kalerkantho

শুক্রবার । ৪ আষাঢ় ১৪২৮। ১৮ জুন ২০২১। ৬ জিলকদ ১৪৪২

মাটিকাটায় সাবেক এমইএস কর্মী খুন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মাটিকাটায় সাবেক এমইএস কর্মী খুন

রাজধানীর ভাসানটেকের মাটিকাটা এলাকায় বাসায় ঢুকে সেনাবাহিনীর সাবেক এক সিভিল কর্মচারীকে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। হত্যার পর দুর্বৃত্তরা বাসায় তালা ঝুলিয়ে দিয়ে চলে যায়। এ ঘটনায় সন্দেহভাজন কয়েকজনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ। তবে হত্যাকারী কে বা কারা তা এখনো জানা যায়নি বলে জানিয়েছেন ভাসানটেক থানার ওসি দেলোয়ার হোসেন।

তদন্তসংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, গত বৃহস্পতিবার রাত থেকে শুক্রবার সন্ধ্যা পর্যন্ত যেকোনো সময়ে এই হত্যার ঘটনা ঘটে। তবে ঘটনাটি প্রকাশ পায় গতকাল শনিবার সকালে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গতকাল ভোরের দিকে পুলিশ মাটিকাটার ১৬৬/৫ নম্বর বাড়ির ছয়তলার চিলেকোঠার বাসার তালা ভেঙে শাহ আলম (৩৮) নামের ওই ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করে। তিনি অবিবাহিত ছিলেন এবং ওই বাসায় একা থাকতেন। তাঁর পরিচিত বা অপরিচিত কেউ ঢুকে তাঁকে গলা কেটে হত্যা করে। শাহ আলমের গ্রামের বাড়ি ময়মনসিংহের ত্রিশালের হরিরামপুরের মধ্যপাড়ায়। এ ঘটনায় গতকাল তাঁর ছোট ভাই মো. হাফিজুল ভাসানটেক থানায় একটি হত্যা মামলা করেছেন। 

ভাসানটেক থানার ওসি দেলোয়ার হোসেন বলেন, শাহ আলম বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর মিলিটারি ইঞ্জিনিয়ার সার্ভিসেসে (এমইএস) সিভিল কর্মচারী হিসেবে চাকরি করতেন। তাঁকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হতে পারে বলে প্রাথমিক তদন্তে ধারণা পাওয়া গেছে।

এক পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, মাটিকাটার ওই বাড়িতে শাহ আলম দেড় বছর ধরে ভাড়ায় থাকতেন। গত ৩০ ডিসেম্বর রাত থেকে ৩১ ডিসেম্বর ভোরের যেকোনো সময়ে কে বা কারা তাঁকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে গলা কেটে হত্যার পর বাইরে থেকে তালা মেরে পালিয়ে যায়। তাঁর লাশ বিছানায় পড়ে ছিল। মুখে বালিশ চাপা দেওয়া ছিল। পরিবারের লোকজন তাঁর কোনো খোঁজ না পেয়ে শুক্রবার রাতে বাসায় এসে তালা ঝুলতে দেখেন। পরে সন্দেহ হলে তাঁরা পুলিশকে খবর দেন।

পরিবারের সদস্যরা পুলিশকে জানিয়েছেন, শাহ আলমের সঙ্গে কারো কোনো শত্রুতা ছিল কি না তাঁদের জানা নেই। বাড়ির মালিকও পুলিশের কাছে একই তথ্য জানিয়েছেন। নিহতের মোবাইল ফোনের কললিস্ট যাচাই-বাছাই করে দেখছে পুলিশ।



সাতদিনের সেরা