kalerkantho

রবিবার । ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৯ নভেম্বর ২০২০। ১৩ রবিউস সানি ১৪৪২

কোটচাঁদপুরে দুটি মালবাহী ট্রেনের সংঘর্ষ

তেলে এলাকা সয়লাব

ঝিনাইদহ ও কোটচাঁদপুর প্রতিনিধি   

২৮ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



কোটচাঁদপুরে দুটি মালবাহী ট্রেনের সংঘর্ষ

চালকের ভুলে দুটি মালবাহী ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষে তেলবাহী ট্রেনের তিনটি কনটেইনার ফেটে এলাকা তেলে সয়লাব হয়ে যায়। ওই তেল সংগ্রহে রাতে এলাকাবাসী হাঁড়ি-পাতিল নিয়ে দৌড়াদৌড়ি করতে থাকে। ঘটনাটি ঘটেছে ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর উপজেলার সাবদালপুর রেলস্টেশনে গত সোমবার রাত পৌনে ২টার দিকে। এ ঘটনায় খুলনা ও যশোরের সঙ্গে পুরো দেশের রেল যোগাযোগ ৯ ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর গতকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টায় ফের চালু হয়েছে। তবে এ ঘটনায় কেউ হতাহত হয়নি।

দুটি মালবাহী ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষে তেলবাহী ট্রেনটি লাইনচ্যুত হয়ে যাওয়ায় ইঞ্জিন, তেলের কনটেইনার ও লাইনের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। সংঘর্ষে তেলের তিনটি কনটেইনার ফেটে আশপাশের খানাখন্দ ভরে উপচে রাস্তার ওপর দিয়ে স্রোত বইতে থাকে।

বিষয়টি নিয়ে পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। সেই সঙ্গে তেলবাহী ট্রেনের চালক আনিছুর রহমানকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

ওই এলাকার বাবু মিয়া জানান, কোটচাঁদপুর উপজেলার সাবদালপুর রেলস্টেশনের প্ল্যাটফর্মের পূর্ব প্রান্তে সোমবার রাত পৌনে ২টার দিকে দুটি ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষ হলে বিকট শব্দে ঘুম ভেঙে আশপাশের লোকজন ঘর থেকে বেরিয়ে আসে। তারা দেখে, তেলবাহী ট্রেনের কনটেইনার তিনটির (বিটিও) একটি লাইনের ধারে উল্টে পড়ে আছে। দুটি কনটেইনার একটি আরেকটির ওপর উঠে গিয়ে তিনটি কনটেইনার থেকে তেল পড়ে আশপাশের খানাখন্দ ভরে রাস্তার ওপর দিয়ে স্রোত বইতে থাকে। এ সময় এলাকাবাসী হাঁড়ি-পাতিল নিয়ে তেল সংগ্রহ করতে থাকে। গতকাল সকাল ৯টা পর্যন্ত চলে এই তেল সংগ্রহ।

সাবদারপুর রেলস্টেশন মাস্টার গোলাম মোস্তফা জানান, সোমবার রাতে প্রথমে দর্শনা থেকে খুলনাগামী মালবাহী ডিজিএম-২৬ ডাউন ট্রেনটি স্টেশনের ১ নম্বর লাইনে দাঁড়ানোর জন্য সিগন্যাল দেয়। ট্রেনটি প্ল্যাটফর্মে ঢুকে দাঁড়ানোর সময় খুলনা থেকে পার্বতীপুরগামী তেলবাহী ট্রেনটি অন্য দিক থেকে সিগন্যাল অমান্য করে ১ নম্বর লাইনে ঢুকে পড়লে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

গোলাম মোস্তফা জানান, গতকাল ভোরে ঈশ্বরদী থেকে উদ্ধারকারী ট্রেন ঘটনাস্থলে পৌঁছে সকাল ৭টায় উদ্ধারকাজ শুরু করে। উদ্ধারকাজ শেষে সকাল ১১টার পর পুনরায় ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়।

রেল সূত্র জানায়, প্রতিটি কনটেইনারে ২৬ হাজার লিটার করে তেল ছিল। যা সম্পূর্ণ পড়ে গেছে। এই তেলের মালিক পেট্রোবাংলা।

এদিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন স্থানীয় এমপি ও রেলওয়ে মন্ত্রণালয়ের স্থায়ী কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট শফিকুল আজম খান চঞ্চল, রেলওয়ের প্রধান পরিবহন কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম এবং স্থানীয় উপজেলা চেয়ারম্যান শরিফুননেছা মিকি। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা