত রফিকুল ইসলামের বন্ধু। পুলিশ মনে করছে, এ ঘটনার সঙ্গে তনু প্রত্যক্ষভাবে জড়িত। ডিবি পুলিশ এ মামলার তদন্ত করছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানায়, ঘটনার পর পরই পুলিশ ও নিহতের পরিবারের লোকজন তনুকে সন্দেহ করে। তনুর পালিয়ে যাওয়ার ঘটনায় এ সন্দেহ আরো দানা বাঁধে। মূলত তাকে গ্রেপ্তারের জন্যই পুলিশ তনুর ঘনিষ্ঠজনদের আটক করার উদ্যোগ নেয়। এ উদ্দেশে থেকেই গত বুধবার পর্যন্ত ভালুকাসহ দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে মোট ছয়জনকে আটক করেছে পুলিশ। তাঁরা হলেন যশোরের হাফিজুর রহমান, তনুর স্ত্রী হাসনা, ভালুকা লবণকোঠা গ্রামের আবদুল বাতেন, নেত্রকোনা পূর্বধলার রফিকুল ইসলাম ও তাঁর স্ত্রী জোসনা, নোয়াখালীর সোহেল ও দুর্গাপুরের হাফিজ উদ্দিন। পুলিশ আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করে ঘটনার কারণ বিশেষ করে তনুর অবস্থান সম্পর্কে নিশ্চিত হতে চাইছে। পুলিশের এক কর্মকর্তা বলেন, তনু আটক হলেই ঘটনার রহস্য জানা যাবে। জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের এসআই মনিরুজ্জামান এ ব্যাপারে বলেন, মূল সন্দেহভাজনকে আটকের জন্য পুলিশের অভিযান চলছে।

উল্লেখ্য, গত সোমবার রাতে ময়মনসিংহের ভালুকায় হবিরবাড়ি ইউনিয়নের লবণকোঠা গ্রামে স্ত্রী পারুল আক্তার (২৫), সাত বছরের মেয়ে জিনিয়া, দেড় বছরের হোসনাসহ নৃশংসভাবে খুন হন পরিবহন মালিক ও শ্রমিক দল নেতা রফিকুল ইসলাম বাচ্চু (৩৫)। নিহত রফিকুল ইসলাম বাচ্চু উপজেলার পাড়াগাঁও বড়চালা গ্রামের ওয়ারেস আলীর ছেলে।

 



সাতদিনের সেরা