kalerkantho

বৃহস্পতিবার  । ১৯ চৈত্র ১৪২৬। ২ এপ্রিল ২০২০। ৭ শাবান ১৪৪১

ইউএনও অফিসে আদালত বসিয়ে সাজা

চুনারুঘাটের ইউএনও ওসিকে শোকজ

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি   

২৯ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৫ মিনিটে



চুনারুঘাটের ইউএনও ওসিকে শোকজ

মাদকদ্রব্য উদ্ধার অভিযানে বাড়ি থেকে ধরে এনে ইউএনও অফিসে আদালত বসিয়ে সাজা দেওয়ার কারণে হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং থানার ওসিকে কারণ দর্শানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে হবিগঞ্জের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সুলতান উদ্দিন প্রধান এই আদেশ দেন।

আদালত সূত্রে জানা যায়, হবিগঞ্জের স্থানীয় দুটি পত্রিকায় মাদকসেবী ও মাদক কারবারিদের নিয়ে দুটি সংবাদ প্রকাশিত হয়। বিজ্ঞ বিচারক রিপোর্টগুলো আমলে নিয়ে এক আদেশে বলেন, সংবাদে দেখা যায় সোমবার দুপুরে মাদকদ্রব্য অধিদপ্তরের একটি দল চুনারুঘাট এলাকার বিভিন্ন গ্রামে অভিযান চালিয়ে চুনারুঘাট উপজেলার গোগাউড়া গ্রামের আব্দুল মন্নাফের পুত্র সোহেল মিয়া ওরফে রনিকে পাঁচ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট রাখা, নুর মোহাম্মদপুর গ্রামের মৃত আব্দুল গফুরের পুত্র মাসুক মিয়া ওরফে মাসুম মিয়াকে (১৮) ইয়াবা সেবন এবং কাটাগিলা গ্রামের আন্দার উল্লার পুত্র আজিজুল হককে (২৭) পাঁচ পিস ইয়াবা রাখার অভিযোগে আটক করা হয়।

কিন্তু মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১৮-এর ২৯(১) ধারায় বর্ণিত আছে, ‘মহাপরিচালক অথবা তাহার নিকট হতে ক্ষমতাপ্রাপ্ত কোন অফিসার অথবা কোন পুলিশ অফিসার ব্যতীত অন্য কোন অফিসার কোন ব্যক্তিকে গ্রেফতার করিলে অথবা কোন বস্তু আটক করিলে তিনি অনতিবিলম্বে গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিকে অথবা আটককৃত বস্তুটিকে সংশ্লিষ্ট থানার ভারপ্রাপ্ত অফিসার অথবা ভারপ্রাপ্ত অফিসার হিসাবে ক্ষমতাপ্রাপ্ত ব্যক্তির নিকট প্রেরণ করিবে।’ কিন্তু গ্রেপ্তারকৃতদের থানায় না এনে ইউএনও কার্যালয়ে এনে বিভিন্ন মেয়াদে প্রদেশের উহানসহ বেশ কয়েকটি শহর অবরুদ্ধ করে। এতে অন্তত পাঁচ কোটি মানুষের গতিবিধি নিয়ন্ত্রিত হয়ে পড়ে। করোনার কারণে এবার চীনা নববর্ষের আনন্দেও ভাটা পড়ে।

পরিস্থিতি মোকাবেলায় আন্তর্জাতিক ও অভ্যন্তরীণ সফরে কড়াকড়ি আরোপ করে বেইজিং। দেশের অভ্যন্তরে দূরপাল্লার বাসভ্রমণও বন্ধ করে দেওয়া হয়। বন্ধ করা হয় দুই হাজার ট্রেন সার্ভিস। তবে উহান থেকে অনেক দূরের শহরেও মৃতের সংখ্যা বেড়ে যাওয়া এবং আরো প্রাণহানির খবরে গতকাল চীনা কর্তৃপক্ষ নাগরিকদের বিদেশভ্রমণ স্থগিত করতে বলেছে।

এদিকে চীনের শিক্ষা মন্ত্রণালয় গতকাল জানিয়েছে, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের স্প্রিং সেমিস্টারের কার্যক্রম স্থগিত করা হয়েছে। শিক্ষার্থীরা বর্তমানে নববর্ষের ছুটিতে আছে। আগামী ৩০ জানুয়ারি ওই ছুটি শেষ হবে। কিন্তু এত অল্প সময়ের মধ্যে করোনা নিয়ন্ত্রিত হওয়ার সম্ভাবনা না থাকায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। শিক্ষার্থীরা যাতে বাইরে না যায় কিংবা আড্ডায় না মেতে ওঠে, এ বিষয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রশাসনকে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।

চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন গতকাল জানিয়েছে, গত সোমবার রাত ১২টা পর্যন্ত চীনের ৩০টি প্রদেশ, স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল ও শহরে করোনাভাইরাসে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে এক হাজার ৭৭১ জন। তা ছাড়া নতুন গুরুতর রোগীর সংখ্যা ৫১৫। ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে নতুন ২৬ জন রোগী মারা গেছে। এতে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০৬-এ।

কমিশন জানায়, নতুনসহ আক্রান্ত রোগীর মোট সংখ্যা দাঁড়িয়েছে চার হাজার ৫১৫। গুরুতর মোট রোগীর সংখ্যা ৯৭৬। এ পর্যন্ত হাসপাতাল থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছে ৬০ জন। অবশ্য এরই মধ্যে নতুন করে ছয় হাজার ৯৭৩ জন মানুষ ভাইরাসে আক্রান্ত হতে যাচ্ছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তাদের পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।

চীনের রাষ্ট্রীয় কাউন্সিলর ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই গতকাল বেইজিংয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডাব্লিউএইচও) মহাপরিচালক তেদ্রোস আধানমের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। বৈঠকে আধানম বলেন, চীন সরকার ভাইরাস সংক্রমণকে উচ্চ মানের গুরুত্ব দিয়েছে এবং দ্রুত শক্তিশালী ধারাবাহিক পদক্ষেপ নিয়ে মহামারির প্রাদুর্ভাব ঠেকিয়েছে। ওয়াং ই বলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক বেইজিংয়ে এসেছেন। এতে চীনের প্রতি সংস্থার সমর্থন প্রতিফলিত হয় এবং চীন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সঙ্গে সহযোগিতা জোরদার করবে।

এদিকে ‘অশুভ করোনাভাইরাস’ প্রতিরোধে সর্বোচ্চ চেষ্টার কথা জানিয়েছেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি চিনপিং। তিনি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধানকে গতকাল বলেছেন, ‘এই অশুভ মহামারির কথা আমরা গোপন রাখতে পারি না। চীনা সরকার সব সময়ই তথ্যের অবাধ প্রবাহে বিশ্বাস করে। করোনাভাইরাস সম্পর্কিত তথ্যাদি সময়মতো দেশের মানুষকে জানানোর পাশাপাশি বিদেশি রাষ্ট্রকেও অবহিত করছে বেইজিং।’

আটকা বহু বিদেশি : উহান শহরের পাশের শিল্পনগর উহাইয়ে এক কোটি ১০ লাখ মানুষের বাস। সেখানে কয়েক হাজার বিদেশি আটকা পড়েছে। গাড়ি চলাচল বন্ধ থাকায় উহানের বেশির ভাগ সড়কে নির্জনতা দেখা গেছে। ৩১ বছর বয়সী ব্রিটিশ নাগরিক জোসেপ প্যাসেই শহরটিতে ইংরেজির শিক্ষকতা করেন। তাঁর কথায়, ‘আমরা ভীষণ উদ্বেগে আছি। ভাইরাসটি খুবই ভয়ংকর। তবে আমার কাছে বড় ভয় হচ্ছে, এটি নিয়ন্ত্রণে কয়েক মাস লেগে যাবে। এ সময় খাবার সংকট হবে, জীবন ধারণ করা কঠিন থেকে কঠিনতর হবে।’

এরই মধ্যে নিজ নাগরিকদের জন্মভূমিতে ফেরাতে উদ্যোগ নিয়েছে বেশ কয়েকটি দেশ। গতকাল কনস্যুলার স্টাফ ও যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের নিয়ে একটি ফ্লাইট উহান ছাড়ার কথা ছিল। তবে কোনো কারণ উল্লেখ না করেই ওই যাত্রা স্থগিতের কথা জানিয়েছে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

চলতি সপ্তাহের মাঝামাঝিতে নাগরিকদের সরিয়ে নেওয়ার কথা জানিয়েছে ফ্রান্স। একই ধরনের পদক্ষেপের কথা ভাবছে জার্মানি।

উহানে বিমান পাঠাচ্ছে জাপান : এদিকে উহান থেকে নিজেদের নাগরিকদের সরিয়ে নিতে বিমান পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাপান। দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী তোশিমিতসু মোতাগি বলেন, ‘আমরা বিমানের ব্যবস্থা চূড়ান্ত করেছি। চীনও প্রস্তুত আছে বলে আমাদের জানিয়েছে। বিমানবন্দরে নিরাপদ পরিবহনের ব্যবস্থা করা হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘আমরা উহান বিমানবন্দরের উদ্দেশে প্রথম ফ্লাইট পাঠাচ্ছি। বিমানটিতে করে জাপানের নাগরিকদের পাশাপাশি চীনের জনগণের জন্য মাস্ক ও নিরাপত্তামূলক স্যুট ত্রাণ হিসেবে পাঠানো হবে।’ তিনি জানান, চীনের ওই অঞ্চলে থাকা ৬৫০ নাগরিকের মধ্যে প্রায় ২০০ জনকে এ বিমানে করে দেশে ফিরিয়ে আনা হবে। তারা দেশে ফেরার আগ্রহ ব্যক্ত করায় এমন পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। সূত্র : এএফপি।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা