kalerkantho

রবিবার । ২২ চৈত্র ১৪২৬। ৫ এপ্রিল ২০২০। ১০ শাবান ১৪৪১

ট্রাম্প আজ ভারতে আসছেন

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ট্রাম্প আজ ভারতে আসছেন

ছবি: ইন্টারনেট

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আজ সোমবার ৩৬ ঘণ্টার এক সফরে ভারতে আসছেন। যুক্তরাষ্ট্রের সপ্তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে ভারতে পা রাখবেন তিনি। সাক্ষাৎ হবে ‘আমেরিকা ফার্স্ট’ স্লোগানের প্রবক্তার সঙ্গে ‘মেক ইন ইন্ডিয়া’ স্লোগানের স্রষ্টা ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির। এ সফর মূলত রাজনৈতিক; বাণিজ্য এর উদ্দেশ্য নয়। বরং বলা যেতে পারে, আগামী নভেম্বরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন সামনে রেখে এ সফর করছেন ট্রাম্প। অংশ নেবেন লক্ষাধিক জনসমাগমের ‘নমস্তে ট্রাম্প’ সমাবেশে। যেমন—গত বছর ভারতের প্রধানমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রে গিয়ে ‘হাউডি মোদি’ সমাবেশে অংশ নিয়েছিলেন; যেখানে প্রায় অর্ধলক্ষ ভারতীয় অংশ নেয়। 

ট্রাম্প ভারতের তিনটি শহরে যাবেন—রাজধানী দিল্লি, আগ্রা—তাজমহল দেখবেন ট্রাম্প আর গুজরাটের রাজধানী আহমেদাবাদ— ‘নমস্তে ট্রাম্পের’ আয়োজন এ শহরেই। ট্রাম্পের আগমন উপলক্ষে ব্যাপক প্রস্তুতি চলছে ভারতে—রাস্তাঘাট মেরামত, উঁচু দেয়াল তুলে রাস্তার ধারে বস্তি ঢেকে দেওয়া থেকে শুরু করে যমুনা নদীর (এ নদীর তীরেই তাজমহল) দুর্গন্ধ ঢাকতে পরিষ্কার পানি ছাড়া পর্যন্ত। গতকাল রবিবার বিকেলে দেওয়া এক টুইটে মোদি বলেন, ‘ভারত মার্কিন প্রেসিডেন্ট দম্পতির সফরের জন্য আগ্রহ নিয়ে অপেক্ষা করছে। কাল তিনি আমাদের সঙ্গে থাকবেন—আমাদের জন্য এটা এক বড় সম্মান। আহমেদাবাদে ঐতিহাসিক কর্মসূচি দিয়ে তাঁর এ সফর শুরু হবে।’

ট্রাম্পের সফরসঙ্গী হিসেবে আসছেন ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্প, তাঁর বড় মেয়ে ইভানকা ট্রাম্প ও জামাতা জারেড কুশনার। তবে ট্রাম্পের বাণিজ্য উপদেষ্টা রবার্ট লাইথাইজার ভারত সফরে আসছেন না। খুব সম্ভবত দুই দেশের মধ্যে একটি বাণিজ্যচুক্তি এই সফরে স্বাক্ষর হবে। সেটাও খুব বড় কিছু হবে। ভারতের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য সংকট বিস্তর। ঘাটতিও বড়। যুক্তরাষ্ট্রের আপেল, আখরোট, চিকিৎসাসামগ্রীর দাম, ইস্পাতের ওপর নতুন করে বসানো শুল্ক নিয়ে ভারতের আপত্তি রয়েছে। ওয়াশিংটন ভারতের দুগ্ধজাত পণ্য, হাঁস-মুরগি, ই-কমার্স বাজার নিয়ে অসন্তুষ্ট। দুই দেশের বাণিজ্য অবশ্য গত ১০ বছরে ফুলে-ফেঁপে উঠেছে। ২০০৮ সালে তাদের বাণিজ্যের পরিমাণ ছিল ছয় হাজার ৬০০ কোটি ডলার, যা ২০১৮ সালে এসে দাঁড়িয়েছে ১৪২ হাজার কোটি ডলার। এ সময়ের মধ্যে ভারতের অর্থনীতি প্রতিবছর ৭-৮ শতাংশ করে বেড়েছে। তবে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে ভারতের প্রবৃদ্ধি কমছে। যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনীতিও অবশ্য আগের পরিস্থিতিতে নেই।

অন্যদিকে বিশ্ববাজারে অস্ত্রের বড় অমদানিকারক ভারত। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ভারতের বড় ধরনের প্রতিরক্ষাচুক্তিও রয়েছে। যদিও ২০০৮ সালেই এই দুই দেশের মধ্যে অস্ত্র বাণিজ্যের পরিমাণ ছিল শূন্যের ঘরে। ২০১৯ সালে এসে এই বাণিজ্যের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে দেড় হাজার কোটি ডলার।

তবে এসব চুক্তি বা বাণিজ্য নিয়ে আলোচনা ট্রাম্পের এ সফরের মূল লক্ষ্য নয়। বরং যুক্তরাষ্ট্রে প্রবাসী ২৪ লাখ ভারতীয়র যে বিশাল ভোটব্যাংক, তাদের আকৃষ্ট করাই ট্রাম্পের মূল উদ্দেশ্য। পাশাপাশি বড় জনসভা, প্রচুর জনসমাগম, ধুমধাম ও জাঁকজমকের প্রতি ট্রাম্পের যে আকর্ষণ, সেই আগ্রহও এই সফর থেকে সফলভাবে সম্পন্ন হবে বলে আশায় আছেন তিনি। ধুমধাড়াক্কা একটি সফর বিশ্ববাসীর সামনে বিশেষ করে মার্কিন ভোটারদের সামনে তুলে ধরবেন ট্রাম্প। আর তাতে তেল-মসলা জোগাবেন মোদি। জলবায়ুচুক্তি থেকে ট্রাম্পের বের হয়ে যাওয়া, চীনের সঙ্গে পায়ে পা বাধিয়ে বাণিজ্য বিরোধ, মধ্যপ্রাচ্যে উত্তাপ বাড়ানো, রাশিয়াপ্রীতি মিলিয়ে পররাষ্ট্রনীতি নিয়ে ট্রাম্প যে সংকটজনক পরিস্থিতির মধ্যে রয়েছেন, তাতে চুনকাম করার সফর হতে যাচ্ছে এটি; যেখানে লোক-দেখানো সব কিছুই থাকবে কিন্তু বিদ্যমান বিবাদের কোনো মীমাংসা হবে না। সূত্র : এএফপি, বিবিসি।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা