kalerkantho

মঙ্গলবার । ১২ মাঘ ১৪২৭। ২৬ জানুয়ারি ২০২১। ১২ জমাদিউস সানি ১৪৪২

সবিশেষ

প্রাণের উপযুক্ত পরিবেশ ছিল মঙ্গলে

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৫ নভেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রাণের উপযুক্ত পরিবেশ ছিল মঙ্গলে

নাসার গবেষণায় মঙ্গল গ্রহ নিয়ে উঠে এলো চমকপ্রদ তথ্য। নাসার মঙ্গল যান ‘কিউরিওসিটি’র পাঠানো তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, মঙ্গলে যে বিশাল শুকনো হ্রদ আছে, সেগুলোতে প্রায় ৪০০ কোটি বছর আগে ভয়ানক বন্যা হয়েছিল। মঙ্গলে একসময় প্রাণের উপযুক্ত পরিবেশ ছিল।

‘কিউরিওসিটি’ ২০১১ সালের নভেম্বর থেকে আছে মঙ্গলে। তখন থেকেই গ্রহের আদিম জলভাগের পলি পরীক্ষা করে তথ্য পাঠাচ্ছে এটি। তথ্যের ভিত্তিতে মনে করা হচ্ছে, এই ভয়ানক বন্যার পানি শুকিয়ে গিয়েছিল গ্রহাণুর ধাক্কায়, মঙ্গলে তীব্র উত্তাপ তৈরি হওয়ার ফলে। সেই ধাক্কাতেই বরফ গলে তৈরি হয়েছিল বন্যা।

যুক্তরাষ্ট্রের কর্নেল বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক আলবার্টো জি বলেন, “প্রথমবারের জন্য আমরা মঙ্গলের ‘মেগাফ্লাড’ বা বিশাল আকারের বন্যার তথ্য হাতে পাচ্ছি। বিজ্ঞানীদের হাতে এসে পৌঁছেছে কিউরিওসিটি যানের করা পলি পরীক্ষার তথ্যও। এর ভিত্তিতেই বিজ্ঞানীরা বলেছেন, প্রায় ৪০০ কোটি বছর আগে মঙ্গল থেকে পানির অস্তিত্ব মুছে গিয়েছিল।”

স্রোতের মতো পলির যে স্তর দেখা গেছে মঙ্গলে, তা বন্যারই চিহ্ন বয়ে নিয়ে চলেছে। লাল গ্রহের শুকিয়ে যাওয়া হ্রদের যে চেহারা দেখা গেছে, পৃথিবীতেও বরফ গলে পানি প্রবাহিত হওয়ার এমন রূপ তৈরি হয়েছিল প্রায় ২০০ কোটি বছর আগে।

গবেষণায় বলা হয়েছে, এই ভয়ানক বন্যা তৈরি হওয়ার কারণ বরফ গলে যাওয়া। হয়তো কোনো গ্রহাণুর সঙ্গে সংঘর্ষ হওয়ার ফলে মঙ্গলের ভূমিতে থাকা বরফ গলে গিয়েছিল, সেই কারণেই বন্যার পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল। সূত্র : আনন্দবাজার।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা