kalerkantho

বৃহস্পতিবার  । ২৬ চৈত্র ১৪২৬। ৯ এপ্রিল ২০২০। ১৪ শাবান ১৪৪১

প্রাণের মেলা

বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনির চাহিদা বেশি

আজিজুল পারভেজ   

২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৬ মিনিটে



বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনির চাহিদা বেশি

বাংলাদেশে সায়েন্স ফিকশন বা বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনির শুরুটা হুমায়ূন আহমেদের হাত ধরে। জনপ্রিয়তার চূড়ায় এনেছেন মুহম্মদ জাফর ইকবাল। এখন লিখছেন অনেকেই। মেলায় ভালোই বিকোচ্ছে বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনি। তবে চাহিদার তুলনায় বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনির বই প্রকাশিত হয় কম। প্রথম ২২ দিনে মেলায় মোট বই যেখানে এসেছে তিন হাজার ৬৬১টি, সেখানে বিজ্ঞানের বই মাত্র ৬৮টি।

বিজ্ঞানবিষয়ক বইয়ের প্রকাশনা সম্পর্কে জানতে চাইলে অনুপম প্রকাশনীর মিলন নাথ বলেন, ‘বিজ্ঞানমনস্ক জাতি গঠন করতে হলে বিজ্ঞানের পাঠক তৈরি করতে হবে। সেই দায়বোধ থেকে বিজ্ঞানের বই প্রতিবছরই প্রকাশ করি আমরা। এ বছরও ১০টি বই বের করেছি। বিজ্ঞানের বই খুব বেশি চলে বলব না আবার না চললে তো বের করতাম না।’

বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনির চাহিদা সম্পর্কে অনিন্দ্য প্রকাশের আফজাল হোসেন বলেন, বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনির চাহিদা সবচেয়ে বেশি। কবিতা, গল্প, এমনকি উপন্যাসের চেয়েও বেশি চলে এই বই। কিন্তু সায়েন্স ফিকশন লেখার মতো লেখক তো বেশি নেই দেশে।

মুহম্মদ জাফর ইকবালের দুটি বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনি এসেছে এবারের মেলায়। ‘গ্লিনা’ প্রকাশ করেছে সময় প্রকাশন এবং ‘প্রজেক্ট আকাশনীল’ প্রকাশ করেছে তাম্রলিপি।

মোশতাক আহমেদের ‘ইলিন’, দীপু মাহমুদের ‘ভূ’ ও ‘হেপোক্যাম্পাস’, নাসিম সাহনিকের ‘আর্টিফিশিয়াল স্পাগিজ’ এবং অরুণ কুমার বিশ্বাসের ‘জোহানেসবার্গে জিঘাংসা’ প্রকাশ করেছে অনিন্দ্য প্রকাশ।

শেখ আবদুল হাকিমের ‘অচেনা অন্ধকার’ ও রূপান্তরিত গ্রন্থ জো আর ল্যান্ডসডেলের ‘ওয়েস্টার্ন ম্যাজিক ওয়্যাগান’ প্রকাশ করেছে আফসার ব্রাদার্স।

বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনির কয়েকটি অনুবাদগ্রন্থ মেলায় এনেছে অবসর। এর মধ্যে আছে ননী ভৌমিক অনূদিত আলেক্সান্দর বেলায়েভের ‘হেটি-টেটি’ ও ‘উভচর মানুষ’, তামান্না মিনহাজ অনূদিত এইচ জি ওয়েলসের ‘দ্য টাইম মেশিন’ এবং আফরোজা বেগমের ‘সিয়ান অথবা নাবিলা’।

দীপু মাহমুদের ‘সায়েন্স ফিকশন সমগ্র’ ১ ও ২ এবং আসিফ মেহ্্দীর ‘সায়েন্স ফিকশন সমগ্র’ প্রকাশ করেছে অনন্যা। মুনির হাসানের ‘ময়াল’ প্রকাশ করেছে তাম্রলিপি। শফিকুল ইসলামের ‘টাইলিন’ প্রকাশ করেছে পাঞ্জেরী। আরকান ফয়সালের ‘আর্টিস্ট’ প্রকাশ করেছে ভাষাচিত্র। বদরুল আলমের ‘এক্স ওয়ার্ল্ড’ ও ‘অপারেশন ব্লাকহোল’ প্রকাশ করেছে আহমদ পাবলিশিং হাউস। দীপন মজুমদারের ‘অন্তুর অ্যান্টিম্যাটার’ এনেছে ম্যাগনাম ওপাস।

বিজ্ঞানবিষয়ক বইয়ের মধ্যে মুহাম্মদ ইব্রাহিমের ‘বিজ্ঞান জিনিসটি কী’ প্রকাশ করেছে অনন্যা। বিস্মৃতির মেঘে ঢেকে যাওয়া বাঙালি বিজ্ঞানীদের নিয়ে অতনু চক্রবর্ত্তীর ‘মেঘে ঢাকা তারা’ দ্বিতীয় খণ্ড প্রকাশ করেছে ঐতিহ্য। আলমগীর কবিরের ‘মনের জানালায় বিজ্ঞান’ ও ড. আবদুর রাজ্জাক খানের ‘স্মরণীয় বরণীয়-২’ প্রকাশ করেছে পার্ল পাবলিকেশনস।

আসিফ অনূদিত ‘কসমস’ ও ‘কার্ল সাগান : এক মহাজাগতিক পথিক’ প্রকাশ করেছে সাহিত্য প্রকাশ।

প্রথমা মেলা উপলক্ষে প্রকাশ করেছে বিজ্ঞানবিষয়ক বেশ কয়েকটি বই। এর মধ্যে রয়েছে শিশির কুমার ভট্টাচার্য্যের ‘আইনস্টাইন : জীবন ও আপেক্ষিক তত্ত্ব’, আবুল বাসার অনূদিত মিচিও কাকুর ‘ফিজিকস অব দ্য ইমপসিবল’, আহমাদ মোস্তফা কামালের ‘আমাদের মহাজাগতিক পরিচয়’ ও আবুল বাসার সম্পাদিত ‘চন্দ্রবিজয়ের ৫০ বছর’।

হাসান তারেক চৌধুরীর ‘সময় : বিজ্ঞান ও অনুভবে’, সৌমেন হাজরার ‘আইনস্টাইন সহজ পাঠ’ ও শেখ আনোয়ারের ‘পদার্থবিজ্ঞানের কারখানা’ প্রকাশ করেছে ভাষাচিত্র।

বিজ্ঞানবিষয়ক অনেকগুলো নতুন বই প্রকাশ করেছে অনুপম প্রকাশনী। এর মধ্যে আছে মিলন নাথ, সৌমেন সাহা ও সৌমিত্র চক্রবর্তী সম্পাদিত ‘পৃথিবী ও মহাকাশ’, ‘প্রাণীজগৎ ও মানবদেহ’, ‘সংখ্যা ও বিজ্ঞান’, ‘পৃথিবী’ এবং ‘মহাকাশ’, সৌমেন সাহার ‘আকাশ দেখা ভারী মজা’, ‘কোয়ান্টাম মেশিন’ ও ‘হাতে কলমে বিজ্ঞান’।

প্রদীপ দেবের ‘সবার জন্য আইনস্টাইন’ প্রকাশ করেছে তাম্রলিপি। শেখ আনোয়ারের ‘পানি দিয়ে বিজ্ঞান খেলি’ প্রকাশ করেছে শোভা প্রকাশ। 

মেলায় প্রকাশিত বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনি ও বিজ্ঞানবিষয়ক বইয়ের মধ্য থেকে নির্বাচিত চারটি বইয়ের তথ্য তুলে ধরা হলো।

‘বিজ্ঞান জিনিসটি কী’ : বিজ্ঞান দাবি করে যে দেখা না গেলেও তার তত্ত্বে দেওয়া সব জিনিসই সত্য, এগুলো প্রকৃতিতে বাস্তবেই রয়েছে। এ নিয়ে রয়েছে নানা প্রশ্ন। বিজ্ঞানকে কিছুটা অন্তরঙ্গভাবে চেনার চেষ্টা করার জন্যই এ বই। গ্রন্থটিতে তা করা হয়েছে। লিখেছেন মুহাম্মদ ইব্রাহিম। প্রকাশ করেছে অনন্যা। বইটির মূল্য ১২৫ টাকা।

‘গ্লিনা’ : গ্লিনা তার কথা শেষ করতে পারে না। তার আগেই আবার খিলখিল করে হাসতে শুরু করে। হাসতে হাসতে মেয়েটি যখন তার কোমরে ঝোলানো অস্ত্রটি খুলে নিতে থাকে তখন কিজানের মনে হয় মেয়েটি কী অপূর্ব সুন্দরী, কী নিষ্পাপ তার দুটি চোখ, কী অপূর্ব স্বর্গের দেবীর মতো তার চেহারা। তীক্ষ দৃষ্টিতে তাকিয়ে থেকেও বোঝা সম্ভব না এই মেয়েটি সত্যিকারের মানুষ নয়। এ বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনি লিখেছেন মুহম্মদ জাফর ইকবাল। প্রকাশ করেছে সময় প্রকাশন। মূল্য ২৪০ টাকা।

‘আমাদের মহাজাগতিক পরিচয়’ : বিজ্ঞানের ছাত্র ও শিক্ষক কথাশিল্পী আহমাদ মোস্তফা কামালের বিজ্ঞানবিষয়ক প্রথম গ্রন্থ। এই বইয়ে আছে আমাদের চেনা-পরিচিত জগৎ আর আপাতভাবে অচেনা জগৎও। পরমাণু আর মৌলিক কণার গহিন জগিটকে যেমন পরিচয় করিয়ে দিয়েছেন তিনি, তেমনি আমাদের দৈনন্দিন জীবনের সঙ্গে জড়িয়ে থাকা বিষয়গুলোকে নতুন করে ব্যাখ্যা করেছেন, জানিয়েছেন মহাজাগতিক ইতিহাসের কথাও। প্রকাশ করেছে প্রথমা। মূল্য ২২০ টাকা।

‘ইলিন’ : ২২২০ সাল। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি গবেষণাগারের প্রধান অধ্যাপক রাইবাট। ব্যস্ততার কারণে তিনি ও তাঁর চিকিৎসক স্ত্রী মিলিয়া সময় দিতে পারেন না একমাত্র সন্তান হ্যারিকে। তাই ১০ বছরের হ্যারির জন্য একটি ক্লোন কিনেছেন তিনি, নাম ইলিন। এই বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনি লিখেছেন মোশতাক আহমেদ। প্রকাশ করেছে অনিন্দ্য প্রকাশ। মূল্য ২৫০ টাকা।

গতকালের মেলা

গতকাল রবিবার অমর একুশে গ্রন্থমেলার ২২তম দিনে নতুন বই এসেছে ১৫৪টি। মেলার মূল মঞ্চে বিকেলে অনুষ্ঠিত হয় মুর্শিদা বিনেত রহমান রচিত ‘স্বাধীনতার পথে বঙ্গবন্ধু : পরিপ্রেক্ষিত ১৯৭০-এর নির্বাচন’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ পাঠ করেন মুস্তাফিজ শফি। আলোচনায় অংশ নেন আখতার হুসেন, মাহবুব সাদিক ও আলম খোরশেদ। লেখকের বক্তব্য প্রদান করেন মুর্শিদা বিনেত রহমান। সভাপতিত্ব করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা