kalerkantho

বুধবার । ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১৩ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

সবিশেষ

সারের বিকল্প যখন কফি

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৪ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সারের বিকল্প যখন কফি

রাসায়নিক সারের মূল্য আকাশছোঁয়া, তাই কফিকেই সার বানিয়ে নিয়েছেন আলবেনিয়ার দরিদ্র কৃষক আলবান কাকালি। করোনা মহামারি ও রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে সারের মূল্য বেড়েছে অনেক। ফলে অনেক কৃষকের পক্ষে আমদানি করা রাসায়নিক সার কেনা কঠিন হয়ে পড়ছে।

উত্তর-পশ্চিম আলবেনিয়ার মামুরাস শহরে প্রায় আধা হেক্টর জমি রয়েছে ৩৮ বছর বয়সী কৃষক আলবান কাকালির।

বিজ্ঞাপন

এত কম জমির জন্য সার কেনার উপায় নেই তাঁর।

তবে শুধু সার নয়, অন্যান্য কৃষি উপকরণেরও দাম বেড়েছে। এতে আলবেনিয়ার কৃষি খাত চাপে পড়েছে।

খরচ সামাল দিতে কাকালি কফির গুঁড়া দিয়েই প্রাকৃতিক সার বানিয়ে নিচ্ছেন। আলবেনিয়ায় খুব সহজেই মেলে কফির ফেলে দেওয়া গুঁড়া। কফিকে বলা যায় অনেকটা জাতীয় পানীয়। রাস্তার প্রতিটি মোড়েই দেখা মেলে ক্যাফের।

আলবান কাকালি গড়ে প্রতিদিন ৪০ কেজির ওপরে ফেলে দেওয়া ভাঙা কফি বিন সংগ্রহ করতে পারেন। তবে তিনি জানান, কফি থেকে সার তৈরির প্রক্রিয়া বেশ সময়সাপেক্ষ। প্রথমে কফির গুঁড়ার সঙ্গে কিছু ভেষজ উপাদান মেশাতে হয়। তারপর মিশ্রণটা কম্পোস্ট হওয়ার জন্য তিন মাসের মতো ফেলে রাখতে হয়। কিন্তু কাজটা সময়সাপেক্ষ হলেও ফলটা কষ্ট পুষিয়ে দেবে। এ সারের গুণ অনেক বেশি। এতে থাকে প্রচুর পরিমাণে নাইট্রোজেন, ম্যাগনেসিয়াম ও পটাসিয়াম। এই সার পোকামাকড় প্রতিরোধেও কার্যকর। সূত্র : এএফপি।



সাতদিনের সেরা