kalerkantho

রবিবার । ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২৮ নভেম্বর ২০২১। ২২ রবিউস সানি ১৪৪৩

সৈকতে একের পর এক কেন মৃত ডলফিন?

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল   

১০ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সৈকতে একের পর এক কেন মৃত ডলফিন?

কুয়াকাটা সমুদ্রসৈকতে ৪০ দিনে ১৪টি মৃত ডলফিন পাওয়া গেছে। সর্বশেষ গতকালও একটি মৃত ডলফিন পাওয়া যায়। ধারণা করা হচ্ছে, পানিতে লবণের পরিমাণ বেড়ে যাওয়া, পছন্দের খাবার না পাওয়া, জাহাজ কিংবা ট্রলারের সঙ্গে ধাক্কা খাওয়া ও জালে আটকে পড়ার কারণে এসব ডলফিনের মৃত্যু হচ্ছে। তবে ‘আত্মহত্যার’ পাশাপাশি বয়স হওয়ার কারণেও অনেক ডলফিনের মৃত্যু হয় বলে জানিয়েছেন মাৎস্যবিজ্ঞানীরা।

কুয়াকাটা ডলফিন রক্ষা কমিটির টিম লিডার রুমান ইমতিয়াজ তুষার জানান, গতকাল বৃহস্পতিবার ছয় ফুট লম্বা ইরাবতি প্রজাতির একটি মৃত ডলফিন জিরো পয়েন্টের পশ্চিম পাশে সাগরকন্যা রিসোর্টের সামনে দেখা যায়। সেটি মৎস্য বিভাগের কর্মকর্তারা মাটিচাপা দিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘বেশির ভাগ মৃত ডলফিনের শরীরে আঘাতের চিহ্ন ছিল। আমরা এর কারণ অনুসন্ধানের জন্য আবেদন জানিয়ে আসছি। কিন্তু উদ্ধারকৃত ডলফিনগুলো পরীক্ষা-নিরীক্ষার আগেই মাটিচাপা দেওয়া হচ্ছে।’ কলাপাড়া উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা অপু সাহা সাংবাদিকদের বলেন, ‘সৈকতে ভেসে আসা মৃত ডলফিনগুলো আমরা পরিবেশ বিপর্যয়ের কথা বিবেচনা করে মাটিচাপা দিই। কারণ এগুলো পরীক্ষা করার দায়িত্ব প্রাণিসম্পদ বিভাগের।’

পটুয়াখালী উপকূলীয় বন বিভাগের সহকারী বন সংরক্ষক মো. তারিকুল ইসলাম বলেন, ‘বন্য প্রাণী সংরক্ষণ আইন অনুযায়ী ডলফিন হত্যায় সাজার বিধান রয়েছে। আমাদের জানা মতে, জেলেদের জালে আটকে গিয়ে ডলফিনগুলো মারা যাচ্ছে। এর জন্য জেলেদের সচেতন করার লক্ষ্যে পাঁচ দিনব্যাপী প্রচারণা কর্মসূচি হাতে নেওয়া হয়েছে।’

সরকারি ব্রজমোহন (বিএম) কলেজের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের সাবেক সহযোগী অধ্যাপক মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘বছরের পর বছর ধরে ডলফিন নিয়ে কাজ করছি। সম্প্রতি বেশি ডলফিনের মৃতদেহ মিলছে। বিষয়টি খুবই উদ্বেগের।’ সম্ভাব্য কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘প্রাণীরা নিজেদের পছন্দের খাবার না পেয়ে নদীতে ফেলা মাছ ধরার জালের কাছে চলে আসছে। কখনো জালে আটকে পড়ছে, কখনো মৎস্যজীবীদের হাতে মারা পড়ছে।’ 

শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিশারিজ, অ্যাকোয়াকালচার অ্যান্ড মেরিন সায়েন্স অনুষদের সহকারী অধ্যাপক মীর মোহাম্মদ আলী বলেন, ‘গবেষণায় দেখা গেছে, বেশ কয়েকটি কারণে এই ডলফিনের দল মারা পড়ছে। গভীর সমুদ্রে লবণের পরিমাণ বেড়ে যাওয়া, পছন্দের খাবার না পাওয়া ও সর্বোপরি বারবার জাহাজ বা ট্রলার চলাচলের পথে চলে আসাই এর কারণ।’

মৎস্যজীবীদের বরাত দিয়ে মীর মোহাম্মদ আলী আরো বলেন, ‘এসব ডলফিন জেলেদের নৌকার পাশে ঘোরাফেরা করে মাছ খাওয়ার লোভে। অনেক সময় জালে জড়িয়ে মারা যায়।’

 



সাতদিনের সেরা