kalerkantho

রবিবার । ২ অক্টোবর ২০২২ । ১৭ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

শিক্ষা কর্মকর্তা বরখাস্ত আরো গ্রেপ্তার ৩

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



শিক্ষা কর্মকর্তা বরখাস্ত আরো গ্রেপ্তার ৩

দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের অধীন কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীতে এসএসসি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনায় উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে সাময়িক বরখাস্ত এবং আরো তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আরো দুটি বিষয়ের পরীক্ষার প্রশ্নপত্র বাতিল করেছে বোর্ড। তবে পরীক্ষা দুটি নির্ধারিত সময়ে অনুষ্ঠিত হবে। এ ছাড়া প্রশ্ন ফাঁসের কারণে বোর্ডের স্থগিত হওয়া চারটি বিষয়ের পরীক্ষার নতুন তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

শুরু হয়েছে ঘটনার তদন্ত।

গতকাল বৃহস্পতিবার মাধ?্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর, দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ড ও পুলিশ সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

বরখাস্ত, গ্রেপ্তার, রিমান্ড আবেদন

দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে ভূরুঙ্গামারী উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা (চলতি দায়িত্ব) আব্দুর রহমানকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। গতকাল মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের সাধারণ প্রশাসন বিভাগের উপপরিচালক বিপুল চন্দ্র বিশ্বাস স্বাক্ষরিত এক পত্রে এই আদেশ দেওয়া হয়েছে।

প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে গ্রেপ্তার আরো তিনজন হলেন ভূরুঙ্গামারী নেহাল উদ্দিন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের বাংলা বিষয়ের শিক্ষক সোহেল আল মামুন, পদার্থবিজ্ঞানের শিক্ষক হামিদুল ইসলাম ও অফিস সহায়ক সুজন মিয়া। বুধবার তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নেওয়া হলেও পরে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। গতকাল দুপুরে তাঁদের কুড়িগ্রাম আদালতে পাঠানো হয়েছে। এ নিয়ে ছয়জনকে গ্রেপ্তার করা হলো।

আদালতে গতকাল প্রশ্নপত্র ফাঁস মামলার ১ নম্বর আসামি নেহাল উদ্দিন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক লুত্ফর রহমানের তিন দিনের রিমান্ড আবেদন করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা ভূরুঙ্গামারী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আজাহার আলী। অন্যদিকে আসামিপক্ষে জামিনের আবেদন করা হয় আদালতে। কুড়িগ্রাম চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের ভূরুঙ্গামারী কোর্টের বিচারক মো. সুমন আলী রিমান্ড ও জামিন শুনানির জন্য আগামী ২৯ সেপ্টেম্বর দিন ধার্য করে আদেশ দেন। ভূরুঙ্গামারী কোর্টের দায়িত্বপ্রাপ্ত জেনারেল রেজিস্ট্রার অফিসার সিরাজুল ইসলাম এ তথ্য জানান।

প্রশ্নপত্র বাতিল ও পরীক্ষার নতুন তারিখ

দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের এসএসসি পরীক্ষার উচ্চতর গণিত ও জীববিজ্ঞান বিষয়ের প্রশ্নপত্র বাতিল করা হয়। নতুন প্রশ্নপত্র ছাপিয়ে আগের তারিখে পরীক্ষা দুটি নেওয়া হবে। এদিকে স্থগিত হওয়া চার বিষয়ের পরীক্ষার নতুন তারিখ গতকাল ঘোষণার এক ঘণ্টার মধ্যে তা পরিবর্তন করা হয়। সংশোধিত রুটিন অনুযায়ী, ১০ অক্টোবর গণিত (আবশ্যিক), ১১ অক্টোবর কৃষি শিক্ষা, ১৩ অক্টোবর রসায়ন এবং ১৫ অক্টোবর পদার্থবিজ্ঞান পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। পরীক্ষা সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত চলবে। এ ছাড়া ব্যাবহারিক পরীক্ষা ১০ থেকে ১৫ অক্টোবরের পরিবর্তে ১৬ থেকে ২০ অক্টোবর পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে। দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান মো. কামরুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তদন্ত শুরু

প্রশ্ন ফাঁসের ঘটনায় মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের পক্ষে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. শামছুল ইসলাম গতকাল সকালে ভূরুঙ্গামারীর নেহাল উদ্দিন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে গিয়ে প্রাথমিক (বিভাগীয়) তদন্ত শুরু করেন। তিনি সহকারী প্রধান শিক্ষক খলিলুর রহমানসহ অন্য শিক্ষকদের জবানবন্দি রেকর্ড করেন। তিনি জানান, প্রশ্ন ফাঁসের সঙ্গে শিক্ষা বিভাগের কেউ জড়িত আছেন কি না বা গ্রেপ্তার হয়েছেন কি না, তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। জড়িতদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক মো. ফারাজ উদ্দিন তালুকদারকে আহ্বায়ক করে বোর্ডের তিন সদস্যের তদন্ত কমিটিও গতকাল ভূরুঙ্গামারী পৌঁছে তদন্ত শুরু করেছে।

কুড়গ্রামের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিম বলেছেন, বোর্ডের তদন্ত কমিটি তদন্ত শেষে যে সুপারিশমালা দেবে, তার ভিত্তিতে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। পরবর্তী পরীক্ষাগুলো শিক্ষার্থীরা যাতে নিঃশঙ্ক চিত্তে দিতে পারে, সে জন্য সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

পরীক্ষার্থীদের মানববন্ধন

নেহাল উদ্দিন উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্রে এসএসসি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের প্রতিবাদে এবং যথাসময়ে পরীক্ষা শেষের দাবিতে মানববন্ধন করেছে পরীক্ষার্থীরা। গতকাল সকালে কুড়িগ্রাম প্রেস ক্লাবের সামনে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় বক্তব্য দেয় কুড়িগ্রাম সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী জাকিউল ইসলাম, মাহিন হাবীব ও রাফিউল ইসলাম। বক্তারা বলে, কার গাফিলতি ও দুর্নীতির কারণে ভূরুঙ্গামারীতে প্রশ্ন ফাঁস হলো, তা দ্রুত খুঁজে বের করতে হবে।

উল্লেখ্য, এসএসসি পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁসের ঘটনায় গত মঙ্গলবার ভূরুঙ্গামারী নেহাল উদ্দিন পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও কেন্দ্র সচিব লুত্ফর রহমানসহ তিন শিক্ষককে গ্রেপ্তার করা হয়। এর আগে গণিত, কৃষি শিক্ষা, পদার্থবিজ্ঞান ও রসায়নবিজ্ঞানের প্রশ্নপত্র উদ্ধার করা হয়। পরে দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ড এই চার বিষয়ের পরীক্ষা স্থগিত করে।

[প্রতিবেদনে তথ্য দিয়েছেন কালের কণ্ঠের কুড়িগ্রাম, দিনাজপুর ও ভূরুঙ্গামারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি। ]

 

 

 



সাতদিনের সেরা