kalerkantho

সোমবার । ২৩ চৈত্র ১৪২৬। ৬ এপ্রিল ২০২০। ১১ শাবান ১৪৪১

চট্টগ্রামে ফিরে নাছির

প্রধানমন্ত্রীকে মেয়র পদটি উপহার দেব

আ. লীগের প্রার্থী রেজাউল কাল ফিরছেন

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



প্রধানমন্ত্রীকে মেয়র পদটি উপহার দেব

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাওয়া এম রেজাউল করিম চৌধুরী আগামীকাল ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম আসছেন। ট্রেনে করে বুধবার দুপুরে তাঁর চট্টগ্রাম আসার কথা রয়েছে। এ সময় নগরের পুরাতন রেলস্টেশন চত্বরে তাঁকে বিপুল সংবর্ধনা দেওয়ার কথা রয়েছে।

এদিকে গতকাল সোমবার বিকেলে ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম আসেন মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীন। আসন্ন চসিক নির্বাচনে তিনি দল থেকে এবার মনোনয়ন না পেলেও গতকাল তাঁর আগমনকে ঘিরে চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এবং মেয়রের বাসভবনের সামনে দলীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকদের উপচে পড়া ভিড় ছিল। এ সময় কর্মীরা আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন। কেউ কেউ কান্নায় ভেঙে পড়েন।

বাসভবনের সামনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মেয়র আ জ ম নাছির বলেন, ‘রেজাউল করিম ভাইয়ের সঙ্গে আজকেও আমার কথা হয়েছে। গতকালও আমরা কথা বলেছি। আগামী পরশু দিন (বুধবার) তিনি চট্টগ্রামে আসবেন। তাঁকে রেলস্টেশন চত্বরে আমরা বরণ করে নেব। এরপর নগর আওয়ামী লীগের নেতারা সবাই তাঁর সঙ্গে বসে কিভাবে সিটি নির্বাচন পরিচালনা করা হবে তার কৌশল ঠিক করব। তাঁকে বিজয়ী করার জন্য আমার যতটুকু সামর্থ্য আছে তার শতভাগ উজাড় করে দেব। জীবনবাজি রেখে চেষ্টা চালিয়ে যাব। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে সিটি মেয়র পদটি উপহার দেব।’

আ জ ম নাছির বলেন, ‘মনোনয়ন আমার পৈতৃক সম্পত্তি নয়।

আজীবন আমি একটি পদে থাকব না। প্রত্যেকেই ক্রমান্বয়ে পদে আসবেন। এটি সাধারণ বিষয়। কেউ আসবেন, কেউ বিদায় নেবেন, এটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া। এসব নিয়ে কাল্পনিক কারণ খোঁজাটা আমি স্বাভাবিক মনে করি না।’ তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী আমাকে দলের সাধারণ সম্পাদক করেছেন। তিনবারের সফল মেয়র আমাদের শ্রদ্ধেয় নেতা এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরীকে (প্রয়াত) সরিয়ে তিনিই আমাকে মেয়র পদে মনোনয়ন দেন। তখন মহিউদ্দিন ভাইয়ের পরিবর্তে আমাকে দলীয় মনোনয়ন দেওয়া হয়েছিল, এখন আমার পরিবর্তে আরেকজনকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে।’

চসিক মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালনে নিজেকে শতভাগ সফল দাবি করে নাছির উদ্দীন বলেন, ‘কাজের ক্ষেত্রে আমাকে ব্যর্থ বলার কোনো সুযোগ নেই। চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের ইতিহাসে ৪০ বছরে যত কাজ হয়নি, তার চেয়ে অনেক বেশি কাজ আমার আমলে হয়েছে। এ সময় যতগুলো প্রকল্প প্রধানমন্ত্রী আমাকে দিয়েছেন, বিগত দিনে কেউ এত প্রকল্প  পাননি। কাজের ক্ষেত্রে আমি শতভাগ সফল। এটা নিয়ে  কেউ কোনো প্রশ্ন তুলতে পারবে না।’

গতকাল নাছিরের ট্রেনে করে চট্টগ্রাম আসার কথা ছিল। এ কারণে অনেকেই সকাল থেকে চট্টগ্রাম পুরাতন রেলস্টেশনে ভিড় জমান। কিন্তু সিটি মেয়র বিমানে করে চট্টগ্রাম আসেন। পরে এ খবর পেয়ে সেখানে হাজারো নেতাকর্মী যান। বিকেল ৪টার দিকে তিনি বিমানবন্দর থেকে বের হয়ে গাড়িতে ওঠেন। এ সময় সেখানে কোনো আনুষ্ঠানিকতা ছিল না। বিমানবন্দর থেকে গাড়িতে করে সোজা নগরের আন্দরকিল্লায় নিজ বাসভবনে যান। সেখানেও হাজারো নেতাকর্মী বাসভবনের সামনের সড়ক ও আশপাশে অপেক্ষা করতে থাকেন। তিনি বাসভবনে গিয়ে তাঁর মাকে সালাম করে আবার বেরিয়ে চসিকের নিজ কার্যালয়ে গেছেন। সেখানেও অনেকে যান তাঁর সঙ্গে দেখা করতে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা