kalerkantho

রবিবার । ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৫ ডিসেম্বর ২০২১। ২৯ রবিউস সানি ১৪৪৩

সবিশেষ

শুক্রাণু পাঠানো হবে চাঁদে!

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৪ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শুক্রাণু পাঠানো হবে চাঁদে!

প্রাণিজগৎ রক্ষা করতে ৬০ লাখ ৭০ হাজার শুক্রাণু চাঁদে পাঠাতে চাচ্ছেন বিজ্ঞানীরা। সম্প্রতি আরিজোনা বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা অ্যারোস্পেস সম্মেলনে এ বিষয়ে একটি গবেষণাপত্র প্রকাশ করেছেন। তাঁরা তুলে এনেছেন বাইবেলের কথিত নোয়ার নৌকার সেই গল্প। সেখানে যেমন এক নৌকায় নোয়া তাঁর পরিবার এবং প্রাণিকুলকে নিয়ে বন্যার হাত থেকে রক্ষা পেয়েছিলেন, তেমনি বিশেষ সংরক্ষণশালা তৈরি করতে চাচ্ছেন বিজ্ঞানীরা, যেটি থাকবে চাঁদে। পৃথিবী গণবিলুপ্তির মুখে পড়লেও সেই সংরক্ষণশালায় থেকে যাবে প্রাণের অস্তিত্ব, যা পরবর্তীকালে প্রাণিজগৎ তৈরি করতে পারবে বলেই দাবি তাঁদের।

গবেষক জেক্যান থাঙ্গারের নেতৃত্বে তৈরি গবেষকদলের প্রস্তাব, এমন একাধিক যান ও সংরক্ষণশালা তৈরি করতে হবে, যাতে সেটি চাঁদে থেকে প্রাণের উৎসগুলোকে রক্ষা করতে পারে। গবেষকরা প্রথমেই বলেছেন, পৃথিবী যেকোনো সময় বিপদের মুখে পড়তে পারে। মানুষের তৈরি দূষণে সেই বিপদ তৈরি হওয়ার আশঙ্কা যেমন থাকে, তেমনি সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বৃদ্ধি থেকে গ্রহাণু আছড়ে পড়া বা অন্য একাধিক কারণে পৃথিবীতে প্রাণ বিলুপ্ত হতে পারে। সেগুলো যেকোনো দিন প্রাণের অস্তিত্বকে সংকটে ফেলতে পারে। ঠেলে দিতে পারে গণবিলুপ্তির দিকে। সেই বিপদ থেকে রক্ষা পেতেই নতুন পথ খুঁজে বের করেছেন বিজ্ঞানীরা।

তাঁরা বলেছেন, চাঁদের প্রাণের উৎস সংরক্ষণের জন্য ‘সংরক্ষণশালা’ হিসেবে মাটির তলায় স্থাপত্য গড়ে তুলতে হবে। সম্প্রতি আবিষ্কৃত চাঁদের গহ্বরে এই সংরক্ষণশালাগুলো তৈরি করা যেতে পারে বলে পরামর্শ তাঁদের। এগুলো চন্দ্রপৃষ্ঠের পরিবর্তনশীল আবহাওয়া থেকে প্রাণের উৎসকে বাঁচাতে পারবে। সংরক্ষণ যানে পর্যায়ক্রমে সংরক্ষিত থাকবে বিভিন্ন স্তরের প্রাণের উৎস; যেমন—শুক্রাণু, ডিম্বাণু ইত্যাদি। থাকবে ছত্রাক এবং একেবারে প্রথম ধাপের প্রাণীর জীবনও। গবেষকরা বলছেন, পৃথিবীতে এমন অনেক প্রাণী আছে, যা বিলুপ্তির মুখে পড়েছে বা অদূর ভবিষ্যতে পড়তে পারে। তাদের বিলুপ্তি থেকে রক্ষা করতে এই পরিকল্পনা কাজে দিতে পারে।

তবে পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য বিপুল খরচের আশঙ্কা রয়েছে। ৫০টি প্রাণীর শুক্রাণু পৌঁছাতে আনুমানিক ২৫০ রকেট লাগবে বলে তাঁরা জানিয়েছেন। ৬১ লাখ শুক্রাণু পাঠাতে বিপুল পরিমাণ খরচ হতে পারে। সূত্র : আনন্দবাজার।



সাতদিনের সেরা