kalerkantho

বুধবার । ২৮ শ্রাবণ ১৪২৭। ১২ আগস্ট ২০২০ । ২১ জিলহজ ১৪৪১

সবিশেষ

ফেলনা প্লাস্টিকে তৈরি হলো রাস্তা

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১১ জুলাই, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ফেলনা প্লাস্টিকে তৈরি হলো রাস্তা

দূষণ কমাতে ভারতে ফেলনা প্লাস্টিক দিয়ে সড়ক নির্মাণের ঘোষণা এসেছিল ২০১৬ সালে। এরই মধ্যে এক লাখ কিলোমিটার রাস্তা তৈরি হয়েছে ফেলে দেওয়া প্লাস্টিক ব্যবহার করেই। চলতি বছরের মধ্যে এমন আরো দুই লাখ কিলোমিটার সড়ক তৈরি করবে দেশটি।

প্লাস্টিকের বর্জ্য দিয়ে প্রথম রাস্তা তৈরির কৌশল দেখিয়েছিলেন মাদুরাইয়ের থিয়াগরজার ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের অধ্যাপক পদ্মশ্রীপ্রাপ্ত রাজাগোপালন বাসুদেবন। ২০০১ সালেই তিনি অ্যাসফল্ট বা বিটুমিনের মিশ্রণের সঙ্গে বর্জ্য প্লাস্টিক মিশিয়ে পরীক্ষামূলকভাবে রাস্তা তৈরির পদ্ধতি দেখিয়েছিলেন। এর পর থেকেই ভারতে এই পদ্ধতির প্রয়োগ শুরু হয়। ভারত ছাড়াও ইন্দোনেশিয়া, ব্রিটেন, অস্ট্রেলিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রে বর্জ্য প্লাস্টিক দিয়ে রাস্তা তৈরির উন্নত প্রযুক্তি রয়েছে। ফেলে দেওয়া যে প্লাস্টিক পুনর্ব্যবহারযোগ্য নয়, সেগুলোকেই বিশেষ রাসায়নিক প্রক্রিয়ায় রাস্তা তৈরির উপাদান হিসেবে ব্যবহার করা হয়। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, প্রতি কিলোমিটার প্লাস্টিকের রাস্তা তৈরি করতে প্রায় ৯ টন বিটুমিন ও এক টন প্লাস্টিক লাগে। অপরিশোধিত পেট্রোলিয়াম থেকে তৈরি হয় বিটুমিন, যা হাইড্রোকার্বনের মিশ্রণ, সড়ক নির্মাণের কাজে লাগে। প্রাকৃতিকভাবেও পাওয়া যায় বিটুমিন। সাধারণত প্লাস্টিক দিয়ে তৈরি রাস্তার ৬ থেকে ৮ শতাংশ থাকে বর্জ্য প্লাস্টিক, বাকি ৯২ থেকে ৯৪ শতাংশ থাকে বিটুমিন।

ভারতে প্রথম চেন্নাইয়েই এক হাজার কিলোমিটার রাস্তা তৈরি হয়েছিল বর্জ্য প্লাস্টিক দিয়ে। এরপর পুনে, মুম্বাই, সুরাট, ইনদওর, দিল্লি, লখনউতে প্লাস্টিকের সড়ক নির্মাণ শুরু হয়। জানা গেছে, এক হাজার ৬০০ টন বর্জ্য প্লাস্টিক ব্যবহার করে চেন্নাইয়ে এক হাজার ৩৫ কিলোমিটার রাস্তা তৈরি হয়েছে। ২০১৬ সালে পুনেতে ১৫০ মিটার রাস্তা তৈরি হয় বিটুমিন ও বর্জ্য প্লাস্টিক ব্যবহার করে। টাটা স্টিলের অনুদানপ্রাপ্ত সংস্থা জামশেদপুর ইউটিলিটি অ্যান্ড সার্ভিসেস প্রায় ১২ থেকে ১৫ কিলোমিটার রাস্তা তৈরি করেছে বর্জ্য প্লাস্টিক দিয়ে, যার এক কিলোমিটারের মতো রয়েছে রাঁচিতেই। মধ্য প্রদেশ গ্রামীণ সড়ক যোজনায় ১৭টি জেলায় ৩৫ কিলোমিটারের বেশি রাস্তা তৈরি হয়েছে বর্জ্য প্লাস্টিক দিয়ে।

জম্মু-কাশ্মীরে ২৭০ কিলোমিটার জাতীয় সড়ক বর্জ্য প্লাস্টিক দিয়েই তৈরি। দিল্লি-মেরঠ জাতীয় সড়কের দুই কিলোমিটার রাস্তা তৈরি হয়েছে ১ দশমিক ৬ টন ফেলে দেওয়া প্লাস্টিক থেকে।

ভারতের কেন্দ্রীয় পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, দেশটিতে প্রতিদিন প্রায় ২৫ হাজার ৯৪০ টন বর্জ্য প্লাস্টিক জমা হয়, যার ৬০ শতাংশ পুনর্ব্যবহার করা হয়। বাকিটা ফেলে দেওয়া হয়, যা নদী-নালা, সমুদ্রে গিয়ে মেশে। ফলে নদী ও সমুদ্রে মাইক্রো-প্লাস্টিক জাতীয় বর্জ্য জমা হতে থাকে, যার প্রভাব পড়ে সামুদ্রিক প্রাণীদের ওপর। বাস্তুতন্ত্রের ভারসাম্য নষ্ট হয়।

প্লাস্টিক দিয়ে রাস্তা নির্মাণে এই উদ্যোগ স্বচ্ছ ভারত অভিযানেরই একটি অংশ। ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিটুমিন ও প্লাস্টিকের মিশ্রণে তৈরি এই রাস্তাগুলো অনেক বেশি মজবুত। যেকোনো প্রাকৃতি দুর্যোগেও নাকি অনেক বেশি টেকসই। সূত্র : দ্য ওয়াল।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা