kalerkantho

রবিবার । ১৭ শ্রাবণ ১৪২৮। ১ আগস্ট ২০২১। ২১ জিলহজ ১৪৪২

‘মানসিক অস্থিরতা’ থেকে নৃশংস অপরাধ বাড়ছে

এস এম আজাদ   

১২ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৫ মিনিটে



‘মানসিক অস্থিরতা’ থেকে নৃশংস অপরাধ বাড়ছে

স্বজনকে হত্যার পর লাশ টুকরা করে ফেলা হচ্ছে। প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যার ঘটনা ঘটছে। সন্তানকে হত্যা করে নিজেই আত্মহননের পথ বেছে নিচ্ছেন মা। দল বেঁধে ধর্ষণ, যৌন নির্যাতন করে ভিডিও চিত্র ধারণ করা হচ্ছে। অসহায় তরুণীদের ফাঁদে ফেলে পাচারও করছে। কিশোর বয়সেই তুচ্ছ কারণে সমবয়সীকে হত্যা করছে কেউ কেউ। শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যা করে লাশ পুঁতে রাখছে তার আত্মীয়। চলন্ত বাসে কর্মজীবী তরুণীকে আটকে দলবদ্ধ ধর্ষণ করছে পরিবহনকর্মীরা। হামলার পর দেশীয় অস্ত্র নিয়ে নেচে উল্লাসও করছে কেউ কেউ। সম্প্রতি একের পর এক এমন হত্যা-নির্যাতনের নিষ্ঠুর ঘটনা তোলপাড় সৃষ্টি করেছে।

অপরাধ ও মনোবিজ্ঞানীরা বলছেন, মানসিক অস্থিরতা থেকেই এমন নৃশংস অপরাধ বাড়ছে। করোনার প্রভাবে জীবন-জীবিকার সমস্যা এবং গৃহবন্দি সময় কাটানোর কারণে অনেকে অসহিষ্ণু হয়ে উঠেছে। মানসিক অস্থিরতা ও হতাশায় অনেক মানুষ হিংস্র, এমনকি আত্মঘাতী হয়ে উঠছে। সাইবারজগতে নেতিবাচক কর্মকাণ্ড এবং মাদকের প্রভাবে নতুন ধরনের অপরাধপ্রবণতা তৈরি হচ্ছে।

মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাধ ও পুলিশবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. ওমর ফারুক কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘এখন অপরাধে সহিংসতা নতুন মাত্রা পাচ্ছে। অপরাধবিজ্ঞানের ভাষায়, শত্রুভাবাপন্ন মনোভাব তীব্র আকার ধারণ করলে হত্যার পর লাশ কেটে ফেলা বা বিকৃত করে খুনি আনন্দ খুঁজে পায়। নতুন অপরাধগুলোর অন্যতম কারণ অবাধ প্রযুক্তি প্রবাহের কারণে পর্নোগ্রাফি, টিকটকের মতো বিভিন্ন অপসংস্কৃতির প্রভাব। এখন আইনের প্রয়োগের পাশাপাশি পরিবারসহ সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় নজরদারি প্রয়োজন।’

জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের সাবেক পরিচালক অধ্যাপক ডা. মোহিত কামাল কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘নৈতিকতার অবক্ষয় ও মানসিক অস্থিরতা থেকে মানুষ অসহিষ্ণু হয়ে ওঠে। অসহিষ্ণু মানুষের মস্তিষ্কের বিচারিক সেলগুলোর কার্যকারিতা কমে যায়। তখন সে হিংস্র আচরণ করে। এ কারণে লাশ কেটে ফেলার মতো ঘটনা ঘটছে। নিজের অপরাধ ঢাকতে আরো বেশি নৃশংস হয়ে পড়ে অনেকে। তার বিচার-বিবেচনাবোধ কাজ করে না। নিয়মিত মাদক সেবন করলেও তার মস্তিষ্কের জাজমেন্টাল সেলগুলোর অ্যাক্টিভিটি কমে যায়।’

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) তথ্য মতে, করোনাভাইরাস সংক্রমণ মোকাবেলায় সরকারের জারি করা বিধি-নিষেধের মধ্যেই গত এক মাসে রাজধানীতে ১৮টি খুন ও ৩৭টি ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে।

এর মধ্যে গত রবি ও সোমবার রাজধানীর বনানীতে ছয় টুকরা লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত ময়না মিয়া অটোরিকশাচালক। তাঁর প্রথম স্ত্রী ফাতেমা খাতুন পুলিশের কাছে হত্যার দায় স্বীকার করে বলেছেন তিনি একাই এ অপরাধ করেছেন। গত সোমবার কলাবাগান এলাকা থেকে গ্রিন লাইফ হাসপাতালের রেডিওলজি বিভাগের চিকিৎসক কাজী সাবিরা রহমান লিপির লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পুলিশের ধারণা, তাঁকে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে হত্যার পর লাশ পুড়িয়ে ফেলার চেষ্টা করে দুর্বৃত্তরা।

গত ২০ মে দক্ষিণখানে মসজিদের সেপটিক ট্যাংক থেকে পোশাককর্মী আজহারুলের সাত টুকরা মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। ওই মসজিদের ইমাম আব্দুর রহমান ও আজহারের স্ত্রী আসমা আক্তার আদালতে হত্যার দায় স্বীকার করেছেন। গত ১৬ মে রাজধানীর মিরপুরের পল্লবীতে সাহিনুদ্দিন নামে এক যুবককে ছয় বছরের শিশুসন্তানের সামনে কয়েকজন প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা করে। জমিসংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে লক্ষ্মীপুরের সাবেক সংসদ সদস্য এম এ আউয়ালের নির্দেশে এই হত্যাকাণ্ড ঘটে বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

এর আগে গত ৪ মার্চ গাজীপুরের জয়দেবপুরে দ্বিতীয় বিয়ে নিয়ে কলহের জেরে স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যার পর লাশ সাত টুকরা করেন স্বামী জুয়েল আহমেদ।

এ ছাড়া গত রবিবার নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে নাজমুল সাকিব নাবিল নামে এক তরুণকে কুপিয়ে হত্যার পরদিন নরসিংদীর একটি আবাসিক হোটেল থেকে তাঁর মা নাসরিন বেগমের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়।

গত ২৭ মে রংপুরের মিঠাপুকুরে প্রতিবেশীর ঘরের মেঝে খুঁড়ে রহিমা খাতুন নামে এক শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়। আত্মীয় এক যুবক মেয়েটিকে ধর্ষণের পর হত্যা করে মাটিতে পুঁতে রাখে বলে তথ্য মেলে। একই দিন দিনাজপুরের পার্বতীপুরে পাঁচ বছরের শিশু হাসিকে গলাটিপে হত্যার পর স্বজনদের লাশ উদ্ধার করতে বলেন মা রত্না বেগম। রাজধানীর শনির আখড়ায় কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা আরাফাত ইয়াসিন নামে এক কিশোরকে কুপিয়ে হত্যা করে। ২১ মে বরিশালে সবুজ নামে এক শিশুকে হত্যা করে লাশ খালে ফেলে দেওয়া হয়। গত ১৬ মে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী হাফিজুর নিজের গলায় আঘাত করে মারা যান। এ ঘটনা তদন্ত করতে গিয়ে তিন বিশ্ববিদ্যালয়ছাত্রকে এলএসডি নামের মাদকসহ গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

গত মাসে ভারতে বাংলাদেশি এক তরুণীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের একটি ভিডিও সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। টিকটক অ্যাপে ডিভিও করে সেলিব্রেটি বানানোর কথা বলে নারীদের ফাঁদে ফেলে ভারতে পাচার করছে একটি চক্র। এই চক্রের সমন্বয়ক রিফাতুল ইসলাম হৃদয় ওরফে টিকটক হৃদয়।

সম্প্রতি কুমিল্লার দুটি ভিডিও ভাইরাল হয়, যেখানে দেখা যায় ধারালো দেশীয় অস্ত্র নিয়ে কয়েকজন গানের সঙ্গে নাচছে। গত শুক্রবার আশুলিয়ায় এক গার্মেন্টকর্মী তরুণীকে চলন্ত বাসে আটকে দলবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে।

ডিএমপির গোয়েন্দা বিভাগের (ডিবি) যুগ্ম কমিশনার মাহবুব আলম কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমরা বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের মধ্যে অসহিষ্ণু আচরণ লক্ষ করছি। সামাজিক, অর্থনৈতিক অনিশ্চয়তা, লকডাউনে দীর্ঘসময় বাসায় থাকা ইত্যাদি কারণে হয়তো মানুষের মধ্যে এক ধরনের অস্থিরতা তৈরি হয়েছে। এ ছাড়া শিশুদের মধ্যে এক ধরনের আচরণগত পরিবর্তন দেখা গেছে। এসব ক্ষেত্রে নজরদারির পাশাপাশি সচেতনতা ও গবেষণা দরকার।’

 



সাতদিনের সেরা