kalerkantho

শুক্রবার ।  ২৭ মে ২০২২ । ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ২৫ শাওয়াল ১৪৪

গ্রাহকের অর্থ ফেরতে নতুন জটিলতা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৫ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



গ্রাহকের অর্থ ফেরতে নতুন জটিলতা

ই-কমার্স খাতের আলোচিত বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের পণ্য কিনে যারা এখনো পণ্য বুঝে পায়নি বা টাকা ফেরত পায়নি, তাদের টাকা ফেরত দিতে নানা উদ্যোগ নেওয়া হলেও সংকট পিছু ছাড়ছে না। গ্রাহকের অর্থ ফেরত দেওয়ার গন্তব্য নিশ্চিত করা না গেলে বেশির ভাগ গ্রাহক অর্থ ফিরে পাবে না বলে আশঙ্কা করছেন সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা।

গতকাল সোমবার বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান কিউকম ডটকমের গ্রাহকদের অর্থ ফেরত দেওয়া শুরু করেছে। প্রথম দিন কিউকমের ২০ গ্রাহককে ৪০ লাখ টাকা ইসলামী ব্যাংকের মাধ্যমে ফেরত দেওয়া হয়।

বিজ্ঞাপন

প্রাথমিকভাবে চিহ্নিত এই প্রতিষ্ঠানের ছয় হাজার ৭২১টি ক্রয়াদেশের বিপরীতে ৫৯ কোটি পাঁচ লাখ ১০ হাজার ৩৪৭ টাকা পর্যায়ক্রমে ফেরত দেওয়া হবে।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা যায়, পণ্য কেনার অর্ডার দিতে বেশির ভাগ ভোক্তা বাণিজ্যিকভাবে কাজ করে, এমন কিছু বিকাশ ও নগদের দোকান এবং বিভিন্ন এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের সহযোগিতা নিয়েছে। এসব হিসাবে টাকা ফেরত পাঠানো হলে প্রকৃত ভোক্তার টাকা না পাওয়ার আশঙ্কা থেকে যায়। এ জন্য মন্ত্রণালয় অর্থছাড়ের উদ্যোগ নিলেও গ্রাহকের টাকা ফেরত পাওয়া নিয়ে নতুন করে জটিলতা তৈরি হয়েছে।

জানতে চাইলে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ও ই-কমার্স খাতের গঠিত কারিগরি কমিটির সভাপতি এ এইচ এম সফিকুজ্জামান কালের কণ্ঠকে বলেন, ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের গ্রাহকদের অর্থ ফেরত দিতে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় উদ্যোগ নিয়েছে। কিন্তু অনেক গ্রাহক আর্থিক লেনদেন প্রতিষ্ঠান বিকাশ, নগদ ও এজেন্ট ব্যাংকের মাধ্যমে পণ্য কেনার অর্ডারের অর্থ পরিশোধ করেছে। এসব হিসাবে টাকা ফেরত পাঠানো হলে অনেক গ্রাহক তাদের টাকা ফেরত পাবে কি না, তা নিয়ে সংশয় রয়েছে। তাই প্রকৃত গ্রাহককে শনাক্ত করে তাদের নির্বাচিত হিসাবে টাকা পাঠানোর চিন্তা-ভাবনা করছে মন্ত্রণালয়। তবে যেসব গ্রাহক ব্যাংক ও ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে টাকা পরিশোধ করেছে, তারা দ্রুত টাকা পেয়ে যাবে।

গতকাল বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের ই-কমার্সের কারিগরি কমিটির বৈঠক শেষে জ্যেষ্ঠ সচিব তপন কান্তি ঘোষ মন্ত্রণালয়ের সম্মেলনকক্ষে এই ২০ গ্রাহকের কাছে এই টাকার চেক হস্তান্তর করেন।

অনুষ্ঠানে বাণিজ্যসচিব তপন কান্তি ঘোষ বলেন, সরকার ভোক্তার অধিকার রক্ষায় কাজ করে যাচ্ছে। ই-কমার্সকে শৃঙ্খলার মধ্যে আনতে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিয়েছে।

বৈঠকে উপস্থিত ই-ক্যাবের মহাব্যবস্থাপক জাহাঙ্গীর আলম শোভন কালের কণ্ঠকে বলেন, কিউকম ছাড়াও আলিশা মাট, আলাদীনের প্রদীপ এবং সিরাজগঞ্জ ডটকমের মতো অন্যান্য আলোচিত ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানে গ্রাহকদের আটকে থাকা অর্থ ফেরত দিতে ছয় সদস্যের একটি কমিটি করা হয়েছে। ই-কমার্স খাত নিয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের গঠিত টেকনিক্যাল কমিটি কাজ করছে। এ ছাড়া ইভ্যালি বিষয়ে কাজ করছে সাবেক বিচারপতি সামশুদ্দিন মানিকের নেতৃত্বে একটি পর্ষদ। আদালতের নির্দেশে এই পর্ষদ গঠন করা হয়।

ই-কমার্সকে একটি আস্থার জায়গায় নিয়ে আসার জন্য সরকার কাজ করছে উল্লেখ করে বাণিজ্যসচিব বলেন, ই-কমার্স পরিচালনায় অল্প সময়ের মধ্যে ইউনিক বিজনেস আইডি চালু করা হবে। পেমেন্ট গেটওয়েতে থাকা অর্থ ফেরত দেওয়া হচ্ছে। যেসব বিষয়ে আইনি প্রক্রিয়া চলছে, সেগুলো আদালতের নির্দেশনা মোতাবেক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ ছাড়া সরকার এরই মধ্যে ই-কমার্সের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের তথ্য সংগ্রহ শুরু করেছে।



সাতদিনের সেরা