kalerkantho

বুধবার । ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮। ১৯ মে ২০২১। ৬ শাওয়াল ১৪৪

‘কিভাবে সাহায্য করতে পারি’

শেখ হাসান   

২১ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



‘কিভাবে সাহায্য করতে পারি’

বৃহন্নলা, ১৫ জনের একটি দল, একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। দলের আটজনই তৃতীয় লিঙ্গের। সবার শরীরে কমলা জ্যাকেট। হাতে প্ল্যাকার্ড। সেখানে লেখা—‘আমি স্বেচ্ছাসেবক, কিভাবে সাহায্য করতে পারি?’ বিভিন্ন হাসপাতালের সামনে তাঁরা থাকেন রোগীর অপেক্ষায়।

যখনই কোনো অ্যাম্বুল্যান্স বা সিএনজি চালিত অটোরিকশা হাসপাতালের সামনে এসে দাঁড়ায়, সঙ্গে সঙ্গে তাঁরা এগিয়ে যান। রোগীর মালপত্র গাড়ি থেকে নামিয়ে হাসপাতালের ভেতরে দিয়ে আসা, রোগীকে গাড়ি থেকে নামাতে সাহায়তা করা, যেসব রোগী সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরছে তাদের মালপত্র গাড়িতে উঠিয়ে দেওয়া—এ সবই তাঁদের স্বেচ্ছাসেবী কাজ।

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটের সামনে কথা হয় ওই স্বেচ্ছাসেবী দলের মুখপাত্র ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সাদের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘গেল বছরের করোনার অভিজ্ঞতা থেকে আমরা ১৫ জন মিলে একটা দল গঠন করি। অনেক রোগী হাসপাতালে আসেন মাত্র একজন লোক নিয়ে। ফলে তাঁর একার পক্ষে রোগী ও মালপত্র নামানো কষ্টকর হয়ে পড়ে। এ সময় গাড়ি থেকে রোগী নামাতে আমরা সাহায্য করি।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা আছে। যদি কেউ যানবাহন না পায়, তাহলে আমরা রোগীকে বাসায় পৌঁছে দিয়ে আসি।’

টাকার জোগান কিভাবে হচ্ছে? এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমাদের ফেসবুক গ্রুপ আছে, সেখান থেকে আমরা টাকা সংগ্রহ করি।’

সাদের সঙ্গে কথা বলতে বলতে তৃতীয় লিঙ্গের এক সদস্য এসে উপস্থিত। বললেন তাঁর নাম মুনমুন। আপনি তো আগে রাস্তায় মানুষের কাছ থেকে টাকা তুলতেন, এখন এখানে এসে মানুষের সেবা করছেন, তাও আবার করোনা রোগী, কেন? জবাবে তিনি বলেন, ‘মানুষ যদি আমাকে সাহায্য করতে পারে, আমি কেন সাহায্য করব না? রাষ্ট্র তো আমাকে সব রকম সাহায্য করে, আমার তো রাষ্ট্রকে কিছু দেওয়ার আছে।’



সাতদিনের সেরা