kalerkantho

সোমবার । ১৫ আগস্ট ২০২২ । ৩১ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১৬ মহররম ১৪৪৪

দুদকের আরেক মামলা, দেশে ফেরাতে বৈঠক

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২০ মে, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



দুদকের আরেক মামলা,  দেশে ফেরাতে বৈঠক

পি কে হালদার

এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক ও রিলায়েন্স ফাইন্যান্স লিমিটেডের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) প্রশান্ত কুমার হালদারসহ (পি কে হালদার) ১২ জনের বিরুদ্ধে গতকাল বৃহস্পতিবার আরেকটি মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। এদিকে পি কে হালদারকে দেশে ফিরিয়ে আনতে গতকাল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে জরুরি বৈঠক করা হয়েছে।

বৈঠকে স্বরাষ্ট্র, অর্থ, আইন ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক), বাংলাদেশ ফিন্যানশিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (বিএফআইইউ), বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থা ও দপ্তরের কর্মকর্তারা অংশ নেন। পি কে হালদারকে দেশে ফেরাতে প্রয়োজনে ভারতে আন্ত মন্ত্রণালয়ের কমিটি পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

বিজ্ঞাপন

এ পর্যন্ত পি কে হালদারের বিরুদ্ধে দুদকের তরফ থেকে মোট ৩৫টি মামলা করা হয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে দেশের চারটি আর্থিক প্রতিষ্ঠানের প্রায় ১০ হাজার কোটি টাকা লুটপাট ও পাচারের অভিযোগ রয়েছে। গত শনিবার পশ্চিমবঙ্গের উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলার অশোকনগরের একটি বাড়ি থেকে পি কে হালদারকে গ্রেপ্তার করে ভারতের কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)। ভারতে প্রথম দফায় তিন দিনের রিমান্ড শেষে বর্তমানে ১০ দিনের রিমান্ডে আছেন তিনি।

দুদকের গতকালের মামলার অভিযোগে বলা হয়, পি কে হালদারসহ ১২ আসামি ক্ষমতার অপব্যবহার করে প্রতারণা ও জাল-জালিয়াতির মাধ্যমে এফএএস (ফাস) ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড থেকে কাগুজে প্রতিষ্ঠান দিয়া শিপিং লিমিটেডের নামে ঋণ হিসেবে ৪৪ কোটি টাকা নিয়ে আত্মসাৎ করেন।

মামলায় পি কে হালদার ছাড়াও দিয়া শিপিং লিমিটেডের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক শিব প্রসাদ ব্যানার্জী, পরিচালক পাপিয়া ব্যানার্জি, এফএএস ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্টের চেয়ারম্যান এম এ হাফিজ, সাবেক চেয়ারম্যান মো. সিদ্দিকুর রহমান ও ভাইস চেয়ারম্যান মো. জাহাঙ্গীর আলম, পরিচালক অরুণ কুমার কুণ্ডু, অঞ্জন কুমার রায়, মো. মোস্তাইন বিল্লাহ, উজ্জল কুমার নন্দী, সত্য গোপাল পোদ্দার ও এফএএস ফাইন্যান্সের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রাসেল শাহরিয়ারকে আসামি করা হয়েছে।

দুদকের ভারপ্রাপ্ত সচিব সাঈদ মাহবুব খান বলেন, ‘পি কে হালদারকে ফেরাতে আমরা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে চিঠি দিয়ে অনুরোধ করেছিলাম। সেই চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জরুরি বৈঠক ডাকে। বৈঠকে আইন মন্ত্রণালয়, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ ব্যাংকের বিএফআইইউসহ সবাই উপস্থিত ছিল। বৈঠকে পি কে হালদারকে দেশে ফেরাতে ব্যবস্থা নিতে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। ’ তিনি বলেন, ‘পি কে হালদারকে ফেরত আনতে যেসব নথি প্রয়োজন সেগুলো একত্র করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আমরা খুব দ্রুত এগুলো একত্র করব। এ ছাড়া তাঁকে ভারত থেকে ফেরাতে প্রয়োজনে আন্ত মন্ত্রণালয় কমিটি করে ভারতের পশ্চিমবঙ্গে টিম পাঠানো হবে বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ’

বিএফআইইউতে দেওয়া চিঠির প্রসঙ্গ এনে সাঈদ মাহবুব বলেন, ‘মামলায় ভারতে পি কে হালদারের অল্প পরিমাণ সম্পদের তথ্য আমাদের কাছে ছিল, বাকি তথ্যগুলো যদি আমরা পাই, তাঁর বিরুদ্ধে সম্পূরক অভিযোগপত্র দেওয়ার ব্যবস্থা নেব। বিএফআইইউ সেই তথ্যগুলো আমাদের সংগ্রহ করে দেবে। ’

ইন্টারপোলে দুদকের চিঠি

ইন্টারপোলের ঢাকার ন্যাশনাল সেন্ট্রাল ব্যুরোর ভারতীয় অংশের কাছে চিঠি দিয়েছে দুদক। চিঠিতে ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে থাকা বন্দি চুক্তির আওতায় পি কে হালদারকে নিজ দেশে ফেরত বা বাংলাদেশ ফেরত পেতে আন্তর্জাতিক এ সংস্থার কাছে অনুরোধ জানিয়ে সহযোগিতা চাওয়া হয়।

ইন্টারপোলে দেওয়া চিঠির বিষয়ে দুদকের ভারপ্রাপ্ত সচিব বলেন, ‘ইন্টারপোলকে আমরা চিঠি দিয়েছি। এরই মধ্যে ইন্টারপোলের প্রধান শাখা থেকে ভারতীয় ইন্টারপোলে যাঁরা আছেন তাঁদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে। তারা যেন সেই যোগাযোগ অব্যাহত রাখে। আর পি কে হালদারের বিষয়ে আমরা যে রেড অ্যালার্ট জারি করেছিলাম, সেই বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেছি। ’

দুদকের সমন্বয় কমিটি

পি কে হালদারকে ভারত থেকে দেশে ফিরিয়ে আনতে সরকারের সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে সমন্বয় করতে এবং দুদকে থাকা প্রয়োজনীয় নথি সরবরাহ করতে একটি কমিটি করেছে দুদক। কমিশনের উপপরিচালক মোহাম্মদ সালাউদ্দিন ও গুলশান আনোয়ারকে নিয়ে এ কমিটি করা হয়েছে।

শেয়ার ফ্রিজের নির্দেশ :  পি কে হালদারের নামে থাকা সব ধরনের কম্পানির শেয়ার (বিও অ্যাকাউন্টে থাকা শেয়ারসহ) অবরুদ্ধ (ফ্রিজ) করার নির্দেশ দিয়েছে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। গতকাল আদালতের আদেশের পর শেয়ার সংরক্ষণকারী প্রতিষ্ঠান সেন্ট্রাল ডিপোজিটরি বাংলাদেশ লিমিটেডকে (সিডিবিএল) এ নির্দেশ দেয় বিএসইসি।

 



সাতদিনের সেরা