kalerkantho

শনিবার । ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৮ নভেম্বর ২০২০। ১২ রবিউস সানি ১৪৪২

চসিক নির্বাচন

এবার আ. লীগ থেকে মনোনয়নপত্র নিলেন মনজুর

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



এবার আ. লীগ থেকে মনোনয়নপত্র নিলেন মনজুর

ফাইল ছবি

বিএনপি সমর্থিত চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) সাবেক মেয়র মোহাম্মদ মনজুর আলম এবার তাঁর পুরনো দল আওয়ামী লীগ থেকে মেয়র পদে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে মনজুরের পক্ষে এ মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করা হয়। এ নিয়ে চট্টগ্রামের রাজনৈতিক অঙ্গনে নানামুখী আলোচনা শুরু হয়েছে।

বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মেমোরিয়াল ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা আওয়ামী লীগ সমর্থিত সাবেক হ্যাটট্রিক কাউন্সিলর মোহাম্মদ মনজুর আলম। ২০১০ সালের চসিক নির্বাচনে তিনি মেয়র পদে আওয়ামী লীগ থেকে সমর্থন চেয়েছিলেন। না পেয়ে হঠাৎ বিএনপির সমর্থন পেয়ে আওয়ামী লীগের হ্যাটট্রিক বিজয়ী সাবেক মেয়র এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরীকে হারিয়ে চমক সৃষ্টি করেছিলেন মনজুর।

গত নির্বাচনেও বিএনপির চেয়ারপারসনের সাবেক উপদেষ্টা মনজুর আলম বিএনপির টিকিটে আবার মেয়র পদে নির্বাচন করলেও আওয়ামী লীগ সমর্থিত আ জ ম নাছির উদ্দীনের কাছে পরাজিত হন। তবে গত নির্বাচনের দিন ভোটগ্রহণের শেষ দিকে ব্যাপক কারচুপির অভিযোগ তুলে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে নির্বাচন ও দল (বিএনপি) থেকে সরে আসার ঘোষণা দেন মনজুর। এরপর থেকে মনজুর আলমকে বিএনপির রাজনীতিতে কোনো কর্মসূচিতে দেখা যায়নি। আওয়ামী লীগের কর্মসূচিতেও ছিলেন না। তবে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চট্টগ্রাম-১০ আসন থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী ছিলেন মনজুর।

জানতে চাইলে মোহাম্মদ মনজুর আলম গতকাল বিকেলে কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমার মনোনয়নপত্র আমার ভাই ও ভাইপো সংগ্রহ করেছে। আমি মেয়র থাকাকালে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আন্তরিকতায় কাজ করার সুযোগ হয়েছিল। আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বিশ্বাসী। আমি মনোনয়ন পেলে সবাইকে নিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে পারব। আমার অভিজ্ঞতা কাজে লাগাতে পারব। আমি রাজনীতিতে না থাকলেও সমাজসেবায় থেকে কখনো দূরে ছিলাম না। মানুষের পাশে ছিলাম।’

জানা যায়, মনজুর আলমের বাবা আবদুল হাকিম কন্ট্রাক্টর ছিলেন নগরের পাহাড়তলি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি। তিনি নগর আওয়ামী লীগের কার্যকরী কমিটির সদস্যও ছিলেন। এদিকে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মেমোরিয়াল ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা মনজুর আলম নিজ এলাকা কাট্টলীসহ নগরের বিভিন্ন এলাকায় বেশ কিছু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও দাতব্য প্রতিষ্ঠান পরিচালনা এবং সমাজসেবামূলক কাজে যুক্ত।

উল্লেখ্য, চসিকের পাঁচটি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এর মধ্যে চারটিতে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী বিজয়ী হয়েছিলেন। সর্বশেষ ২০১০ ও ২০১৫ সালে মনজুর আলম বিএনপির সমর্থনে নির্বাচন করেছিলেন। ২০১০ সালে তিনি বিজয়ী হন। তাঁর আগে তিনটি নির্বাচনে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী ছিলেন দলের ভাইস চেয়ারম্যান ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী মীর মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন। তবে তিনটি নির্বাচনেই নাছির আওয়ামী লীগ প্রার্থী বর্ষীয়ান নেতা এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরীর (প্রয়াত) কাছে বড় ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা