kalerkantho

রবিবার । ৬ আষাঢ় ১৪২৮। ২০ জুন ২০২১। ৮ জিলকদ ১৪৪২

বসুন্ধরার উপহার

ঈদের আগে খুশির জোয়ার

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১২ মে, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৬ মিনিটে



ঈদের আগে খুশির জোয়ার

উত্তরার আইইউবিএটি মিলনায়তনে দুস্থদের মাঝে বসুন্ধরা গ্রুপের পক্ষ থেকে গতকাল উপহারসামগ্রী বিতরণ করা হয়। ছবি : কালের কণ্ঠ

কয়েক দিন আগে রাজধানী ঢাকার তুরাগ থানার রানাভোলা এলাকার একটি বস্তিতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড হয়। এতে নিঃস্ব হয়ে যায় শতাধিক মানুষ। এই অসহায়দের ঘরে একটু হলেও ঈদের আনন্দ ফিরিয়ে দিল বসুন্ধরা গ্রুপের ঈদ উপহার। গতকাল মঙ্গলবার তাদের ছাড়াও রাজধানীর উত্তরার বিভিন্ন এলাকার (দ্বিতীয় দফা) তিন শতাধিক মানুষের হাতে বসুন্ধরার উপহার তুলে দেন কালের কণ্ঠ শুভসংঘের বন্ধুরা। একই দিন নরসিংদী, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, মানিকগঞ্জের শিবালয়, ময়মনসিংহের ফুলপুর ও ত্রিশালে হাজারো দরিদ্র মানুষের মাঝে বিতরণ করা হয় এই উপহার (চাল, ডাল, তেল, সেমাই, চিনি, ছোলা)। করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে এ সহায়তা পেয়ে বসুন্ধরার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে উপকারভোগীরা।

ত্রিশালে উপজেলা শুভসংঘের আয়োজনে গতকাল তৃতীয় দিনের মতো বসুন্ধরার ঈদ উপহার বিতরণ করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ধর্ম মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও ত্রিশাল আসনের সংসদ সদস্য রুহুল আমিন মাদানী বলেন, ‘সরকার করোনা দুর্যোগ মোকাবেলায় সব ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণের পাশাপাশি অসহায়দের সহায়তা করে যাচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা মাঠে কাজ করে যাচ্ছি অসহায়দের জন্য। বসুন্ধরা গ্রুপের অসহায়দের জন্য এই মহতী উদ্যোগকে স্বাগত জানাই। এটা প্রশংসনীয়।’

কালের কণ্ঠ ত্রিশাল প্রতিনিধি মোস্তাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন ত্রিশাল থানার ওসি মাইন উদ্দিন, উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান এ এন এম শোভা মিয়া আকন্দ, সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান আশরাফুল ইসলাম, উপজেলা মোটর মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম, উপজেলা যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক হাছান শহীদ সোহেল, ময়মনসিংহ বিভাগীয় প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম, ময়মনসিংহ টেলিভিশন রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক আ ন ম ফারুক, ত্রিশাল প্রেস ক্লাবের সভাপতি গোলাম মোস্তফা সরকার, সাবেক সভাপতি খোরশিদুল আলম মজিব, ত্রিশাল নিউজ ক্লাবের সভাপতি রফিকুল ইসলাম শামীম, আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় উপকমিটির সদস্য আপেল মাহমুদ, ত্রিশাল প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ সেলিম, ত্রিশাল রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি এইচ এম জোবায়ের হোসেন, প্রেস ক্লাবের মতিউর রহমান সেলিম, ফয়জুর রহমান ফরহাদ, মামুনুর রশীদ প্রমুখ।

রাজধানীর উত্তরায় আগের দিন শুভসংঘ বন্ধুদের বিতরণ করা টোকেন নিয়ে গতকাল অসহায় মানুষজন হাজির হয় আইইউবিএটির গেটের সামনে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে আইইউবিএটির মিলনায়তনে তাদের হাতে খাদ্যসামগ্রীর ব্যাগ তুলে দেওয়া হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন আইইউবিএটির শিক্ষক প্রকৌশলী মফিজুল ইসলাম, শুভসংঘের পরিচালক জাকারিয়া জামান, কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি সাদেকুল ইসলাম, প্রচার সম্পাদক রানা মিত্র, সামনান ওলী প্রমুখ। এ ছাড়া দক্ষিণখান ও উত্তরখান থানার অসহায় মানুষের মাঝে বসুন্ধরার ঈদ উপহার বিতরণ করা হয়। উপহার বিতরণ করেন দক্ষিণখান থানা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) মো. ফারুক আহমেদ ও উত্তরখান থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) মো. মেহেদী হাসান উজ্জ্বল।

নরসিংদীতে কর্মহীন হয়ে পড়া ও দুস্থ ৩০০ পরিবার পেয়েছে বসুন্ধরার ঈদ উপহার। দুপুরে পৌর এলাকার বিআরটিসি মাঠে নরসিংদী জেলা শুভসংঘের সহযোগিতায় উপহারসামগ্রী বিতরণ করা হয়। এ সময় শুভসংঘের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা মাহবুবুর রহমান, নরসিংদী জেলা শাখার উপদেষ্টা রাসেল বিন হাসনাত, সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধা এম এ বাশার বাচ্চু, নরসিংদী সদর হাসপাতালের আরএমও ডা. আমিরুল হক শামীম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মানিকগঞ্জের শিবালয় উপজেলার সদর ও তেওতা ইউনিয়নে পাঁচ শতাধিক দুস্থ ও কর্মহীন মানুষকে বসুন্ধরা গ্রুপ খাদ্য সহায়তা দেয়। ইউএনও বি এম রুহুল আমীন রিমনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপকারভোগীদের হাতে এ সহায়তা তুলে দেন জেলা প্রশাসক এস এম ফেরদৌস। উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রুনা আক্তার, তেওতা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের, ইউনুস আলী মাস্টার, শরৎ বাবু, যুবলীগ নেতা নুরে আলম প্রমুখ এ সময় উপস্থিত ছিলেন। বক্তব্যে জেলা প্রশাসক বলেন, বসুন্ধরা গ্রুপ আপৎকালসহ বিভিন্ন সময়ে অসহায় মানুষের পাশে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দেয়। সরকারি সহায়তার পাশাপাশি এসব বড় গ্রুপ আছে বলেই দেশের মানুষ ভালো থাকে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ার এক প্রবাসীর পরিবার ‘অভুক্ত’ থাকা নিয়ে কালের কণ্ঠে সংবাদ প্রকাশিত হলে অনেকেই এগিয়ে আসে। এবার পাশে দাঁড়িয়েছে বসুন্ধরা গ্রুপ। গতকাল রাধানগরে শুভসংঘের সহযোগিতায় ওই পরিবার, পত্রিকা হকার, গৃহকর্মী, দিনমজুরসহ দরিদ্রদের মাঝে খাদ্য সহায়তা দেওয়া হয়। আখাউড়া প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মো. নুরুন্নবী ভূঁইয়া, সাবেক সাধারণ সম্পাদক কাজী মিনহাজুল আবেদীন খাদেম হান্নান, সাবেক সহসভাপতি কাজী মফিকুল ইসলাম সুহিন, সহসভাপতি জুটন বনিক, টেলিভিশন জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মো. সাইফুল ইসলাম, সাংবাদিক মো. ফজলে রাব্বী, আশীষ সাহা, ব্যবসায়ী মো. ইয়াছিন চৌধুুুরী, মো. মামুন আল ফয়সল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। কালের কণ্ঠ’র ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রতিনিধি বিশ্বজিৎ পাল বাবু বিতরণ কাজের সমন্বয় করেন। এদিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার ভাটপাড়া গ্রামে ২০ অটিজম শিশু ও পাঁচজন শারীরিক প্রতিবন্ধী ব্যক্তির মাঝে শুভসংঘের সহযোগিতায় বসুন্ধরার খাদ্য সহায়তা দেওয়া হয়েছে। ব্রাহ্মণবাড়িয়া সাংবাদিক ইউনিয়নের আহ্বায়ক মো. মনির হোসেন, জাগ্রত যুব সংগঠনের সমন্বয়ক অন্তর খান, শুভসংঘের সভাপতি হেদায়েতুল আজিজ মুন্না প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। সোমবার কসবার অনন্তপুর গ্রামের গাজী মিয়া পান বসুন্ধরার খাদ্য সহায়তা।

ময়মনসিংহের ফুলপুর উপজেলার ফুলপুর মহিলা ডিগ্রি কলেজ মাঠে ৩০৬ জন প্রতিবন্ধী ব্যক্তি, বিধবা, গৃহ, হোটেল ও দোকানের কর্মী, ভিক্ষুক, রিকশাচালক, পত্রিকার হকার, পুরোহিত, ছিন্নমূল মানুষের মাঝে বসুন্ধরা গ্রুপের ঈদ উপহার বিতরণ করা হয়। এ ছাড়া উপজেলার নগুয়া বাজারসংলগ্ন খাসজমিতে গড়ে তোলা আশ্রয়ণ প্রকল্পের (শেখ হাসিনা পল্লী) ৪৪ জনই পেয়েছে বসুন্ধরার ঈদ উপহার। শুভসংঘ আয়োজিত এসব অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদ সদস্য আবদুল খালেক, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউল করীম রাসেল, ভাইস চেয়ারম্যান রোকেয়া পারভীন লাকী, ইউএনও শীতেষ চন্দ্র সরকার, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক অধ্যাপক হাবিবুর রহমান, থানার ওসি ইমারত হোসেন গাজী, কলেজের অধ্যক্ষ রওশন আরা বেগম, কাউন্সিলর তাসনোভা নাসরীন নিশু, নিশিত কুমার মিঠুন, শুভসংঘের উপদেষ্টা কামরুল হাসান কামু ও শাফায়েত জামিল সাজু, সভাপতি আশরাফ হোসাইন, সাধারণ সম্পাদক জিয়াউর রহমান পান্না, ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম, শুভসংঘের শিখা রানী সরকার বিউটি, মাকসুদা পারভীন, দিদারুল ইসলাম, সোলাইমান কবীর বিশ্বাস, মেজবাহ উদ্দিন, সোহেল রানা, শেখ রাসেল, আয়েশা আক্তার, ফাতেমা আক্তার, জান্নাতুল ফেরদৌস স্বর্ণা, আলমগীর হোসেন, সাকিব মিয়া, আলমগীর ইসলাম, সাখাওয়াত হোসেন, আশিকুর রহমান ট্রনিক, ইকবাল হোসেন, আশা, সৌরভী ও তানিয়া। এর আগে বসুন্ধরার চেয়ারম্যানের জন্য ও করোনা থেকে রক্ষা পেতে মোনাজাত এবং মাস্ক বিতরণ করা হয়। আতাউল করিম রাসেল বলেন, ‘করোনার দুঃসময়ে বসুন্ধরা ফুলপুরেও অসহায়দের মুখে হাসি ফোটাল। শুভসংঘের কার্যক্রম খুবই ভালো। শুভসংঘের প্রতিটি কাজে আমাকে পাবেন।’

[প্রতিবেদনে তথ্য দিয়েছেন কালের কণ্ঠ’র নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা এবং প্রতিনিধি, নরসিংদী, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, মানিকগঞ্জ (আঞ্চলিক), ত্রিশাল (ময়মনসিংহ) ও ফুলপুর (ময়মনসিংহ)]