kalerkantho

সোমবার । ১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ১  জুন ২০২০। ৮ শাওয়াল ১৪৪১

করোনাযোদ্ধা

‘সুস্থ হলে আবার যুদ্ধে নামব’

বারহাট্টা (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি   

২২ মে, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



‘সুস্থ হলে আবার যুদ্ধে নামব’

দেশে কভিড-১৯ রোগীর সংখ্যা বেড়েই চলেছে। গত কয়েক দিন হাজারের বেশি নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছেন। যাঁদের বেশির ভাগই হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন। চিকিৎসাসেবা দিতে গিয়ে মারাত্মক ছোঁয়াচে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছেন কভিড-১৯ মোকাবেলায় আত্মনিবেদিত চিকিৎসাযোদ্ধারাও। মারাও যাচ্ছেন তাঁদের কেউ কেউ। তাঁরা জানেন না কতটা কঠিন তাঁদের সামনের সময়টুকু। তবু চিকিৎসকদের মাঝে অনেকেই রয়েছেন, যাঁরা সুস্থ হলে আবারও করোনা রোগীদের সেবাদানে প্রত্যয়ী। এমনই এক চিকিৎসক নেত্রকোনার বারহাট্টা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত কমিউনিটি মেডিক্যাল অফিসার আব্দুর রউফ। তিনি করোনায় (কভিড-১৯) আক্রান্ত হয়েছেন।

ডা. আব্দুর রউফ দীর্ঘদিন ধরে বারহাট্টায় কর্মরত আছেন। রোগীদের দিন-রাত চিকিৎসাসেবা দিয়ে যাচ্ছিলেন নিরলসভাবে। পরিবার বারহাট্টায় থাকে না। করোনা পরিস্থিতির কারণে ছুটি নিয়ে বাড়ি যাওয়ারও সুযোগ নেই। স্ত্রী, সন্তান, বৃদ্ধ মা অপেক্ষায় থাকেন—কবে আসবে তাঁদের প্রিয়জন। রউফ ফোনে পরিবারকে সান্ত্বনা দেন—‘এই তো আর কটা দিন, তার পরই চলে আসব। চিন্তা করো না তোমরা।’ কিন্তু তাঁর আর বাড়ি যাওয়া হয় না। যেহেতু তিনি একজন চিকিৎসক, তাই তাঁকেও নমুনা পরীক্ষা করাতে হয়। আব্দুর রউফ বলেন, ‘আমার কোনো উপসর্গ নেই। হাসপাতালে রোগীদের নিয়মিত সেবাদান করি। তাই নিয়মমাফিক গত ১৫ এপ্রিল নমুনা দিই। ১৭ তারিখে করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে। সবার দোয়া চাই।’

তবে নিজে অদৃশ্য ঘাতক করোনা আক্রান্ত নিশ্চিত হওয়ার পরও রউফ দমে যাননি। স্বপ্ন দেখেন সুস্থ হয়ে কাজে ফেরার। তিনি বলেন, ‘এখন ভয় পাওয়ার সময় না। এ সময় আমাদের অনেক শক্তিশালী হতে হবে। আমাদের চিকিৎসাসেবা দিতে হবে। প্রমিজ করে এ পেশায় এসেছি। যদি সুস্থ হই, আবার যুদ্ধে নামব। জয়ী হব ইনশাআল্লাহ।’

উল্লেখ্য, এ পর্যন্ত বারহাট্টায় ১৪ জনের কভিড-১৯ পজিটিভ শনাক্ত হয়েছে। তার মধ্যে ১০ জন সুস্থ হয়েছেন। বাকি সবাই নিজ নিজ বাড়িতে (হোম কোয়ারেন্টিন) থেকে চিকিৎসা গ্রহণ করছেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা