kalerkantho

রবিবার । ২ অক্টোবর ২০২২ । ১৭ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

বাধ্যতামূলক কোচিং-প্রাইভেট পড়া থেকে মুক্তি চাই

১৩ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



বাধ্যতামূলক কোচিং-প্রাইভেট পড়া থেকে মুক্তি চাই

দেশে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষায় এক শ্রেণির শিক্ষকের অনৈতিক বাধ্যতামূলক প্রাইভেট ও কোচিংয়ের যন্ত্রণায় অতিষ্ঠ শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা। বার্ষিক পরীক্ষা সামনে রেখে সম্প্রতি এই যন্ত্রণা তীব্র হয়েছে। পরীক্ষায় ফেল করিয়ে দেওয়া বা নম্বর কম দেওয়াসহ অন্যান্য ভয় দেখিয়ে শিক্ষকরা তাঁদের কাছে শিক্ষার্থীদের প্রাইভেট পড়তে বাধ্য করছেন। এ ছাড়া পরীক্ষার আগে প্রশ্নপত্র পাওয়া, কম বা ভুল লিখলেও বেশি নম্বর পাওয়ার প্রলোভনও দেখানো হয়।

বিজ্ঞাপন

ফলে কোমলমতি শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা দিন দিন এই শিক্ষকদের কাছে জিম্মি হয়ে পড়ছেন। শিক্ষকরা নিজ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের প্রাইভেট পড়াতে পারবেন না—এমন একটি উদ্যোগ দীর্ঘদিন ধরে ঝুলে আছে। কিন্তু দুঃখজনকভাবে তা আজও বাস্তবায়ন করা হয়নি। ফলে অনৈতিক প্রাইভেট বা কোচিংয়ের চাপ দিন দিন বাড়তে থাকায় শিক্ষার্থীদের মধ্যে নৈতিকতা ও মূল্যবোধ গড়ে উঠছে না। শিক্ষার্থীদের মেধার বিকাশ ও নৈতিকতা অর্জনের স্বার্থে অবিলম্বে বাধ্যতামূলক কোচিং ও প্রাইভেট পড়ার প্রথা বন্ধ করা উচিত। আশা করি শিক্ষা বিভাগ এ ব্যাপারে দ্রুত কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

সাদিয়া

শিক্ষার্থী, নবম শ্রেণি, সারদা সুন্দরী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, ফরিদপুর।



সাতদিনের সেরা